ভারতে অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ের দরজা খুলে গেছে, সিরিজ ফান্ডিং থেকে Razorpay তুললো ৯ মিলিয়ন ডলার

0

অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সংস্থা Razorpay তাদের টাইগার গ্লোবাল ও ম্যাট্রিক্স পার্টনারস এর সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে ৯ মিলিয়ন ডলারের সিরিজ A ফান্ডিং এর কথা ঘোষণা করেছে। এই স্টার্ট আপ টি ক্রেতাদের কাছ থেকে ক্রেডিট ও ডেবিট কার্ড, নেট ব্যাঙ্কিং ও জনপ্রিয় ডিজিটাল ওয়ালেটগুলির মাধ্যমে ইন্টারনেট পেমেন্ট গ্রহণ ও যাচাই করে। এঁরা বিক্রেতা ওয়েবসাইট, বিভিন্ন প্রাপক প্রতিষ্ঠান, ব্যাঙ্ক ও অন্যান্য পেমেন্ট নেটওয়ার্ক গুলির মধ্যে একটি নিরাপদ লিঙ্ক তৈরির মাধ্যমে তাঁদের এই পরিষেবা দিয়ে থাকেন।

Razorpay আমাদের আরো জানিয়েছে যে Matrix Partners এর থেকে প্রাপ্ত আড়াই মিলিয়ন ডলারের সীড বন্ধ করে দেওয়ার ঠিক এক সপ্তাহের মধ্যেই তাঁদের এই সিরিজ A ফান্ডিং এলো। YCombinator এবং একাধিক অ্যাঞ্জেল বিনিয়োগকারী যাঁদের মধ্যে রয়েছেন কুনাল ভাল ও রোহিত বনশাল (Snapdeal এর প্রতিষ্ঠাতা), পুনিত সোনি (Flipkart এর CPO), অভয় সিঙ্ঘল, অমিত গুপ্তা ও নভীন তেওয়ারি (Inmobi এর প্রতিষ্ঠাতা), কুনাল শাহ এবং সন্দীপ ট্যান্ডন (Freecharge এর প্রতিষ্ঠাতা), বিল গাজদা (Visa- এর সিনিয়ার ভাইস প্রেসিডেন্ট ও গ্লোবাল হেড অফ ইনোভেশান), জেফ হিউবার (GoogleX এর সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট), রাম শ্রীরাম (গুগলের বোর্ড মেম্বার ও প্রথম দিকের বিনিয়োগকারী), জাস্টিন কান (YCombinator পার্টনার ও Twitch এর প্রতিষ্ঠাতা) সহ মোট ৩৩ টি অ্যাঞ্জেল বিনিয়োগ সংস্থা যারা এই সীড রাউন্ডে অংশগ্রহণ করছেন। এর ফলে তাঁদের মোট তহবিলের পরিমাণ গিয়ে দাঁড়ালো ১১.৫ মিলিয়ন ডলার।

তাহাদের কথা

Razorpay এর প্রতিষ্ঠা করেন আইআইটি রুরকির দুই প্রাক্তনি হর্ষিল মাথুর ও শশাঙ্ক কুমার। ২০১৪ সালে তাঁরা নিজেদের স্টার্টআপ শুরু করার স্বপ্ন মনের মধ্যে নিয়ে একটি পার্শ্ব প্রোজেক্টে কাজ করছিলেন, এবং সেই সময়তেই তাঁদের পেমেন্ট গেটওয়ে অনবোর্ডিং প্রসেস সংক্রান্ত নানা ঝক্কি সামলাতে হয়। এর মধ্যে ছিল প্রচুর লেখাপড়ার কাজ, আমলাতন্ত্রের লাল ফিতের ফাঁস ও অজস্র অন্যান্য সমস্যা। এইসব করতে গিয়ে তাঁরা বুঝতে পারেন যে স্ট্রাইপ এর মত মার্কিনী পেমেন্ট সিস্টেম ভারতে পেমেন্ট গ্রহনে ইচ্ছুক সংস্থাগুলির পক্ষে খুব একটা কার্যকরী হবেনা। ফলে তাঁরা Razorpay এর মত একটি মসৃণ লেনদেন পদ্ধতি চালু করলেন।

হর্ষিল মাথুর ও শশাঙ্ক কুমার
হর্ষিল মাথুর ও শশাঙ্ক কুমার

Razorpay এর বাণিজ্যিক লক্ষ্য হল ক্ষুদ্র ব্যবসা, শুরুয়াতি এবং অন্যান্য চালু SME সংস্থা যেমন স্কুল, কলেজ ও প্রশিক্ষন কেন্দ্রগুলিতে স্বল্পমূল্যে সুনিশ্চিত অনলাইন লেনদেনের পরিষেবা দান করা। ২০১৫ সালের মার্চ মাসে তাঁরা ঘোষণা করেন যে তাঁরা YCombinator এর স্বীকৃতি লাভ করেছেন এবং সিলিকন ভ্যালির বিনিয়োগকারী ও পরামর্শদাতাদের কাছ থেকে ব্যবসায় গতিবেগ আনার জন্য তিন মাসের বিশেষ সহায়তা ও মেন্টরিং এর মধ্যে দিয়ে যাবেন। হর্ষিল ইয়োরস্টোরি কে বললেন যে কিভাবে YCombinator এর অভিজ্ঞতা তাঁদের বেড়ে উঠতে সাহায্য করেছে এবং তাঁদের সীড বিনিয়োগে আবেদনের পদ্ধতিগত বিষয়ে ধারণা আগের চেয়ে অনেক বেশী স্বচ্ছ হয়েছে।

এখনো পর্যন্ত স্টার্টআপটি বেশ ভালো অগ্রগতি করেছে এবং ইতিমধ্যেই তাদের ক্রেতা সংখ্যা ১৮০০ ছাড়িয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে, RoadRunnr, Lookup, Gozefo, Innerchef, Teen Patti Gold, LocalOye, UrbanPiper, Instafeez, Neostencil, Chai Point এবং Sattviko এর মত সংস্থা গুলি। এইসব বাণিজ্যিক ক্রেতাদের এঁরা দিচ্ছেন সম্পূর্ণ অনলাইন অনবোর্ডিং পরিষেবা লাভের সুযোগ ও তার সঙ্গে মোবাইল পেমেন্টের সহজ জন্য অ্যান্ড্রয়েড ও iOS SDK ইন্টিগ্রেসানের সুবিধা। আন্তর্জাতিক পেমেন্ট এর সুবিধা, পঞ্চাশটিরও বেশী ব্যাঙ্ক, জনপ্রিয় ডিজিটাল ওয়ালেট এবং ২৪ X ৭ সাপোর্ট টিম সহ আগামী কয়েক বছরের মধ্যেই ভারতে অনলাইন পেমেন্টের একমাত্র নাম হয়ে উঠতে চাইছে Razorpay সংস্থাটি। HARSHIL MATHUR

সেক্টর ওভারভিউ

ভারতে অনলাইন পেমেন্ট এর বাজার অত্যন্ত দ্রুত বৃদ্ধি লাভ করছে যার পরিমাণ হর্ষিল এর হিসাব অনুযায়ী গত এক বছরে প্রায় ৫০ শতাংশ হবে। ভারতে দিন দিন স্টার্টআপ এর পরিমাণ যত বাড়ছে, তাদের পেমেন্ট গেটওয়ের চাহিদাও ক্রমশ বেড়ে চলেছে। তাঁর মতে ভারতে এই সেক্টরে বাজারের পরিমাপ প্রায় ৫৪ বিলিয়ন ডলার হবে। হর্ষিল এর মতে,

আমরা মনে করি যে ভারতে অন্যান্য ই-কমার্স ও এম-কমার্স ইকোসিস্টেমের মত সমান ভাবে অনলাইন পেমেন্ট পরিষেবা গড়ে উঠতে পারেনি। আর ঠিক সেই কারণেই আজ আমাদের সহায়তায় বিভিন্ন বৃহৎ বিনিয়োগ সংস্থাগুলি, ইকমার্স অন্ত্রেপ্রিনিওর-রা এবং পেমেন্ট ইকোসিস্টেমের বড় বড় খেলোয়াররা এগিয়ে আসছেন। ভারতে সত্যিই প্রযুক্তি-নির্ভর আর্থিক লেনদেন পরিষেবার বিশেষ প্রয়োজন ছিল। 

 বিশ্বে পেমেন্ট গেটওয়ের শেষ নাম Stripe যাদের ঝুলিতে ২৮০ মিলিয়ন ডলার এর সঙ্গে সঙ্গে রয়েছে দু দু’টি অধিগ্রহণ। বর্তমানে, Razorpay সংস্থা টি PayU ও Citrus Pay এর মত সংস্থা গুলির সঙ্গে সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমে পড়েছে। এই খেলার ময়দানে আরেকটি চেনা নাম Instamojo, যদিও তাদের মূল লক্ষ্য ব্যক্তিগত লেনদেনে বাজার।

Matrix Partners India সংস্থার কর্ণধার বিক্রম বৈদ্যনাথন এই সেক্টর এর প্রসঙ্গে বললেন, “ডিজিটাল পেমেন্ট এর প্রচুর সুযোগ রয়েছে আর ভারতে এই শিল্প এখনো একেবারেই টাটকা। লেনদেনের ক্ষেত্রে সাফল্যের হার এখনো যথেষ্ট আশাব্যঞ্জক নয় আর ছোট ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে অনলাইন পেমেন্ট গ্রহণ করা কষ্ট সাধ্য ব্যাপার। আর সে কারনেই হর্ষিল ও শশাঙ্ক এর প্রযুক্তি নির্ভর দূরদৃষ্টির প্রতি আমাদের আস্থা রয়েছে। আমরা ভারতে ফিন-টেক এর সাফাল্যের ব্যাপারে অত্যন্ত আশাবাদী আর এই জাতীয় স্পেসে একাধিক বাজি ধরার জন্য প্রস্তুত।”

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা

Razorpay এর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা হল ভারতের অনলাইন লেনদেন পরিষেবা কে সহজ ব্যবহার্য করে তোলা ও ডেভেলপার ফ্রেন্ডলি পেমেন্ট গেটওয়ে নির্মাণ করা। এই মুহূর্তে তাদের রয়েছে ১৫ জনের একটি টিম এবং তারা তাদের টেক টিম কে আরও বড় করতে উৎসাহী। আর তাদের এই সাম্প্রতিক পুঁজি আসার ফলে তাদের লক্ষ্য এখন আরও বেশী করে ব্যাঙ্ক গুলিকে দলে টানা এবং সংস্থাটির কাঠামো ও ফিচারের দিক থেকে নিজেদের উন্নততর করে তোলা। শশাঙ্ক আরও বললেন,

আমরা এমন একটি পেমেন্ট পরিষেবার কাঠামো নির্মাণ করছি যা ভারতের ভবিষ্যৎ ই-কমার্স গ্রোথ কে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করবে। আমাদের প্যাটেন্ট পেন্ডিং প্রযুক্তি লেনদেনের সাফল্যের হার কে বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করবে আর মাত্র কয়েক লাইন কোড যোগ করে দিলেই বিশেষত মোবাইলে পেমেন্টের ক্ষেত্রে চেকআউট টাইম আরও দ্রুতশালী হয়ে উঠবে। ফলে সব মিলিয়ে এই ফান্ডিং আমাদের কোম্পানির বৃদ্ধির ক্ষেত্রে নিশ্চিত ভাবেই বিশেষ সহায়তা করবে।  

বর্তমানে Razorpay কেবলমাত্র ভারতীয় বাজার নিয়ে উৎসাহী হলেও ভবিষ্যতে তারা দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার বাজার দখলের ক্ষেত্রেও তারা যথেষ্ট উৎসাহী। এ ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে হর্ষিল ইঙ্গিতপূর্ণ ভাবে বলেন, “আরও অন্যান্য যে সমস্ত উন্নয়শীল বাজার এই ধরণের সমস্যায় ভুগছে তাদের জন্যও আমাদের এই প্রযুক্তি অনুকরণ যোগ্য সমাধান হিসাবে স্থান করে নিতে পারে।”

ওয়েবসাইট- Razorpay