প্রেমকে আস্কারা দেয় কলকাতা পুলিশ

1
পুলিশ মানেই ইয়াব্বড় ভুঁড়ি... আর অকারণ মাতব্বরি করা এক আজগুবি প্রজাতি নয়, পুলিশ মানে বন্ধুও বটে সেটা এবছর ভ্যালেন্টাইন্স ডে-তে প্রমাণ করে দিল কলকাতা পুলিশ। ১৪ ফেব্রুয়ারির আগে পড়ে এবং সেই দিন প্রেমের পাশে দাঁড়িয়েছিল ক-পু।

সারা পৃথিবী জুড়েই এই দিনটি প্রেম দিবস হিসাবে পালিত হয়ে থাকে। বাঙালি জাতে প্রেমিক-প্রেমিকার সংখ্যা অগুন্তি। বাংলার জলহাওয়ার গুণই হল সে প্রেম করিয়ে নেবেই। ভ্যালেনটাইন্স ডে সমারোহেই পালিত হয় এই রাজ্য জুড়ে। দিনটি ক্রমশ জনপ্রিয়ও হয়ে উঠছে। কলকাতা শহরের বহু ছেলেমেয়ে ভ্যালেনটাইন্স ডে একটু অন্যরকমভাবে পালন করেন। ইটকাঠের এই শহরে প্রেমিক-প্রেমিকারা প্রেম করবার ইচ্ছা থাকলেও প্রেম করার মতো জায়গার অভাব তো আছেই। নির্জনতা না থাকলে যে প্রেম জমে না, তা বলাবাহুল্য।

কিন্ত নির্জনে বসে প্রেম করারও কী উপায় আছে! সেখানেও উত্যক্তকারীর অভাব নেই। আসলে বোধহয় প্রেম ও প্রেমহীনতা দুই-ই হাত ধরাধরি করে চলে।

কলকাতা পুলিশ চায় প্রেম হোক। প্রেম নির্বিঘ্নে যাতে করা যায় সে ব্যাপারে কলকাতা পুলিশের পক্ষ থেকে এ বছর ভ্যালেনটাইন্স ডে-তে অভিনব উদ্যোগ নেওয়া হল। এজন্য পুলিশ কর্মীরা দিনভর টহল দিয়েছেন সারা কলকাতা শহর জুড়ে। বিশেষত, প্রেম করবার প্রসিদ্ধ জায়গাগুলিতে পুলিশের নজরদারি ছিল দেখবার মতন।

ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল, ইলিয়ট পার্ক, ময়দান, নন্দন চত্বরে প্রতিদিনই সমাগম হয় বহু সংখ্যক প্রণয়-প্রণয়ীর। এই স্থানগুলিতে কলকাতা পুলিশের কর্মীরা বিশেষ নজরাদারি ব্যবস্থায় নিযুক্ত ছিলেন। নাহ, ভ্যালেনটাইন্স ডে-তে প্রেম করতে গিয়ে কেউ আক্রান্ত হয়েছেন বা উত্যক্তকারীদের হাতে হয়রানির শিকার হয়েছেন বলে খবর নেই।

কলকাতা পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, ইনফরমেশন টেকনোলজি আইন, ১৯৮৬ অনুসারে প্রেমিক-প্রেমিকার ছবি তোলা বা ভিডিও করা নিষেধ তাঁদের অনুমতি ছাড়া। অভিযোগ পেলে এক্ষেত্রে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে এই রাজ্যের প্রেমিক-প্রেমিকারা স্বস্তিতে প্রেমপর্ব সমাধা করলেও দেশের অন্যান্য রাজ্যগুলিতে কিন্তু তাঁদের হাল মোটেও সুবিধার নয়। খবর অনুযায়ী, ওড়িশায় বজরং দল এ ব্যাপারে ফতোয়া জারি করে। তাঁদের হুমকি ছিল, বজরং দলের সদস্যদের যদি মনে হয় প্রেমিক-প্রেমিকাদের আচরণ অসঙ্গত – তাহলে তাঁরা জোর করে বিয়ে দিয়ে দেবেন।

এই একই হুমকি দিয়েছে দেশের বিভিন্ন রাজ্যের দক্ষিণপন্থী দলগুলি। ভ্যালেনটাইন্স ডে-র বিরোধিতায় মহারাষ্ট্রে যেমন কোমরবেঁধে নেমে পড়েছিল শিবসেনা। সহযোগী হিসাবে শিবসেনা জুটিয়ে নিয়েছিল মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনা, শ্রী রাম সেনার মতো দলগুলিকেও।

তবে সারা দেশের সার্বিক পরিস্থিতি কিন্ত এতটা খারাপ নয়। দেশের বহু রাজনীতিকই আন্তর্জাতিক প্রেমদিবস ভ্যালেনটাইন্স ডে-কে স্বীকৃতি দিয়েছেন।