মোদি, ওবামা আর ম্যাডোনার মধ্যে মিল কোথায়?

হ্যাঁ... শুধু প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বা পপ স্টার ম্যাডোনা নন আরও অনেকে আছেন যাদের আপনি চেনেন তাদের মধ্যে একটা সূক্ষ্ম মিল আছে। এরা প্রত্যেকেই যোগা চর্চা করেন। একবার ঝালিয়ে নিন কে কী বলছেন যোগা চর্চা নিয়ে।

0

মোদি বলেছেন, যোগা খুবই পবিত্র একটি অভ্যাস যা মানুষের সঙ্গে প্রকৃতির মিলন ঘটায়। সমগ্র মানবসভ্যতাকে একত্রিত করার ক্ষমতা রাখে যোগা। যোগাই সুন্দর ভাবে জ্ঞান,কর্ম এবং ভক্তির মিল করায়। UNGA-এর শপথ অনুযায়ী ২১শে জুন বিশ্বব্যপী আন্তর্জাতিক যোগা দিবস পালনের মূল লক্ষ্যই হল, যোগাভ্যাসের উপকারিতা সম্বন্ধে মানুষকে অবগত করা। পৃথিবীর প্রতিটি স্বাস্থ্যসচেতন মানুষের জন্য যোগা বিশেষ জরুরি।

আসুন এমন কিছু উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিদের কথা আজ জানি যাঁরা নিত্য যোগাভ্যাস করেন।

নরেন্দ্র মোদি- এতে অবাক হবার কিছুই নেই যদি আপনি জানতে পারেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি প্রতিদিন যোগব্যায়াম করেন। রাতে মাত্র তিন চার ঘন্টা ঘুমিয়েও তিনি সারাদিন চনমনে থাকেন। উনি বলেন, ওনার এই অফুরন্ত প্রাণশক্তির রহস্য হল যোগা আর প্রাণায়ম। যখনই তিনি ক্লান্ত বোধ করেন, জোরে জোরে গভীর শ্বাস নেন, আর পুনরায় তরতাজা অনুভব করেন।

বারাক ওবামা- আমেরিকার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা আর তাঁর স্ত্রী মিশেল দুজনেই যোগার বড় ফ্যান। সম্প্রতি নরেন্দ্র মোদি মার্কিন সফরে যখন গিয়েছিলেন সেসময় উপবাস করছিলেন। তবু তিনি যথেষ্ট তৎপরতার সাথে সব সামলেছেন। এই বিষয়টি আশ্চর্য করেছে বারাক ওবামাকে। তিনিও হোয়াইট হাউসে যোগার প্রথা চালু করে দিয়েছেন।

অপরা উইনফ্রে- অপরা উইনফ্রে মার্কিন টেলিভিশনের রাণী। মাল্টিবিলিনিয়র। তিনি তুরীয় ধ্যানে ঈশ্বরের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেন। Huffington Post অনুসারে ডক্টর ওজ শোতে তিনি বলেছেন তুরীয় ধ্যানের মাধ্যমে আমরা তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক করতে পারি যাঁকে ঈশ্বর বলে জানি। ইনার সিটি স্কুল সিস্টেমে কাজ করাকালীন অপরা এই চর্চা শুরু করেন। তিনিও যোগার দারুণ ভক্ত। 

সাইনা নেহাল-দেশের অন্যতম সেরা ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় সাইনা নেহাল সম্প্রতি জানিয়েছেন যে খেলার চাপ কমাতে তিনি যোগনিদ্রার আশ্রয় নেন। প্রতিদিন চল্লিশ পঁয়তাল্লিশ মিনিট তিনি যোগনিদ্রা মগ্ন থাকেন। একজন যোগা বিশেষজ্ঞের মতে এটি চাপ কমাবার খুবই উপকারি পন্থা।

শচীন তেন্ডুলকর- শোনা যায়,ভারতীয় ক্রিকেট দুনিয়ার কিংবদন্তী শচীন তেন্ডুলকর, বিখ্যাত যোগা গুরু স্বর্গীয় বি কে এস আইআঙ্গারের কাছে যোগার প্রশিক্ষণ নিতেন। তাঁর খেলোয়াড় জীবনের খারাপ দিনগুলোতে যোগশিক্ষা ভীষণ উপকারি সাব্যস্ত হয়। জাঁকিয়ে ছক্কা পেটানোর আগে শচীন যোগাসন করতেন। চোট জনিত আঘাত থেকে দ্রুত সেরে উঠতে, অনিল কুম্বলে, রাহুল দ্রাবিড়, জাহির খান এবং যুবরাজ সিং এর মতো খেলোয়াড়দেরও অনেক সাহায্য করেছেন আইআঙ্গার। গোটা ক্রিকেট টিমই কিছুক্ষণ যোগা চর্চা করে।

রতন টাটা-দেশের সবাই সত্তরোর্দ্ধ বিশিষ্ট উদ্যোগপতি রতন টাটার দারুণ এনার্জির কথা জানেন। এই আটাত্তর বছরের তরুণ বলেন, তিনি আজও শিখতে চান। যে অর্থ তিনি স্টার্টআপে ব্যয় করছেন, তা শুধুই ব্যবসাকে নতুনভাবে চেনার চেষ্টা। তিনি তাঁর যোগব্যায়াম চর্চাকে ধন্যবাদ দেন। যোগাশিল্পী আর গুরু ভারত ঠাকুর তাঁকে প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। এনার অন্য ছাত্ররা হলেন সুনীল মিত্তল, শেন ওয়ার্ণ, ভ্লাডিমির পুতিন, মাইকেল ডগলাস এমন আরও অনেকে।

স্টিভ জোবস-স্টিভ জোবসের মতো মহান টেকির “make a dent in the universe” এর স্বপ্নকে বাস্তবের রূপ দিয়েছে যোগের শিক্ষা। যোগতৃষ্ণার নিবৃত্তি করতে স্টিভ পরমহংস যোগানন্দ হয়ে ওঠেন। রিপোর্ট বলছে, জোবসের অন্তিমযাত্রায় উপস্থিত প্রত্যেক ব্যক্তিকে একটি করে বাক্স বন্দী বই দেওয়া হয়েছিল। বইটি হল যোগির আত্মজীবনি, একজন যোগানন্দের আত্মউপলব্ধির কাহিনী।

মার্ক বেনিওফ-বলা হয় Oracle-এ খুবই চাপের মধ্যে চাকরি করাকালীন যোগাভ্যাস শুরু করেন Salesforce.com-এর মার্ক বেনিওফ। ২০০৫ সালের San Francisco Chronicle অনুযায়ী মার্ক দীর্ঘদিন ধরেই ধ্যান করেন। উনি স্টিভ জোবসের অনুরাগী। Inc. এর একটি আর্টিকেলে মার্ক বলেন, স্টিভকে তিনি আধ্যাত্মিক ব্যক্তি বলেই চিনতেন। স্টিভ বিশ্বাস করতেন, তাঁর ভিতরের অনুভূতিগুলি তাঁর প্রকৃত সম্পদ। মূল্যবান পুরষ্কার। বাইরের দুনিয়াকে চিনতে হলে অবশ্যই নিজের অন্তরটাকে চিনতে হবে।

কঙ্গনা রানওত-বলিউডের হট হিরোইন কঙ্গনা রানওত স্বীকার করেন তাঁর সৌন্দর্যের রহস্য সুষম আহার এবং যোগার শক্তি। এই অসাধারণ অভিনেত্রী Queen এবং Tanu Weds Manu তে তাঁর বুদ্ধিদীপ্ত অভিনয়ের জন্য অনেক প্রশংসা কুড়িয়েছেন।

আরিয়ান্না হাফিংটন-The Huffington Post-এর চিফ এডিটর আর সহনির্মাতা আরিয়ান্না হাফিংটন জানালেন যে তিনি তাঁর মার কাছ থেকে যোগচর্চা শিখেছেন। তাঁর মার যোগার প্রতি নিষ্ঠার উদাহরণ স্বরূপ তিনি মানতেন নিজের অন্তরাত্মার সঙ্গে যোগাযোগের রাস্তা দেখায় যোগাভ্যাস। Yoga Journal কে একথা জানিয়েছেন আরিয়ান্না। তাঁর সাম্প্রতিককালের লেখা বই The Sleep Revolution। এই বইয়ে ঘুমের ক্ষেত্রে যোগার উপযোগীতার কথা আলোচিত হয়েছে।

ম্যাডোনা-চিরযৌবনের দূত ম্যাডোনা। পপ সিঙ্গার। গোটা দুনিয়া যাঁর সুর আর রূপের দিওয়ানা। ১৯৯৬ সাল থেকে তাঁর যাদু অটুট রেখেছে অ্যাসটাং যোগা। তিনি বলেন, যোগা জীবনের রূপক। আপনাকে ধীর লয়ে চলতে হবে। তাড়াহুড়ো নয়। লাফ দিয়ে পরের ধাপ টপকানো যায়না। অপমানজনক পরিস্থিতিতেও শান্ত থাকতে হবে, ধৈর্য ধরে জগতের মোকাবিলা করতে হবে। আপনি কখনও নিজের বিচারক হতে পারবেন না। যোগা হল শরীর, মন আর আত্মার পরিচর্যা।