জুতোর মোজায় মজে গেছেন উদ্যোগী অনুশা

0

আপনি জুতোর সঙ্গে যে মোজা পরেন সেও যে ফ্যাশন স্টেটমেন্ট হতে পারে তা দেথিয়ে দিয়েছেন ‌এক তরুণী উদ্যোগী। ওঁর নাম অনুশা জৈন। Bonjour নামে একটি সংস্থা পরিচালনা করছেন অনুশা। সংস্থাটি মোজা সম্পর্কে ধ্যানধারণা পাল্টে দিয়ে সেটিকে ফ্যাশন স্টেটমেন্টের মর্যাদায় উন্নীত করেছে।

Bonjour এর জন্ম অবশ্য ১৯৮৪ সালে। এটি অনুশার পারিবারিক সংস্থা। দিল্লির মেয়ে অনুশা দিল্লির পার্ল একাডেমি থেকে ফ্যাশন রিটেল ম্যানেজমেন্টে স্নাতক হন। এরপর বিজনেস ম্যানেজমেন্ট নিয়ে পড়েছেন মুম্বইয়ের এস পি জৈন ইন্সটিটিউট অব ম্যানেজমে্ন্ট অ্যান্ড রিসার্চে।

অনুশা জানালেন, তিনি ছেলেবেলাতেই ঠিক করেছিলেন ব্যবসা করবেন। বরাবরই তাঁর ভাবনায় ছিল ব্যবসা করলেও তা যেন-তেন ভাবে বাঁধা গতে হবে না। বরং নতুন কিছু করবেন। নিজের উদ্ভাবনী প্রতিভাকে কাজে লাগাবেন।

কিন্তু সমস্যা হল সাধারণত এটা ধরেই নেওয়া হয়, পারিবারিক ব্যবসা পরিবারের ছেলেরাই সামলাবেন। এই ধারণাটাকেও ভাঙতে হয়েছে অনুশাকে।

বাবা ব্যবসা থেকে অবসর নেওয়ার সময় অনুশার বয়স মোটে্ ২৫। সেইসময়েই ব্যবসার দায়িত্ব নেন তিনি। গভীরভাবে সংস্থার প্রোডাক্ট নিয়ে ভাবনাচিন্তা করতে করতেই অনুশা ঠিক করেন, বাজারে নতুন ধরনের মোজা আনবেন তিনি। যা একদিন ফ্যাশন স্টেটমেন্ট হয়ে উঠবে।

অনুশা সেই লক্ষ্য ছুঁতে পেরেছেন। মোজা নিয়ে মান্ধাতার আমলের ধারণাকেও পাল্টে দিতে পেরেছেন। অনুশা জানিয়েছেন, দেশের ১০ হাজার প্রিমিয়ার স্টোর্সে Bonjour এর মোজা পাওয়া যায়। দিনকে দিন চাহিদাও বাড়ছে।

তবে নতুন ধরনে্র মোজাকে বাজারে জনপ্রিয় করতে খানিকটা সময় লেগেছে। অনুশা জানালেন, মানুষের গ্রহণযোগ্যতা পেতে থানিক সময় তো লাগেই। এজন্য কৌশল হিসাবে বিভিন্ন নামী খবরের কাগজ ও ম্যাগাজিনে প্রোডাক্টের লাগাতার বিজ্ঞাপন দিতে হয়েছে। এরপর আর পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি অনুশাকে।