মেয়ের বিয়ের দান সামগ্রী, গৃহহীনদের ৯০টি বাড়ি

1

মানুষ যে এখনও মানুষের জন্যে ভাবেন তারই একটি অভিনব নমুনা পাওয়া গেল। মহারাষ্ট্রের এক ধনী ব্যবসায়ী তাঁর মেয়ের বিয়ের বাজেটে কাটছাঁট করে সেই টাকায় ৯০টি বাড়ি তৈরি করেছেন। বাড়িগুলি উপহার হিসাবে দান করেছেন দরিদ্র গৃহহীন মানুষকে। ভদ্রলোকের নাম মনোজ মুনট। তিনি মহারাষ্ট্রের ঔরঙ্গাবাদে্র ব্যবসায়ী।

মনোজের এই কাজ থেকে শিক্ষা নিতে পারেন এদেশের তথাকথিত জনদরদী রাজনীতিকরা। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা নীতিন গড়কড়ি গত মাসেই রীতিমতো সমারোহ করে কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন। বিমুদ্রাকরণের জেরে সারা দেশ যখন আর্থিক সঙ্কটে হাঁসফাঁস করছে, সেই পরিস্থিতিতেও বেঙ্গালুরুতে মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে কুরুচিকরভাবে ঐশ্বর্যের প্রদর্শনী জাহির করেছেন কর্নাটকের প্রাক্তন মন্ত্রী জনার্দন রেড্ডিও। দুটি ঘটনাই ছিছিক্কারের।

এই পরিস্থিতিতে মহারাষ্ট্রের ব্যবসায়ী মনোজ কিন্তু দৃষ্টান্ত গড়লেন। মনোজের নিজের নির্মাণকারী সংস্থা রয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, তাঁর মেয়ে শ্রেয়ার ইচ্ছাতেই তিনি এ কাজে উদ্বুদ্ধ হয়েছেন। আর শ্রেয়াও নিজের বিয়েটা সেরেছেন আড়ম্বরহীনভাবে।

৯০টি বাড়ির ভিতর ৪০টি বাড়ির চাবিই ইতিমধ্যে গৃহহীন ওই দরিদ্র মানুষগুলির হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। মনোজ জানিয়েছেন, এই সেবামূলক কাজটি করতে তাঁকে প্রেরণা জুগিয়েছেন স্থানীয় এক বিধায়ক।

নতুন বাড়ি পাওয়ার পরে আপ্লুত প্রাপকরাও। এঁদেরই একজন হলেন সাহেব আলি শেখ। তিনি বলেছেন, এলাকার চারটে বাড়িতে পরিচারক হিসাবে কাজ করে কোনওমতে দিন চালাই। ওই সামান্য আয়ে কীভাবে প্রতি মাসের ঘরভাড়াটুকু জোগাড় করে উঠতে পারব, তা নিয়ে দুশ্চিন্তার দিন এতদিনে অভাবনীয়ভাবে শেষ হল। যিনি নিজের বিয়ে উপলক্ষে বাবার এই মহৎ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন – এ প্রসঙ্গে নববধূ সেই শ্রেয়া বলেছেন, আমার বিয়ে উপলক্ষে কিছু দরিদ্র মানুষের পাশে থাকতে পেরে নিজেকেই ধন্য মনে করছি।