অনলাইন হীরের গয়না কেনার ঠিকানা Addimon.com

0

হীরে উচ্চবিত্তের সম্পদ, এই প্রাচীন ধারণার দ্রুত বদল ঘটেছে গত এক দশকে। ব্র্যান্ডেড হীরের গয়না আসা ও তার প্রচারের সঙ্গে সঙ্গেই মধ্যবিত্ত ক্রমশ সাহসী হয়ে হাত বাড়িয়েছে হীরের দিকে, প্রসারিত হয়েছে হীরের গয়নার বাজার। হীরে ও অন্যান্য দামী রত্নের বর্তমান বাজার ভারতে ৪০ হাজার কোটি ছাড়িয়েছে। এদিকে অনলাইন কেনাকাটায় অভ্যস্ত প্রজন্ম অনলাইনেই কিনে ফেলতে চাইছে বাড়ির পাপোস থেকে হীরের গয়না সবই। আর ঠিক এই সুযোগটাকেই কাজে লাগিয়ে বাজারে উঠে এসেছে Addimon.com, শুরু ২০১৩ এর সেপ্টেম্বরে।

অন্যান্য অনেক উদ্যোগপতির মতোই নিজের জীবনের সমস্যার অভিজ্ঞতা থেকেই ব্যবসার সম্ভাবনার কথা মাথায় আসে Addimon.com এর প্রতিষ্ঠাতা দম্পতি সুমিত সুখিজা ও প্রিয়াঙ্কা হনসের। ২০০৮ সালে বিয়ে হয় সুমিত প্রিয়াঙ্কার। বিয়ের সময় গয়না কিনতে গিয়ে হিমসিম খেতে হয় সুমিতকে। বড় দোকানে গিয়ে গয়না কেনা মানেই বিরাট খরচের ধাক্কা, এদিকে স্থানীয় দোকানের গয়নার ডিজাইন বা মান কোনোটাই পছন্দ হওয়ার মতো নয়, আর তখনই বুঝতে পারি ভারতে গয়নার বাজার সাধারণ ক্রেতাদের জন্য একেবারেই প্রস্তুত নয়, বললেন সুমিত। ঘটনাক্রমে সুমিতের শ্বশুর ছিলেন গয়না ব্যবসায়ী ও স্ত্রী প্রিয়াঙ্কা শখে গয়নার ডিজাইন করতেন। ফলে শুরু করাটা কঠিন ছিল না।

ব্যবসা শুরুর আগে আইআইটি, দিল্লির স্নাতক সুমিত কাজ করতেন আইসিআইসিআই ব্যাঙ্কে, প্রিয়াঙ্কা গয়না ডিজাইনারের পাশাপাশি একজন ডেন্টিস্ট।

কম দামে উন্নতমানের গয়না ক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দেওয়াই লক্ষ্য সুমিত-প্রিয়াঙ্কার। অ্যাডিমন সারা ভারতের হাজারেরও বেশি পাইকারের কাছ থেকে হীরে সংগ্রহ করে, এবং তাদের ওয়েবসাইটে রয়েছে ২৫,০০০ এরও বেশি মণি-রত্নর সম্ভার। কোম্পানির দাবি সবথেকে কম দামে এই গয়না বিক্রি করে তারা। “আমরা একসঙ্গে অনেক রত্ন কিনে রাখি না, অর্ডার পেলেই কিনি, এর ফলে সংগ্রহ করে রাখার টাকা বেঁচে যায় ও ক্রেতাদের আমরা সস্তায় আমাদের পণ্য বিক্রি করতে পারি। দামী রত্নগুলির ক্ষেত্রে ভারতের সবথেকে বড় বিক্রতাদের সঙ্গে আমাদের চুক্তি রয়েছে। গয়নার ক্ষেত্রে ২০% গয়না আমরা সংগ্রহ করে রাখি, যাতে অর্ডার পেলেই তা সরবরাহ করা যায়”, বললেন সুমিত।

বাজারে পৌঁছতে অনলাইন মার্কেটিং যেমন ইমেলার, গুগল, ফেসবুক বিজ্ঞাপন, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইসেশন ইত্যাদিতে জোর দেয় অ্যাডিমন। কেনার ৩০ দিনের মধ্যে কোনো বাড়তি টাকা ছাড়াই পরিবর্তনের সুযোগও দেয় এই ওয়েবসাইট। বিক্রি ও প্রচার বাড়ানোর জন্য অ্যাডিমনের একটি উদ্যোগ Gang of Pink। মহিলাদের নিজেদের সুযোগ সুবিধা মতো ব্যবসার সুযোগ দেয় Gang of Pink। “কোনও মার্কেটিং এজেন্সিকে না দিয়ে মহিলাদের স্বশক্তিকরণে এই সুযোগটা ব্যবহারের উদ্দেশ্যেই শুরু Gang of Pink”, বললেন প্রিয়াঙ্কা। এছাড়াও অ্যাডিমন তাদের প্রতিটি বিক্রি থেকে ১০০ টাকা প্রতিবন্ধী শিশুদের নিয়ে কাজ করা একটি এনজিওকে দেয়।

নিজেদের ক্যাটালগের ডিজাইন ছাড়াও কাস্টমাইসড ডিজাইনও সরবরাহ করে অ্যাডিমন। কোম্পানির দাবি, অন্যান্য অনলাইন স্টোর থেকে ১৫% ও অফলাইন স্টোর থেকে ৪০% কম দামে তারা গয়না বিক্রি করে। তথ্যপ্রযুক্তি ও মার্কেটিং আউটসোর্স করে নিজেদের খরচ কমায় অ্যাডিমন, যার সুবিধা পান ক্রেতারা। এছাড়াও গয়নার সোনার ক্ষেত্রে ক্রেতা নিজের ইচ্ছে মতো ১৪ বা ১৮ ক্যারাটের অর্ডার দিতে পারেন। সারাজীবনের জন্য বিক্রি পরবর্তী পরিষেবা পাওয়া যায় অ্যাডিমনে।

গত তিনবছরের যাত্রা পথে ওঠা নামা এসেছে, তবে এখনও অবধি ভালোই ব্যবসা হচ্ছে ও আগামী দিনে তা আরও বড় হবে বলেই আসা সুমিত প্রিয়াঙ্কার।