‘জ্যামাপ’ থাকলে আপনি নিজেই DJ

0

কোন পার্টিতে গিয়ে আপনি আপনার পছন্দসই গান শুনতে পাবেন তার কোন নিশ্চয়তা নেই বরং না পাওয়াটাই স্বাভাবিক ব্যপার। হয়ত বহু বাবা বাছা করার পর শ্রীমান ডি জে এর মতি উদয় হলে আপনার ভাগ্যে শিকে ছিঁড়লেও ছিঁড়তে পারে এবং আপনি আপনার পছন্দের গানটি পেতে পারেন। অল্প বিস্তর আমদের সকলেরই এই অভিজ্ঞতা আছে। সৌভাগ্যক্রমে হয়তো আমদের এই দিনগুলির সম্মুখীন আর হতে হবে না। মোজিক নামে একটি অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি বানিয়েছে একটি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন যার পোশাকি নাম 'জ্যামাপ'। কোম্পানিটির দাবি তাদের এই অ্যাপ্লিকেশনটিকে যে কেও অনায়াসে নিয়ন্ত্রন করতে পারবেন, শুধু তাদের একটি স্মার্টফোনের অধিকারী হতে হবে। এটি একটি সোশ্যাল জ্যুকবক্স, যে কোন পার্টিতে এটি খাপ খেয়ে যাবে।


আপাতত জ্যামাপ শুধুমাত্র অ্যান্ড্রয়েড ওপারেটিং সিস্টেমের স্মার্টফোনগুলিতেই উপলব্ধ। ধীরে ধীরে বাকি স্মার্টফোনগুলিতেই এই অ্যাপ্লিকেশনটি পাওয়া যাবে। জ্যামাপ এর তৈরীর উদ্দেশ্যই ছিল একটি জ্যুকবক্স তৈরী করা যার মাধ্যমে বাড়ীর মধ্যে পারিবারিক পার্টি, কলেজে এবং যে কোনো ছোট খাটো অনুষ্ঠান সুন্দরভাবে উপভোগ করা যায়। এই অ্যাপ্লিকেশনটি প্রধানত দুটি মোড - জ্যুকবক্স মোড এবং রিমোট মোড। জ্যুকবক্স মোডে ব্যবহারকারী কোন পার্টির আয়োজন করতে পারবেন এবং তার সেলফোন থেকে গান বাজাতে পারবেন। রিমোট মোডে অন্যান্যরা পার্টির আয়োজনকারীর সাথে যুক্ত হতে পারবেন এবং পছন্দসই গান বাজানোর জন্য অনুরোধও জানাতে পারবেন।

জ্যুকবক্স মোডঃ জ্যুকবক্স মোডে আপনার স্মার্টফোনটি হোস্ট হিসাবে কাজ করে এবং আপনার সংগ্রহের গানগুলিকে বাজাতে থাকে। সকলের শোনার জন্য আপনাকে শুধু ফোনটিকে স্পীকারের সাহায্যে যুক্ত করতে হবে। এভাবে আপনি বাড়ীতে, কলেজে বা অফিসে যে কোন পার্টিগুলি উপভোগ করতে পারবেন। এই মোডে একটি জ্যুকবক্স তৈরী হয় যা একটি পাসওয়ার্ডের মাধ্যমে সুরক্ষিত। পাসওয়ার্ড রাখার অর্থ হল একমাত্র ওই সংশ্লিষ্ট পার্টির লোকজনই জ্যুকবক্সে নিজেদের পছন্দের গানের জন্য অনুরোধ পাঠাতে পাঠাতে পারবেন। এছাড়াও ব্যবহারকারীরা একটি পাসকোডের মাধ্যমে পুরো অ্যাপ্লিকেশনটাকেই লক করে রাখতে পারেন যাতে কিছু নির্বাচিত মানুষের মধ্যেই এটি সীমিত রাখা যায়।

রিমোট মোডঃ রিমোট মোডে ব্যবহারকারীরা তাদের ফোনটিকে রিমোট হিসাবে ব্যবহার করেন যা সরাসরি নিয়ন্ত্রন করে জ্যুকবক্স হিসাবে ব্যবহৃত ফোনটিকে। ব্যবহারকারীরা তাদের সাথে যুক্ত ফোনটির জ্যুকবক্সের প্লে লিস্টটিকে দেখতে পাবেন এবং সেই অনুযায়ী নিজের পছন্দমত গানটিকে বাজানোর জন্য জ্যুকবক্সে অনুরোধ পাঠানো যাবে। এরপর জ্যুকবক্স ব্যবহারকারী এইসব অনুরোধগুলি দেখতে পাবেন এবং সেই গানটি বাজাবে পারবেন।


এই অ্যাপ্লিকেশনটিতে সাইন আপ করার জন্য কোন ইমেল আইডির প্রয়োজন নেই একটি সোশ্যাল লগ ইন ই যথেষ্ঠ। অ্যাপ্লিকেশনটির ইউজার ইন্টারফেস খুবই সাধারন এবং ব্যবহার করার সময় খুব বেশী দেরি হয়না। ইতিমধ্যে প্রায় ১০০ থেকে ৫০০ জন এই অ্যাপ্লিকেশনটি তাদের মোবাইল ফোনে ইনস্টল করেছেন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ স্টোর থেকে এবং এর রেটিংও দিনে দিনে বাড়ছে। যেমন পল গ্রাহাম বলেছেন "এটি বিশাল সংখ্যক মানুষের একটি ছোট সমস্যার সমাধান অথবা কিছু সংখ্যক মানুষের একটি বিশাল সমস্যার সমাধান।" এই অ্যাপ্লিকেশনটি কতটা আকর্ষক হয়ে উঠবে সেটা সময়ই বলতে পারবে।