কলকাতা Infocon দিতে চাইল নিরাপত্তার সুলুক

0

তথ্য এখন হাতের মুঠোয়। যোগাযোগ ব্যবস্থার ক্ষেত্রে ঘটে গিয়েছে দুরন্ত বিপ্লব। পাশাপাশি দুনিয়া জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে নতুন ধরনের অপরাধ ও অপরাধী। সাইবার ক্রাইম। এই অপরাধের সঙ্গে যুক্ত অপরাধী বা সাইবার ক্রিমিনালরা দুনিয়ার নানান প্রান্তে যে যার ডেরায় বসে অপরাধের মতলব আঁটছে। ফলে কখনও চুরি যাচ্ছে আপনার সংস্থার গোপন ও গুরুত্বপূর্ণ তথ্যসম্বলিত নথি বা নকশা। স্বভাবতই এর জেরে কোটি কোটি ডলারের ক্ষতির মুখে পড়ছেন আপনি।

আবার কখনও আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি হ্যাক হয়ে যাচ্ছে। ফাঁস হয়ে যাচ্ছে ব্যক্তিগত তথ্য। সাইবার ক্রিমিনালরা এরপর অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ব্ল্যাকমেল করছে। আক্রান্ত মানুষটি পড়ছেন ঘোর বিপদে। বহুক্ষেত্রে আক্রান্ত হচ্ছে স্কুল পড়ুয়ারাও। এ কারণে অচেনা কোনও ব্যক্তির পাঠানো ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট চট করে গ্রহণ করতে সাত পাঁচ ভাবতে হচ্ছে আজকাল।

এই বিপদ সম্পর্কে অবহিত করতে সম্প্রতি কলকাতায় হয়ে গেল আন্তর্জাতিক মানের একটি সম্মেলন। ইনফোকন ২০১৬ শীর্ষক এই সম্মেলনটি হয়ে গেল সল্টলেকের সিআইআই-সুরেশ নেওটিয়া সেন্টার ফর এক্সেলেন্স-এ। এখানে উপস্থিত ছিলেন পেশাদার প্রযুক্তিবিদরা, বিভিন্ন সংস্থার পরিচালক এবং কলকাতা পুলিশের শীর্ষকর্তারা।

বিশেষজ্ঞরা প্রথমত অবহিত করলেন এ ধরনের অপরাধের চরিত্র সম্পর্কে। দ্বিতীয়ত, তাঁরা জানালেন কীভাবে বা কী ধরনের সতর্কতা অবলম্বন করলে আপনি কিছুটা নিরাপদ।

এর আগে বাংলাদেশ ও লন্ডনে উদ্যোক্তাদের তরফে এ ধরনের সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছি্ল। দুটি ক্ষেত্রেই ভাল সাড়া পাওয়া গিয়েছে। কলকাতার সম্মেলনেও আশাপ্রদ সাড়া মিলেছে।

বক্তাদের মারফত জানা গেল, সাইবার ক্রিমিনালরা সাধারণত উচ্চশিক্ষিত। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ওঁরা অঙ্কে কিংবা ফিজিক্সে পিএইচডি। পরে বিপথগামী হয়ে চটজলদি বেশি টাকা রোজগারের লক্ষ্যে সাইবার ক্রাইমকে পেশা হিসাবে বেছে নিয়েছেন। এঁদের নিয়েই জেরবার এখন বিভিন্ন বাণিজ্যিক সংস্থা। কেননা এঁরা সংস্থার গোপন তথ্য চুরি করে তা চড়া দামে বেচে দিচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ব্যবসা-বাণিজ্য।

সিআইআই-সুরেশ নেওটিয়া সেন্টার ফর এক্সেলে্ন্সে বক্তাদের মধ্যে ছিলেন ইনফোকনের চেয়ারম্যান সুশোভন মুখার্জি, ন্যাসকম-এর (পূর্ব) রিজিওনাল প্রধান নিরুপম চৌধুরী, কম্পাসের হেমন্ত ছাবারিয়া, টিসিজি ডিজিট্যালের জয়দীপ ভট্টাচার্য, আইপিএস অফিসার এস ডব্লু রাজা প্রমুখ।

সাইবার ক্রাইম রুখতে দিনভরের সম্মেলনে আলোচিত হয়েছে বহু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তার ভিতর ছিল সেফ ব্রাউজিং স্ট্র্যাটেজিস, লার্জ এন্টারপ্রাইজ স্ট্র্যাটেজি অফ ইনফরমেশন সিকিওরিটি হ্যান্ডেলিং, গ্রাউন্ড রিয়্যালিটি ইন সাইবার ক্রাইম কিংবা অ্যাডভান্স সিকিওরিটি থ্রেট অ্যানালিসিসের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি।