উপচে পড়ছে Darveys-এর ঘটের লক্ষ্মী

0

এখনও আপনি বলেন বুঝি ভারত গরিব দেশ? আজও ধারণা ভারত তৃতীয় বিশ্বের দেশ। তাহলে আপনাকে অবশ্যই চোখ বুলিয়ে নিতে হবে Kotak Wealth Management-এর তৈরি সাম্প্রতিক রিপোর্টে, যেখানে বলা হয়েছে ২০১১ থেকে ২০১৫-র মধ্যে ভারতের লাখপতির সংখ্যা ৬২,০০০ থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১,৩৭,০০০ এ। ২০১৪-১৫-র মধ্যেই ১৭% বেড়েছে লাখপতি ভারতীয়র সংখ্যা। হিসেব বলছে আগামী পাঁচ বছরে তিনগুণ বেড়ে এটা গিয়ে দাঁড়াবে ৩,৪৮,০০০ এ। এঁদের ব্যক্তিগত সম্পত্তির মোট মূল্য হবে প্রায় ৪১৫ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার ( ১ ট্রিলিয়ন মানে ১ লাখ কোটি টাকা )।

লাখপতি ভারতীয়রা দেশে এক নতুন ধরণের বাজারের জন্ম দিয়েছে,বিলাস দ্রব্যের বাজার। Euromonitor-এর করা সমীক্ষা অনুযায়ী ২০০৯ থেকে ২০১৪-র ভিতর বিলাস দ্রব্যের বাজার মূল্য ৩০ বিলিয়ন ( ৩,০০০ কোটি টাকা ) মার্কিন ডলার থেকে বেড়ে ১৩০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার হবে। শুধু ২০১৪-তেই বিলাস দ্রব্যের বিক্রি ২৫% বেড়েছে। দেশ যেসময় বিলাস দ্রব্য বিক্রির এই বিপুল বৃদ্ধির সাক্ষী ঠিক সেইসময় ২০১৪-র জুনে নকুল বাজাজ বিলাস দ্রব্যের শপিং সাইট Darveys বানালেন।

Darveys বিশ্বজনীন ফ্যাশন আকাঙ্খী এলিট ভারতীয়র কাছে পৌঁছনোর দরজা। দুটো মূল বিষয় এই প্ল্যাটফর্ম তৈরির সময় মাথায় রাখা হয়েছে। সামগ্রীর সীমিত স্টক এবং বিদেশী দোকানের জিনিষের মতো সঠিক মূল্য। ইউরোপ আর আমেরিকার বুটিকের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে বিরল এবং এক্সক্লুসিভ জিনিসের পসার সাজিয়েছে। নানান অফার দিচ্ছে। কালেকশনের প্রাচুর্য ও বিনিময় মূল্য বিষয়ে খুল্লমখুল্লা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিচ্ছে অনান্য দেশীয় অনলাইন এবং অফলাইন শপিং কোম্পানীকে,জানালেন Darveys-এর সিইও নকুল বাজাজ।

ই-কমার্স দুনিয়ার বড়কর্তারা পুরোপুরি মা লক্ষ্মীর কৃপাধন্য এখনও হয়ে ওঠেননি। তবে দেড় বছরের পুঁচকে Darveys খুঁজে পেয়েছে লাভের ঘরের চাবি। সারা পৃথিবী জুড়ে তিনশর বেশি বুটিকের সঙ্গে তার সন্ধি। Darveys-এর মারফৎ এইসব বিদেশী বুটিক সরাসরি পাচ্ছে ভারতীয় ক্রেতা। অভিনব এই প্রক্রিয়ায় লাভের মুখ দেখেছে Darveys। কাস্টমারের জন্য মেম্বারশিপ সিস্টেম আছে। নকুল জানালেন তাঁদের উদ্দেশ্য ক্রেতাকে সন্তুষ্টি দেওয়া। কাস্টমার ১০০০ টাকা দিয়ে নাম রেজিস্ট্রি করেন। তারপর তাঁরা ১০,০০০ জিনিসের বিশাল সম্ভার তোলপাড় করে স্বেচ্ছামতো কিনতে পারেন মন পসন্দ বিলাস দ্রব্য। এইসময় তাঁদের ১৫,০০০ কাস্টমার এবং প্রতি মাসে ২৫% করে বাড়ছে রেজিষ্টারড ক্রেতা।

বিশ্বাসযোগ্যতা সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ,বললেন নকুল। সততার বিচারে কোনো ঘাটতি দেখা দিলে তাঁরা কাস্টমারকে দ্রব্যমূল্যের দ্বিগুণ ফেরত দিতে রাজী। পাঁচ বছরের অধিক সময় এই ব্যবসায় আছেন এবং গায়ে A+ তকমা বহন করছেন এমন ব্যবসায়ী আর বুটিকই তাঁদের সঙ্গে যুক্ত। তাছাড়াও নকুলরা প্রতিটি সামগ্রী কেনার সময় বিল নেন। এই বিলই প্রমাণ করে সামগ্রীটি কোন বুটিকের বা ব্র্যান্ডের। সব ডকুমেন্ট সামগ্রীর সঙ্গে মিলিয়ে তবে জাহাজে তোলার অনুমতি দেয় Darveys।

Euromonitor বলছে আগামি পাঁচ বছর ভারতীয় বিলাস দ্রব্যের বাজার প্রভূত উন্নতি করবে। মানুষ অনলাইন শপিং এ আরও দক্ষ হবে। ২০১৪ তেই খুচরা বিক্রির ৪০% অনলাইন শপিং এ সরে এসেছে। ২০২০-র মধ্যে এটি ৭০% হবে। এই প্রমত্ত পরিবেশেই Darveys আগামী তিন বছরে পেরিয়ে যাবে একশ কোটির বার্ষিক টার্ন ওভার। তাঁদের ধরতে হবে টিয়ার টু আর টিয়ার থ্রি শহরতলীর বাজার। ভবিষ্যতে Darveys বুটিকের সংখ্যা বাড়াবে। নতুন ডিজাইনের একরাশ বিলাস দ্রব্য হাজির করবে ক্রেতার দরজায়। লোভনীয় প্রোডাক্ট কাস্টমার পাবেন অভূতপূর্ব মূল্যে।

Darveys-কে আগামি দিনে টক্কর দেবে অনেক দেশী এবং বিদেশী খিলাড়ি। Net-a-Porter, Gilt এবং shopbob এমনই কিছু খেলোয়াড়। আপনার বাড়ির কাছে কিংবা স্থানীয় এলাকায় RockNshop, Obstore, Stylista, Elitify, Pernia’s Pop Up Shop, FashionAndYou এর মতো শপিং সংস্থাও আছে।

(লেখা তৌসিফ আলম, অনুবাদ এষা গোস্বামী)