রাজনৈতিক স্থিরতার দিব্বি, Bengal Means Business

2

বিশ্ববঙ্গ সম্মেলনের মঞ্চে দাঁড়িয়ে রাজনীতির কড়া বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুকেশ আম্বানি, লক্ষ্মী নিবাস মিত্তালদের সামনে রেখেই দলীয় নেতা কর্মীদের নাম না করে স্পষ্ট শুনিয়ে দিলেন রাজ্যে বিনিয়োগে কোনও বাধা মানা হবে না। বিনিয়োগে বাধা দিলে দলকেও রেয়াত করবেন না মুখ্যমন্ত্রী শিল্প আর উন্নয়ন যে একই মুদ্রার দুটো পিঠ সেকথা সম্যক জানেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর ভাষণে তাই ফের ফুটে উঠল সেই প্রত্যয়। বললেন রাজ্যে শিল্পের অনুকূল পরিবেশ রয়েছে। বেঙ্গল মিনস বিজনেস, এই শ্লোগানের খেই ধরেই মুখ্যমন্ত্রীর দাবি রাজ্যে বিজনেসের জন্যে চাই রাজনৈতিক স্থিরতা। বাংলায় সেই রাজনৈতিক স্থিরতা আছে। বাংলা অত্যন্ত শিল্প-বান্ধব রাজ্য। সকলকে গ্রহণ করতে চায়। কেউ হতাশ হবেন না। বাংলায় বিনিয়োগ করলে সুফল পাবেন। কারণ তাঁর বাংলা সাদরে সকলকে গ্রহণ করতে আগ্রহী। তিনি বলেন, "যখন দেখি আমার রাজ্যে কোনও শিল্পপতি কাজে বাধা পাচ্ছেন, তখন আমার খারাপ লাগে। আমরা এই রাজ্যে কোনও বেআইনি কাজ বরদাস্ত করব না। কোথাও কোনও অসুবিধা হলে আমার সঙ্গে কথা বলুন। এখানে কোনও বাধা নেই, পক্ষপাত নেই।' শিল্পপতিদের মুখ্যমন্ত্রী আমন্ত্রণ জানিয়ে বলেন, ‘বাংলাকে নিজের বাড়ি ভাবুন। আপনারা বাংলায় আসুন। সব বাধা দূর করে বাংলা এখন ১ নম্বরে। ক্ষুদ্র মাঝারি শিল্পে, ইস্পাতে বাংলা প্রথম স্থানে। শিল্পায়নের পাশে রয়েছে রাজ্যের যুব সমাজ। পরিকাঠামোর বিপুল বিনিয়োগ হয়েছে। গত ৬ বছরে রাজ্যে ৮১ লক্ষ কর্মসংস্থান হয়েছে। তিনি ক্ষমতায় আসার আগে ৭১ লক্ষ কর্ম দিবস নষ্ট হয়েছিল বলে দাবি করলেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু এই ৬ বছরে একটিও কর্ম দিবস নষ্ট হয়নি। রাজ্যে বন্‌ধ, বেআইনি জঙ্গি ট্রেড ইউনিয়ন আন্দোলন হয় না। ফলে রাজ্যে বিনিয়োগের উপযুক্ত পরিবেশ আছে। রাজ্যে বিনিয়োগ হলে কর্মসংস্থান আরও বাড়বে। রাজ্যে বিনিয়োগ হলে দেশের বড় অংশ উপকৃত হবে। শিক্ষা ও সামাজিক ক্ষেত্রে বাংলা অগ্রণী। বিজনেস সামিটের মঞ্চে মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা, ‘আপনারা পাশে থাকুন। অদূর ভবিষ্যতে বাংলা সব ক্ষেত্রেই পয়লা নম্বর হবে। শিল্পের মাধ্যমে, পার্টনারশিপের মাধ্যমে কর্মসংস্থানে বাংলা এক নম্বর হবেই।' মুখ্যমন্ত্রীর আত্মবিশ্বাসে মুগ্ধ শিল্প মহল।