পরিবেশ বাঁচাতে তহবিল, টিমে গেটস, মা, মুকেশ

0

সারা পৃথিবী জুড়ে জলবায়ু পরিবর্তনের সমস্যা একটি গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা। শিল্পের কারণে বিশ্বের উষ্ণায়ণ হচ্ছে। ফলে সেটা রুখবার দায়ও থেকে যায় শিল্পোদ্যোগীদের। সেই দায়িত্ব পালন করতে কোমর বেঁধে নামছেন ধনকুবেরদের একটি গোষ্ঠী। এই কাজের জন্যে তৈরি হয়েছে তহবিলও। একত্রিতভাবে এগিয়ে এসেছেন বিল গেটস, জেফ বিজোস, জ্যাক মা, মুকেশ আম্বানির মতো ডাকসাইটে ধনকুবের। গড়া হয়েছে ব্রেক-থ্রু এনার্জি ভেঞ্চার ফান্ড বা বিইভি। একশ কোটি ডলারের এই তহবিল গড়ে পৃথিবীব্যাপী জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ হবে বলে বিইভি সূত্রে জানা গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, জলবায়ু পরিবর্তন ছাড়াও গ্লোবাল ওয়ার্মিং প্রতিরোধেও কাজ করবে এই সংস্থা। ব্রেক থ্রু এনার্জি ভেঞ্চারের ২০জন সদস্যের তালিকায় সকলেই ধনকুবের।

মাইক্রোসফটের সহ-প্রতিষ্ঠাতা বিইভি ফান্ডের চেয়ারম্যান হিসাবে মনোনীত হয়েছেন। বিল গেটস বলছেন, এই ফান্ড গড়ার প্রধান উদ্দেশ্য হল নতুন জমানার প্ৰযুক্তিগুলিকে বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার করার পাশাপাশি গ্রীন হাউস গ্যাসের নিঃসরণ কমিয়ে আনা।

প্রসঙ্গত, এই কোয়ালিশনে একত্রিতভাবে কাজ করছে বিশ্বের ২০টি দেশও। এছাড়া, পাঁচ বছরে ক্লিন এনার্জি খাতে গবেষণায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন তাদের বরাদ্দ দ্বিগুণ করেছে। গ্রীন হাউস গ্যাসের নিঃসরণ হ্রাসে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তন এবং আবহাওয়ার যে ক্ষতি হচ্ছে তা তো স্পষ্ট। যেমন, ২০১৬ সালের জুলাই মাসটি ছিল উষ্ণতম মাস। ১৮৮০ সাল থেকে এপর্যন্ত এত অস্বাভাবিক গরম কখনোই পড়েনি। তবে এযাবৎ কার্বন নিঃসরণই উষ্ণায়নের কারণ অথবা সমুদ্রের জলস্তর বৃযদ্ধির কারণ হিসাবে সর্বাধিক আলোচিত। এর জেরে ভূমিকম্প কিংবা সুনামির মতো বিপর্যয়গুলিও এখন ঘটতে শুরু করেছে। ফলে প্রযুক্তির হাত ধরেই বিশ্বকে বাঁচানোর দায় নিচ্ছেন ধনকুবেরদের টিম। দেশের সীমা অতিক্রম করে বিশ্ব মানবতা যেন একত্রিত।