ক্রিকেটের দেশে স্কুলে গল্‌ফ চালু হোক চান অদিতি

1

গল্‌ফ যে একটা শিশুদের খেলা হতে পারে ভারতে সেকথা কারও কখনও মাথায় এসেছে! ১৯ বছরের তন্বী সুন্দরী গল্‌ফ প্লেয়ার অদিতি অশোক বলছেন তিনি মাত্র সাত বছর বয়স থেকে রীতিমত গল্‌ফ খেলছেন। এই খেলার ভিতর দিয়েই বড় হয়েছেন অদিতি। আজ মাত্র ১৯ বছরেই সেলেব্রিটি। তিনিই প্রথম ভারতীয় মহিলা গলফার যিনি LET টাইটেল জিতেছেন। এবং প্রথম ভারতীয় মহিলা গলফার যিনি এক সিজনে LPGA Tour এ পাঁচটা মেজরেই খেলেছেন। অদিতি সর্বকনিষ্ঠ গলফার হিসেবে ভারতের প্রতিনিধিত্ব করেছেন অলিম্পিকসে। এশিয়ান গেমসে অংশ নিয়ে খবরের শিরোনামে চলে এসেছেন।

জানালেন তাঁর গল্‌ফ খেলার গল্প। তখন বছর পাঁচেকের অদিতি। বাবা মায়ের সঙ্গে কর্ণাটক গল্ফ অ্যাসোসিয়েশনের কাছেই একটি রেস্তোরাঁয় গিয়েছিলেন। সেখান থেকে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছিল গল্ফ খেলা। সেদিনই প্রথম দেখায় গল্‌ফের প্রেমে পড়ে যান। খেলতে খেলতে মাঠে চলে আসেন আর প্রথম গল্‌ফের স্টিকে হাত দেন। তারপর গল্‌ফের বাইরে আর কিছুই ভাবতে পারতেন না এই মেয়ে। পুরুষদের ভিড়ে দুর্দান্ত পারফর্মেন্সের জোড়ে এগিয়ে যান। সাত বছর বয়স থেকে নানান দেশে ঘুরে ঘুরে ট্যুর্নামেন্ট খেলেছেন। তখন থেকেই টাইটেল পাওয়ার লড়াইটা লড়তে শুরু করেন অদিতি।

২০১৬য় ২টি এবং ২০১৭য় ১টি LET events জিতেছেন। অনিকা সোরেনস্টামের এই ভক্ত চান খেলাটা লোকজন বুঝুক। দারুণ মজার খেলা। ক্রিকেটের দেশে হাতে ব্যাট নিয়ে বল তাড়া করার খেলাটা সোজা, কিন্তু বাকিগুলো সম্পর্কে আদতে পরিচিতিই নেই। তাই অদিতি চান খেলাটা শুরু হোক স্কুল থেকে। যেমনটা চিনে হয়। স্কুলের শিশুদের গল্‌ফ ওখানে বাধ্যতামূলক। আর এখন তো অলিম্পিকসে চলে এসেছে গল্‌ফ। ফলে সুপ্ত প্রতিভাগুলোর উন্মোচনে স্কুল গুলির উচিত গল্‌ফকে যুক্ত করা। তাহলেই তফাতটা চোখে পড়বে। মেয়েরাও দেখিয়ে দিতে পারবে ছেলেদের চেয়ে তারাও কোনও অংশে কম নন। তবে খেলার খরচটা যদি মধ্যবিত্তের নাগালে নামানো যায় তবেই অসাধ্য সাধন করে দেখাতে পারেন এই তোখোড় গল্‌ফার।