নতুন মোড়কে দে'জ আনল শিশুদের অবনীন্দ্রনাথ

2

শিশুদের পড়বার উপযোগী বইয়ের বড় অভাব এ যুগে যেমন সে যুগেও তেমনি ছিল। অভাবটা বুঝেছিলেন রবীন্দ্রনাথ নিজেই। তাই অবনঠাকুরকে বলেছিলেন শিশুদের জন্য লিখতে। কবিগুরুর নির্দেশের হেরফের হয়নি। ছোটদের জন্য লিখেছিলেন অবনীন্দ্রনাথ। এঁকেও ছিলেন অজস্র। নিজের পরিচয় দিতে গিয়ে বলেছিলেন, অবনঠাকুর ছবি লেখেন। সত্যিই ছবির মতো লিখতেন অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুর। ঝরঝরে বাংলা ভাষা এত মোলায়েম করে লেখার হাত তার সময়ের অনেক লেখকেরই ছিল না। আর লিখতেন যখন ছবির মতো ফুটে উঠত সেই বর্ণনা। ক্ষীরের পুতুল, রাজকাহিনীর অবনঠাকুরকে আরও একবার আলোচ্য করে তুলল দে’জ পাবলিশার্স।

এতদিন নানা দিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিল অবনঠাকুরের দুষ্প্রাপ্য সব গল্প, ছবি, লেখা। এবার দু মলাটের মধ্যে পাওয়া যাবে অগ্রন্থিত আর দুষ্প্রাপ্য সেই সব। সঙ্গে নালক, ক্ষীরের পুতুল, রাজকাহিনীর মত বিখ্যাত শিশু সাহিত্য। অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুরের শিশু ও কিশোর সাহিত্য নামে একটি সংকলন বের করেছে দে’জ। বইতে আছে অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুরের এক ঝাঁক ছবি আর ফটোগ্রাফও। অবনীন্দ্রনাথের নামাঙ্কিত রচনাবলী থাকলেও ছোটদের জন্য সেই সব আঁকা আর লেখা আজ আর এক জায়গায় পাওয়া যায় না। ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকার ফলে হারিয়েও গেছে অনেক। যেমন ধরুন ক্ষীরের পুতুলে ৬টি ছবি এঁকেছিলেন অবনঠাকুর। বই প্রকাশের পর সেগুলি আর দেখা যায়নি। সেই ছবিগুলিকে আবার ফিরিয়ে এনেছেন ওরা। রাজকাহিনী যখন প্রথম প্রকাশ হয়েছিল তখন প্রচ্ছদে বইয়ের নাম লেখা হয়েছিল আরবি হরফের অনুকরণে। সেই দুষ্প্রাপ্য প্রচ্ছদটিও রাখা হয়েছে এই বইয়ে। বর্তমান বইটির প্রচ্ছদটিতেও ব্যবহার করা হয়েছে অবনঠাকুরের একটি অপ্রকাশিত ফটোগ্রাফ। বইটির ২টি ভলিউম। সম্পাদনা করেছেন সুধাংশুশেখর মুখোপাধ্যায়।

Related Stories