রতন টাটার লগ্নি পেল স্টার্টআপ সংস্থা 'আর্বানক্ল্যাপ'

0

আবারও রতন টাটা। এবার ব্যক্তিগত উদ্যোগে আর্বানক্ল্যাপে (UrbanClap) বিনিয়োগ করলেন টাটা সন্সের চেয়ারম্যান এমেরিটাস। ডিসেম্বরে এই পুঁজি পাওয়ার আগে নভেম্বরে Bessemer Venture Partners থেকে Series-B ফান্ডিংয়ে আড়াই কোটি ডলার পেয়েছিল আর্বানক্ল্যাপ। সেই ফান্ডিং রাউন্ডে অংশ নিয়েছিল আগের দুই লগ্নিকারী SAIF Partners ও Accel Partners.

২০১৪ সালে আর্বানক্ল্যাপ গড়ে তোলেন অভিরাজ ভাল, বরুণ খৈতান এবং রাঘব চন্দ্রা। Series A রাউন্ডে SAIF ও Accel Partners থেকে এক কোটি ডলার উদ্যোগ পুঁজি পায় সংস্থা। প্রাথমিক লগ্নিকারীদের মধ্যে ছিল স্ন্যাপডিলের প্রতিষ্ঠাতা কুণাল ভাল এবং রোহিত বানসালও। রতন টাটা নিজেও স্ন্যাপডিলে বিনিয়োগকারী। রতন টাটা তাদের সংস্থাকে সহায়তা করায় দুটি জিনিসকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে আর্বানক্ল্যাপ। প্রথমত, বিশাল এক বাজারের সম্ভাবনা। ভারতে সার্ভিস মার্কেটপ্লেসের সম্ভাব্য বাজার ধরা হয়েছে ৫০ বিলিয়ন বা ৫ হাজার কোটি ডলার। দ্বিতীয়ত, আর্বানক্ল্যাপ টিমের ব্যবসায়িক দক্ষতা। সংস্থার লক্ষ্য সার্ভিস প্রফেশন্যালসদের জন্য লক্ষাধিক নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি, যা জন্ম দেবে মাইক্রো-আন্ত্রেপ্রেনারদের।


সাম্প্রতিককালে ভারতীয় স্টার্টআপগুলির পাশে বারবার পুঁজি নিয়ে দাঁড়াতে দেখা গিয়েছে রতন টাটাকে। গত ২০ মাসে ১০টিরও বেশি ভারতীয় স্টার্টআপে টাকা ঢেলেছেন তিনি। অতি সম্প্রতি Tata Trusts-এর মাধ্যমে Khan Academy-র সঙ্গে বহু লক্ষ ডলারের পার্টনারশিপ গড়ে তুলেছেন রতন টাটা। পার্টনারশিপের উদ্দেশ্য হল আরও বেশি-বেশি সংখ্যক ভারতীয়র জন্য অবৈতনিক শিক্ষার ব্যবস্থা, সকলের কাছে শিক্ষাকে পৌঁছে দেওয়া। তাঁর সাম্প্রতিক বিনিয়োগের মধ্যে রয়েছে নভেম্বরে চেন্নাইয়ের বিগ ডেটা স্টার্টআপ Crayon Data এবং গ্লোবাল টেলিকম ক্যারিয়ার Sabse Technologies.

আর্বানক্ল্যাপের কাজের ধরন এমনই যে তাতে বহু লোকের কর্মসংস্থান হয়। ইংরেজিতে সার্ভিসেস মার্কেটপ্লেস। সহজ কথায় বললে একই ছাতার তলায় বিভিন্ন পরিষেবার ব্যবস্থা। যেমন প্লাম্বিং, ইলেকট্রিসিয়ানস, বিউটিশিয়ানস, যোগা ট্রেনারস। বিভিন্ন ক্ষেত্রের এই ধরনের প্রফেশন্যালসদের কাজে নেয় আর্বানক্ল্যাপ। কাস্টমারের চাহিদা অনুযায়ী, দ্রুততার সঙ্গে পরিষেবা দিয়ে থাকে। বর্তমানে রাজধানী নয়াদিল্লি-সহ মুম্বই, চেন্নাই, পুনে, বেঙ্গালুরু ও হায়দরাবাদে সক্রিয় রয়েছে আর্বানক্ল্যাপ। সংস্থার দাবি ৮০টি ক্ষেত্রে পরিষেবা দিয়ে থাকে এবং তাদের নেটওয়ার্কের মধ্যে রয়েছেন ২৫ হাজারের বেশি প্রফেশন্যালস।

ভারতে এই ধরনের পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থার দ্রুত বাড়ছে। আর্বানক্ল্যাপ ছাড়াও দৌড়ে রয়েছে Doormint, LocalOye, Zimmber, Taskbob, Housejoy, UrbanPro, TimeSaverz, Mr. Right কিংবা TheMakeoverz-র মতো সংস্থা। এ তো মাত্র কয়েকটি সংস্থার নাম দেওয়া হল। রয়েছে এ ধরনের অসংখ্য ছোট-বড় সংস্থা। যাদের কাজই হল কাস্টমারের চাহিদা মতো বাড়ি বা অফিসে লোক পাঠিয়ে প্রয়োজনীয় পরিষেবা দেওয়া।

আর্বানক্ল্যাপের মতো অনেক সংস্থাই ২০১৫ সালে ভেঞ্চার ক্যাপিটাল ইনভেস্টরদের থেকে উদ্যোগ পুঁজি পেয়েছে। এপ্রিলে Tiger Global ও Lightspeed Venture Partners থেকে ৫০ লাখ ডলার লগ্নি পেয়েছে LocalOye. অন্যদিকে Orios, Mayfield থেকে ১২ লাখ ডলার পুঁজি পেয়েছে Taskbob. জুনে Matrix Partners থেকে ৪০ লাখ ডলার লগ্নি পেয়েছে HouseJoy.

(Disclaimer: রতন টাটা ইয়োর স্টোরিরও একজন বিনিয়োগকারী)

লেখা - হর্ষমিত মালিয়া