এয়ারোস্পেসে ক্রমশ নিজের স্পেস পাকা করছে কর্নাটক

0

‘সেই ১৯৪০ সাল থেকে, মেক ইন ইন্ডিয়া জপে আসছি আমরা। HAL গত ৭৫ বছরে ১৫টা এয়ারক্রাফট আর হেলিকপ্টার তৈরি করেছে’। ইনভেস্ট কর্নাটকা ২০১৬য় এসে বললেন HAL এর বেঙ্গালুরু কপ্লেক্সের সিইও আর কাবেরী রঙ্গনাথন। এয়ারোস্পেস রিসার্চ, ডেভেলপমেন্ট এবং ম্যানুফেকচারের জন্য অনিল আম্বানির ঘোষণা আসার সঙ্গে সঙ্গে বেলগাম আর বেঙ্গালুরুতে এয়ারোস্পেস এবং প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে সেজ ঘোষণা হয়ে যায়। প্রত্যেকেই রাজ্যে এই সেক্টরটির উন্নয়ন নিয়ে আত্মবিশ্বাসী ছিলেন।

টয়োটা কিরলোসকার ভিসি এবং সিআইআই চেয়ারম্যান শেখর বিশ্বনাথন বিশ্বাস করেন, কর্নাটকে এয়ারোস্পেস মেনুফেকচারিংয়ে বৃদ্ধির কারণ এখানকার মেধা এবং অসীম জ্ঞান। এই ক্ষেত্রের উন্নতির জন্য কর্নাটকে যথেষ্ট মেধা এবং জনশক্তি রয়েছে। শেখরের সংযোজন, ‘দেশের চেয়েও কর্নাটকের অর্থনীতি দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। রাজ্যের নিজের ছাড়াও কর্নাটকের সম্পদের অভাব নেই। সবকিছুকে স্বাগত জানাতে কর্নাটক দুহাত বাড়িয়ে থাকে। ফলে এখানে একটা বড় সেটআপ গড়া আমাদের পক্ষে সহজ হয়েছিল’। বললেন, মাহিন্দ্রা ডিফেন্স অ্যান্ড এয়ারোস্পেসের গ্রুপ চেয়ারম্যান এসপি শুক্লা। আরও বলেন, ভারতে যন্ত্রপাতি তৈরির প্রয়োজনীয়তা যত বাড়ছে, বেসরকারি হাতে উৎপাদনের ভার ছাড়া দরকার হয়ে পড়ে। এই সময়ে মাহিন্দ্রা রাজ্যে ৬০০০ কর্মসংস্থান তৈরি করে। এয়ারবাস ইন্ডিয়ার প্রেসিডেন্ট শ্রীনিবাসন দ্বারকানাথ জানান, প্রায় এক যুগ ধরে সিভিল অ্যাভিয়েশনে HAL এর সঙ্গে কাজ করছে এয়ারবাস। তাঁর সংযোজন, আগামী কয়েক বছরে ১৩০০ এয়ারক্রাফ্টের প্রয়োজন পড়বে।কর্নাটক ডিভিশন সেই লক্ষ্যেই কাজ করছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, কর্নাটক ২০ বিলিয়ন ডলারের এয়ারোস্পেস ইন্ডাস্ট্রি গড়ার ক্ষমতা রাখে।

এয়ারোস্পেস এবং প্রতিরক্ষা সেক্টরে কর্নাটকের বৃদ্ধি নিয়ে বক্তারা যেমন আত্মবিশ্বাসী তেমনি, শহরের য়ানজট এবং পরিকাঠামো নিয়েও নিজেদের দুশ্চিন্তার কথা জানিয়েছেন তাঁরা। রাজ্য এবং কেন্দ্র দুপক্ষকেই এদিকে নজর দিতে হবে যাতে উন্নয়নের পথে যানজট বাধা হতে না পারে।

লেখক-সিন্ধু কাশ্যপ

অনুবাদ-তিয়াসা বিশ্বাস