ওয়েবের ঘরোয়া রান্না এখন গৃহস্থের চৌকাঠে

ঘরোয়া রান্নাই তুরুপের তাস 'মিলবোট ডট কম'-এর। আপাতত বেঙ্গালুরুতেই নিজেদের ব্যবসা থিতু করতে চাইছে এর কর্মকর্তারা। মাত্র দুমাসে নিজেদের লক্ষ্যে, তারা সাফল্যও পেয়েছে যথেষ্ট।

0

মায়ের হাতের রান্নার স্বাদই আলাদা।কখনও কখনও বাবারাও হেঁসেল ঘরে ঢোকেন।সেই রান্নার স্বাদও কিন্তু হয় আঙুল চাটার মতো।বাজারে ঠিক এই তত্বটাকে সামনে আনছেন ব্যাঙ্গালুরুর মিলবোট ডট কমের কর্তারা।কারন রসুই ঘর যারা সামলাচ্ছেন তারা তো পুরুষই।হোটেল-রেঁস্তোরাতে পুরুষরাতো রাঁধেনই এ আর নতুন কথা কি?কিন্তু ঘরোয়া রান্না?পাওয়া যায় কি?প্রশ্নের সাথে সহাস্য জবাব মিলবোট কর্তাদের।পাপা কা হাত কা খানা চাখতে যোগাযোগ করুন মিলবোট ডট কমে।


নিজেদের পরিচয় নয় ব্র্যান্ডটাকেই গুরুত্ব দিতে চান কর্তারা।'এক্স' ও 'ওয়াই'। নিজেদের এভাবেই পরিচয় দিতে চান 'মিলবোট ডট কম'-এর কর্তারা। 'মিলবোট ডট কম'-এর বিশেষত্বই হল ক্রেতাদের ঘরোয়া খাবারের স্বাদ অনুভব করানো। কোনও রেস্তোরাঁ নয়, সম্পূর্ণ বাড়িতে তৈরি খাবারই পৌঁছে যাবে সাধারণের কাছে। 'এক্স' জানিয়েছেন, সারাদিন ধরে যতরকমের খাবার চাই সব রকম পদ বানাচ্ছেন এখানকার রাঁধুনিরা। অত্যন্ত 'প্যাশানেট' এই সব খাবার সম্পূর্ণ ডায়েট-ফ্রি।


মাত্র দু'মাস হল এই ওয়েবসাইটটি বাজারে এসেছে। এর মধ্যেই ২০ জন রাঁধুনি এর সঙ্গে যুক্ত হয়ে পড়েছেন। লোকের মুখে মুখে ছড়িয়ে গিয়েছে এখানকার রান্নার প্রশংসা। সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটেও নানা ভাবে প্রচার করা হয়েছে 'মিলবোট ডট কম' নিয়ে। এক্স জানিয়েছেন, ঘরের রান্নাকে এ ভাবে জনসমক্ষে আনার জন্য যথেষ্ট পরীক্ষানিরীক্ষা করতে হয়েছে তাদের। কারণ, ঘরোয়া রান্নাকে সাধারনের কাছে অনলাইনে পৌঁছে দেওয়ার রীতির চল এখনও সেভাবে এদেশে নেই। তাই সমাজে এই ব্যবস্থা কতটা গ্রহণযোগ্য হবে, সেটাও নিয়েও কিঞ্চিত ভাবনার বিষয়। কিন্তু ব্যবসায় নানাবিধ বাধা আসেই।মেনু হিট করতে তাই নানাবিধ পদ্ধতি অনুসরণ করছে মিলবোট।সাফল্যের পথে অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে তারা বলে দাবী 'এক্স' এবং 'ওয়াই।সবে এখন শুরু তাই মিলবোটের আস্বাদন চাখতে বিনিয়োগ বেশী করছেন পরিচিত পরিবার এবং বন্ধুবান্ধবরা।


'মিলবোট ডট কম'-এর সাফল্যের সবচেয়ে বড় চাবিকাঠি কী? এক্স জানিয়েছেন, ঘরের রান্নাকে মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়াই সাফল্যের সব থেকে বড় চাবিকাঠি। আপাতত বেঙ্গালুরুতেই 'মিলবোট ডট কম' নিজেদের খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন লোকের ঘরে ঘরে। মানুষের চাহিদা দেখে তবেই অন্যান্য শহরে নিজেদের রান্না পৌঁছে দেবেন 'মিলবোট ডট কম'। তাই বেঙ্গালুরুতেই জাঁকিয়ে বসে সম্পূর্ণ কর্পোরেট লাইনে নিজেদের ব্যবসার বিন্যাস চাইছেন 'এক্স' এবং 'ওয়াই'।



লেখক-অর্জুন মেহেরা

অনুলেখক-চন্দ্রশেখর চ্যাটার্জী