মাদকসেবনে জরিমানা, সেই টাকায় মেয়েদের স্কুল গড়লেন নয়না

0

নয়না পাত্র ওড়িশার ধেনকানাল জেলার বারুয়ান গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা। নিজের এলাকায় মদ্যপান প্রতিরোধে সক্রিয় হয়েছিলেন, মেয়েদের জন্য স্কুল, উন্নত শৌচালয় ব্যবস্থা, ২৫০ একর বিস্তৃত শালবন সংরক্ষণ এবং মহিলাদের স্বাবলম্বী করতে ঋণের ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য লড়াই করেছিলেন। আদিবাসীদের অধিকার প্রতিষ্ঠা এবং তাঁর ওয়ার্ডের মহিলাদের স্বাধীনভাবে বাঁচার অধিকার দিতে রীতিমতো অভিযান চালিয়েছেন। এই অক্লান্ত প্রচেষ্টার জন্যই তাঁর ওয়ার্ডে স্কুলছুটের সংখ্যা উল্লেখ‌যোগ্য হারে কমেছে।

এলাকায় মদ্যপান বন্ধ করতে ৪৫ বছরের ওয়ার্ড অফিসার নয়না জরিমানা চালু করেন। মদ্যপদের থেকে জরিমানা আদায় করে তিনি শুধু মাদক সেবনে ইতি টানেননি, ওই টাকায় গ্রামে শৌচালয় তৈরির জন্য ফান্ড গড়ে দিয়েছেন। এভাবে গ্রামে তিনি ৬ টি শৌচালয় বানাতে সক্ষম হন, ‌যার ফলে গ্রামবাসীরা পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতায় অভ্যস্ত হয়েছেন ‌যা অতীতে কখনও ভাবা যায়নি। দ্য উইকেন্ড লিডার অনুযায়ী, বারুয়ানে কোনও স্কুল ছিল না। শিশুদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে জঙ্গল পেরিয়ে দূরের স্কুলে যেতে হত। গ্রামের মেয়েদের জন্য এলাকায় স্কুল তৈরির যে প্রকল্প হাতে নেন নয়না, তা থেকেই তাঁর সমাজকেন্দ্রিক মানসিকতা স্পষ্ট হয়। বিভিন্ন সরকারি প্রকল্প থেকে এই স্কুল তৈরির জন্য অর্থ সংগ্রহ করেন তিনি। বেশ কয়েক বছরের চেষ্টায় স্কুলটি তৈরিতে তিনি সফল হন। সেই স্কুলে বর্তমানে ১৫০ ছাত্রী পড়াশোনা করে উজ্জ্বল ভবিষ্যতের লক্ষ্যে এগিয়ে চলেসছে।

এখানেই শেষ নয়, স্থানীয় কাঠ মাফিয়াদের থেকে জঙ্গলটি রক্ষা করার জন্য নয়নার সংগ্রাম ‌যথেষ্ট প্রশংসনীয়। এরজন্য ২৫০ মহিলার একটি ব্রিগেড তৈরি করেছেন ‌যাঁরা সর্বক্ষণ ২৫০ একর বিস্তৃত গ্রামের শালবনটির নজরদারিতে থাকেন। এর ফলে আদিবাসীরাও তাঁদের জঙ্গল আর জমি রক্ষায় সফল হয়েছে। এছাড়া অব্যবহৃত সরকারি জমিতে হাজার হাজার কাজু গাছ লাগানোরও ব্যবস্থা করেন তিনি। দুবার ওয়ার্ড সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন নয়না। তাঁর উদ্যোগ এবং নেতৃত্বের জন্য আউটস্ট্যান্ডিং ওমেন পঞ্চায়েত লিডার্স অ্যাওয়ার্ড ২০১৩ সম্মানেও ভূষিত হয়েছেন।

Related Stories