ব্যবসা বাড়ছে লাফিয়ে, ফের টাকা তুলবে Zomato

0

অনলাইন রেস্টুরেন্ট পরিষেবা ও অর্ডার দিলেও পছন্দের খাবার-দাবার পৌঁছে দিতে পারে জোমাটো। গত এক বছর আগেই জোমাটো বিশ্বজুড়ে ব্যাপকভাবে সম্প্রসারণের পরিকল্পনা থেকে হাত গুটিয়ে নিয়েছিল। এরপর নতুন করে গুরগাঁওয়ের সংস্থা জোমাটো ফের বাজারে আনছে সংস্থার আর একটি অভিনব পরিকল্পনা। ক্লাউড কিচেন।

এই প্রকল্প বাস্তবায়িত করতে বাজার থেকে নতুন করে মূলধন তোলা হবে। ইতিমধ্যে সংস্থার ব্যবসা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। তাছাড়া, গত ১২ মাসে জোমাটোর বার্ন রেটও কমানো হয়েছে উল্লেখযোগ্য হারেই।

সূত্রের খবর, নতুন এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করতে গ্লোবাল ইনভেস্টমেন্ট ব্যাঙ্ক মর্গান স্ট্যানলির সঙ্গে জোমোটো কাজ করছে। তবে কী পরিমাণ অর্থ তোলা হবে, তা এখনও ঠিক করা হয়নি।

২০১৫ সালের সে্প্টেম্বরে জোমাটো বাজার থেকে মোট ৬০ মিলিয়ন ডলার সংগ্রহ করেছিল সংস্থার সম্প্রসারণের জন্যে। এবার তার থেকে্ও বেশি টাকা তোলা হবে। জোমাটোর প্রধান লক্ষ্য হল ব্যাঙ্গালুরুর প্রতিযোগী সংস্থা সুগিকে খাদ্য সরবরাহের ব্যবসায় পিছনে ফেলে দেওয়া।

এ ব্যাপারে জোমাটোর সিইও দীপিন্দর গোয়েল বলেছেন, সংস্থার বাড়বৃদ্ধির জন্যে আমরা আবারও টাকা তুলব। তবে এখনই পুঁজি না পেলেও আমরা মরছি না। তবে এ বিষয়ে বিস্তারিতভাবে কিছু জানাতে চাননি দীপিন্দর। যদিও তিনি বলেছেন, গত ২-৩ মাস ধরে বিনিয়োগের ছবিটা ভালো। বি্নিয়োগকারীরা ক্রমশ আগ্রহী হয়ে উঠছেন। আগামী বছরের মার্চ কিংবা এপ্রিল নাগাদ আমরা টাকা তোলার কাজ আরম্ভ করছি।

জোমাটোর ওপর দিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই খানিক ঝড়ঝাপটা চলেছে। যদিও টিমাশেক ও ভিওয়াই ক্যাপিটালের বিনিয়োগের পরে জোমাটোর দর বেড়ে দাঁড়িয়েছিল ১ বিলিয়ন ডলারে। তবে এরপর থেকেই বিনিয়োগের ক্ষেত্রে জোমাটো আর তেমন সুবিধা করতে পারছে না। এদিকে জোমাটোর দর নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে এইচএসবিসি-এর রিপোর্টে।

জোমাটো ও তার সবচেয়ে বড় শেয়ার হোল্ডার সংস্থা ইনফো এজ এইচএসবিসি-এর ভ্যালুয়েশন রিপোর্টটিকে পাত্তা দিতেও নারাজ। জোমাটোতে ৪৭ শতাংশ শেয়ার বরাদ্দ আছে ইনফো এজের।

গোয়েল আশাপ্রকাশ করে বলেছেন, গত ১২ মাসে জোমাটোর বেশ ভালোরকম বাড়বৃদ্ধি ঘটেছে। আগামী সময়েও সুন্দরভাবে তা বাড়বে। যেমন, ২০১৫ সালের তুলনায় সংস্থার বার্ন রেট কমেছে। সেই সময় সংস্থার বার্ন রেট ছিল ৯ মিলিয়ন ডলার। এখন তা কমে মাসিক হিসাবে দাঁড়িয়েছে ১ মিলিয়ন ডলারে। উল্লেখ্য, চলতি বছরের মে মাসে জোমাটোর অপারেটিং বার্ন রেটের পরিমাণ ছিল ১.৬ থেকে ১.৭ মিলিয়ন ডলার।

তবে জোমাটোর সাম্প্রতিক বাড়বৃদ্ধি নিয়ে সন্তোষপ্রকাশ করেছেন গোয়েল। তিনি জানিয়ে্ছেন, ব্যবসা থেকে সংস্থার রাজস্ব আয় প্রায় তিন গুণ বেড়েছে। ২০১৪ সাল থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে ২৩টি দেশে ব্যবসা সম্প্রসারিত করেছে জোমাটো। বর্তমানে প্রতি মাসে রাজস্ব খাতে্ জোমাটো ভারতীয় টাকায় ২৭ কোটি টাকা আয় করছে।