অ্যাঞ্জেল ইনভেস্টরদের জন্যে নিয়ম সোজা করল SEBI

0

বলতে পারেন সেবি এখন সমাজসেবী। বিশেষ করে স্টার্টআপদের কাছে তো বটেই। কারণ স্টার্টআপগুলির পক্ষে খুবই সুখবর যে, সম্প্রতি দি সিকিওরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ বোর্ড অব ইন্ডিয়া বা সেবি ভারতের স্টার্ট আপগুলিতে অ্যাঞ্জেল ইনভেস্টরদের আর্থিক বিনিয়োগের ক্ষেত্রে নিয়ম-কানুন সহজ করছে। এ ব্যাপারে ইনফোসিসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা এন আর নারায়ণমূর্তি-সহ একঝাঁক বিশেষজ্ঞ সম্প্রতি সেবির কাছে প্রস্তাব পেশ করেছিলেন। সেবির চেয়ারম্যান ইউ কে সিনহার নেতৃত্বে ওই প্রস্তাবটি বুধবার অনুমোদন করা হয়েছে।

সেবি যে নতুন নিয়ম চালু করল তার জেরে স্টার্ট আপে ন্যূনতম বিনিয়োগের পরিমাণ ৫ মিলিয়ন থেকে কমিয়ে ২.৫ মিলিয়ন করা হল। এছাড়া, একটি প্রকল্পে বিনিয়োগকারী অ্যাঞ্জেল ইনভেস্টরের সংখ্যাও ৪৯ টি থেকে বাড়িয়ে এখন ২০০টি করা হয়েছে।

বুধবার ছিল সেবি বোর্ডের বৈঠক। ওই বৈঠকের পর সেবির তরফে জানানো হয়েছে. দেশের বাইরের বা বিদেশি স্টার্ট আপগুলিতে অ্যাঞ্জেল ইনভেস্টররা নতুন নিয়মের জেরে ২৫ শতাংশ বিনিয়োগ করতে পারবেন।

এছাড়াও, স্টার্ট আপে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে অ্যাঞ্জেল ইনভেস্টরদের আরও কিছু সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে সেবি। যেমন, লক-ইন পিরিয়ড কমানো হয়েছে। এ ক্ষেত্রে লক-ইন পিরিয়ড তিন বছর থেকে কমিয়ে এক বছর করা হল।

সেবির চেয়ারম্যান ইউ কে সিনহার নেতৃত্বে চলছে এ দেশের স্টার্ট আপগুলিকে আর্থিকভাবে সহায়তা করার কাজ। তারই ফলশ্রুতিতে সেবির তরফে এই বিশেষ ব্যবস্থাগুলি নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে সেবি।

এর পাশাপাশি সেবির তরফে আরও জানানো হয়েছে, প্রাইভেট ইনভেস্টমেন্ট ইন পাবলিক ইক্যুটিজের (PIPE) ক্ষেত্রে নিয়মকানুন আরও পোক্ত করা হচ্ছে। সেবি জানিয়েছে, সংখ্যালঘু শেয়ার হোল্ডারদের স্বার্থ সুরক্ষিত করতেই এই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়াও, প্রাইভেট ইক্যুইটি মালকানাধীন সংস্থাগুলির একটি তালিকা তৈরিতে হাত দিয়েছে সেবি। ওই সংস্থাগুলির কর্মীদের কাজের নিরিখে বেতন বা অন্য আর্থিক সুযোগ বৃদ্ধির জন্যে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলির শেয়ার হোল্ডারদের অনুমোদন নেওয়া বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে বলে সেবির তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। তবে পাবলিক ইক্যুইটিতে চলা সংস্থাগুলির ক্ষেত্রে গত সেপ্টেম্বরে সেবি যে নির্দেশিকা তৈরি করেছিল, সেটি অপরিবর্তিত রাখা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

সেবির তরফে যে নতুন ব্যবস্থাগুলি নেওয়া হল - তার ফলে অ্যাঞ্জেল ইনভেস্টররা দুভাবে উপকৃত হবেন। প্রথমত, ওরা ভারতের অভ্যন্তরীণ স্টার্ট আপগুলিতে সুনিশ্চিতভাবে বিনিয়োগ করতে পারবেন। দ্বিতীয়ত, দেশের বাইরেও স্টার্ট আপগুলির সঙ্গে কাজ চালাতে পারবেন আগ্রহী অ্যাঞ্জেল ইনভেস্টররা।

অন্যদিকে, এখন এমন একটা সময় চলছে, যখন এ দেশের বহু স্টার্ট আপ সংস্থাই বিনিয়োগকারীর অভাবে ভুগছে। এই পরিস্থিতিতে সেবি স্টার্ট আপে বিনিয়োগ সংক্রান্ত নিয়ম-কানুনগুলি আগের তুলনায় অনেকটা সহজ করায় স্বভাবতই স্টার্ট আপগুলি উপকৃত হবে। পাশাপাশি সেবির এই নতুন উদ্যোগের ফলে debt markets-এর ক্ষেত্রেও বিনিয়োগের জোয়ার আসবে বলে মনে করা হচ্ছে।