মিডিয়া-সিনেমা-কবাডি, বই লিখলেন রনি স্ক্রুওয়ালা

0

২৪ বছর কোনও সংস্থা চালানোর পরে বেরিয়ে আসা। অধিকাংশ ব্যক্তি এরপর কিছুটা বিশ্রাম নেওয়ার কথা ভাববেন। কিন্তু রনি স্ক্রুওয়ালা ঠিক এর উল্টোটা। আসলে মানুষটা যে কাজ ছাড়া কিছু বোঝেনই না। নিজের হাতে তৈরি মিডিয়া কোম্পানি UTV থেকে ২০১৪ সালে বেরিয়ে আসেন রনি। এরপর আরও ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন তিনি। একটি স্টার্টআপের কো-ফাউন্ডার, লগ্নিকারী, প্রো কবাডি লিগে একটি দলের মালিক এবং স্ত্রী জারিনার সঙ্গে একটি ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা। এখানেই শেষ নয়। চলতি বছরে লেখক হিসাবেও আত্মপ্রকাশ করেছেন। প্রকাশিত হয়েছে তাঁর লেখা বই Dream with Your Eyes Open: An Entrepreneurial Journey. এসব তিনি কখন করছেন? যখন কিনা UTV, Vijay TV, Hungama-র মতো সংস্থা গড়ে তোলা, বড় করা এবং সব ছেড়েছুড়ে বেরিয়ে আসার পরে। সময়ের হিসাবে যা প্রায় তিন দশক।

"বিশ্রাম নেওয়ার জন্য আমি মিডিয়া-এন্টারটেইনমেন্ট থেকে বেরিয়ে আসিনি। আমি বেরিয়ে এসেছি কারণ সেই সময় সেটাই সঠিক সিদ্ধান্ত ছিল। আসলে আমি যা কিছুই করি না কেন লক্ষ্য থাকে তা যেন সাড়া ফেলে। এজন্য আমাকে কঠোর পরিশ্রম করতে হয়। শূন্য থেকে শুরু করতে হয়।" বললেন রনি।  

হাল ছেড় না বন্ধু

সময়টা আশির দশকের প্রথম দিক। আন্ত্রেপ্রেণারশিপ শব্দটা একটু-আধটু শুনতে পাওয়া যায়। আর স্টার্টআপ বলে কোনও শব্দ তখন কেউ শোনেইনি। 'দূরদর্শন' এলেও দিনে মাত্র কয়েক ঘণ্টার অনুষ্ঠান। সেই সময় নিজের মতো কিছু গড়ে তোলার কথা ভাবেন রনি। একটি লোকাল কেবল টিভি নেটওয়ার্ক গড়ে তোলেন রনি। মুম্বইয়ে হাতে গোনা কয়েকটি বাড়িতেই যে পরিষেবা পৌঁছত। আইডিয়াটা দুর্দান্ত হলেও, বছরখানেক পরে কেবল ব্যবসা মুখ ফেরাল। গ্রাহকরা আর উৎসাহী নন। কিন্তু একজন উদ্যোগপতি হিসাবে ততক্ষণে হাতেখড়ি হয়ে গিয়েছে রনির। হাজারের বেশি বাড়িতে গিয়ে, কথা বলে এই ব্যবসায় তাঁর চোখ খুলে গিয়েছে।

সেই সময় রনি যে শিক্ষাটা পান তার মোদ্দা কথা হল নিজের ওপর বিশ্বাস রাখতে হবে। যখন একজনও তোমার ব্যবসায় গ্রাহক হতে ইচ্ছুক নয়, তখনও বিশ্বাস হারালে চলবে না। যা এখনও একইভাবে প্রাসঙ্গিক। রনি তখন সদ্য কুড়ি পার করেছেন। কিন্তু লেগে রইলেন। নিজেই টাকাপয়সার ব্যবস্থা করে কেবল ব্যবসা চালিয়ে যেতে লাগলেন। কাস্টমার বেস বাড়াতে মুম্বইয়ের হোটেলগুলোতে কেবল পরিষেবা দিতে লাগলেন। ব্যবসা বন্ধ করে দিতে হবে এমন কোনও ভাবনাকে মাথাতে ঢুকতেই দিলেন না তিনি। এর ফলেই তিনি সাফল্যের মুখ দেখেন বলে মনে করেন রনি। তিনি বললেন,"এখন অনেকে তিনমাস ব্যবসা চালিয়ে সাফল্য না পেলে নিজের আইডিয়া নিয়েই প্রশ্ন তুলতে থাকেন। ফান্ডিং না পেলে হতাশ হয়ে পড়েন। এখন আপনাকে হয় নিজের আইডিয়ার ওপর ভরসা রাখতে হবে বা সরে দাঁড়াতে হবে।" এই কেবল টিভি নেটওয়ার্কের অভিজ্ঞতাই UTV তৈরির ভিত গড়ে দেয়। এমন এক মিডিয়া হাউস যা বহু বছর ধরে টিভি কনটেন্ট, গেমস ব্রডকাস্টিং চ্যানেল, মুভি স্টুডিও চালিয়ে গিয়েছে। তাও আবার নিজস্ব আর্থিক সঙ্গতির ওপর ভরসা রেখে।


ছেড়ে দেবেন না

UTV-র সাফল্য যেন একটা রূপকথা। অন্য মিডিয়া হাউসের জন্য কনটেন্ট তৈরি করা, একগুচ্ছ ব্রডকাস্টিং চ্যানেল কিংবা সিনেমা প্রযোজনা। যে সব সিনেমার তালিকায় রয়েছে বেশ কয়েকটা ব্লকবাস্টার-যোধা আকবর, এ ওয়েনেসডে, ডেলহি বেলি, নো ওয়ান কিল্‌ড জেসিকা। ২০১২ সালে UTV অধিগ্রহণ করে ডিজনি। এরপরও প্রায় দু'বছর সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর ছিলেন রনি। আসলে সরে দাঁড়ানোর কোনও পরিকল্পনা তাঁর ছিল না। কেন? রনি বললেন," অধিকাংশই লোকই ভাবেন একদিন ঘুম থেকে উঠে নিজেকে বলব, অনেক করেছি, এবার সরে দাঁড়াই। তা কখনই হয় না। ডিজনি ইউটিভি কিনে নিতে যে প্রস্তাব দিয়েছিল, তা ভাবলেই কোম্পানির জন্য মন খারাপ করত, সংস্থার কর্মীদের জন্য খারাপ লাগত। কারণ এটাকে অবলম্বন করেই তো তারা আরও উঁচু জায়গায় পৌঁছতে পারত।"

এ জন্যই নিজেকে সিরিয়াল আন্ত্রেপ্রেনার (serial entrepreneur) বলতে রাজি নন তিনি। তাঁর কথায়,"আমার কাছে সিরিয়াল মানে পূর্ব-পরিকল্পিত। যা আমি ঠিক মনে করি না। না পারলে সরে দাঁড়াব এমন ভাবনা মাথায় রেখে একজন আন্ত্রেপ্রেণারের কোনও ব্যবসা করা উচিত নয়। কোনও পরিকল্পনা বা কৌশলের জন্য এক্সিট ঘটে না। এ ব্যাপারে খোলা মনে কাজ করতে হবে।"

দ্বিতীয় ইনিংস

ডিজনি ইউটিভি অধিগ্রহণের সময়ই রনি তৈরি করেন ভেঞ্চার ফান্ড Unilazer. আসলে কোনও স্টার্টআপের সঙ্গে জড়িত থাকতে চেয়েছিলেন রনি। সেজন্যই ইউনিলেজার। তবে শুধুমাত্র একজন লগ্নিকারী হওয়া তার ডিএনএ'র মধ্যে নেই বলে নিজেই বলেছেন রনি। ফলে ফের নতুন কোনও কিছু করাই একমাত্র বিকল্প। এবার বিভিন্ন বিষয়ে কাজ করার কথা ভাবলেন। একা নয়, সবকিছুতেই হবেন কো-ফাউন্ডার। তাঁর তৈরি অনলাইন এডুকেশন সংস্থা UpGrad-এ কর্মরত প্রোফেশন্যালসদের উচ্চশিক্ষার ব্যবস্থা করে থাকে। আন্ত্রেপ্রেনারশিপ নিয়ে ১৫ সপ্তাহের একটা কোর্সও করা যায় এখানে। তাঁর ডিজিটাল মিডিয়া ভেঞ্চার, Arre, ফিকশন ও নন-ফিকশনে অরিজিন্যাল কনটেন্টের ব্যবস্থা করবে। তাঁর দৃঢ় বিশ্বাস দুটি উদ্যোগেই মার্কেট লিডার হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এছাড়াও তিনি তৈরি করেছেন Unilazer Sports (একটি স্পোর্টস মার্কেটিং ফার্ম যা মূলত কবাডি, ফুটবল ও মোটরস্পোর্টসে নজর দিয়ে থাকে)। এই Unilazer Sports-এর মাধ্যমেই প্রো-কবাডি লিগ টিম U Mumba কিনেছেন রনি। U Dream Football নামে একটি ফুটবল প্রশিক্ষণ কেন্দ্র চালান তিনি। আর ২০১৬ সালে আসতে চলেছে তাঁর মস্তিস্কপ্রসূত মোটরস্পোর্টস U Moto 250.

আন্ত্রেপ্রেনারশিপ নিয়ে তাঁর নামের সঙ্গে একটা বিষয় অবশ্য জুড়ে গিয়েছে। যে কারণেই তাঁকে বই লিখতে হয়েছে। তিনি মনে করেন, আশির দশক থেকে আন্ত্রেপ্রেণারশিপ নিয়ে যে ভুল মনোভাব রয়েছে তা এখন সেভাবে বদলায়নি। তাঁর কথায়," লোকে একসময় বলত রনি কোনও কাজ পায়নি বলেই উদ্যোগপতি হয়েছে। এটা ঠিক নয়। এই মনোভাব এখনও বদলায়নি।" তিনি মনে করেন তাঁর বই পড়লে অনেক তরুণ আন্ত্রেপ্রেনারশিপে এগিয়ে আসবে। আসাটা দরকার বলেও মনে করেন তিনি। যে দেশে ১৩০ কোটি মানুষ থাকেন সেখানে ১০ হাজার উদ্যোগপতিটা কোনও সংখ্যাই নয়। তিনি চান আগামী পাঁচ বছরে দেশে এক কোটি উদ্যোগপতি তৈরি হোক। তবেই দেশটা নড়েচড়ে বসবে।

রনির অভিজ্ঞতা থেকে তার মতো তরুণ উদ্যোগপতিদের অনেক কিছু শেখার রয়েছে বলেই মনে করেন UpGrad-এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ময়াঙ্ক কুমার। ময়াঙ্ক একসময় Bertelsmann India Investments-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে কাজ করেছিলেন। সেই ময়াঙ্ক বললেন,"বড় আকারে কীভাবে ভাবতে হয় সেটা রনির কাছেই শিখেছি। আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে ব্র্যান্ড তৈরি করা। আর দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়া।"

নতুন ইনিংস কেমন লাগছে তাঁর? এখন কী থেকে অনুপ্রেরণা পান? রনি জানালেন, যা সাড়া ফেলবে, নতুন কিছুর জন্ম দেবে এমন ভাবনা এখনও তাঁকে তাড়িয়ে বেড়ায়।

উদ্যোগপতিদের রনির পরামর্শ

  • ফান্ড তোলাটা লক্ষ্য নয়
  • লগ্নি আনার ব্যাপারে নিজের দক্ষতাকে বেঞ্চমার্ক মনে করবেন না
  • নিজের আইডিয়ার ওপর ভরসা রাখুন, একটু অপেক্ষা করুন
  • বড় আকারে ভাবুন
  • স্বউদ্যোগে ব্যবসা শুরুর শিক্ষা নিন
  • নিজের কাস্টমারদের মনোভাব বুঝুন
  • শুরুর সময় ঝাঁপ গোটানোর পরিকল্পনা ছকে নেবেন না

লেখা - রাধিকা নায়ার