কেন বিনিয়োগ টানার দৌড়ে পিছিয়ে মহিলা উদ্যোগীরা  

2

২০১৭-য় বৈষম্য কাটুক। নতুন কিছু হোক। এখনও পর্যন্ত পাওয়া পরিসংখ্যান বলছে মেয়েরা জীবনের অধিকাংশ ক্ষেত্রেই বঞ্চনার শিকার। এমনকি স্বউদ্যোগের ক্ষেত্রেও। পুরুষ উদ্যোগীদের তুলনায় নানা ধরনের বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন তাঁরা। সারা পৃথিবী জুড়েই এই পরিস্থিতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

একটি উদ্যোগ গড়ে তোলার জন্যে প্রয়োজন অর্থ। বিনিয়োগকারীদের একাংশ মহিলাদের উদ্যোগে টাকা ঢালতে গড়মসি করার জেরে মেয়েদের পক্ষে তাঁদের সংস্থায় বিনিয়োগ করতে এ যুগেও প্রচুর ঝক্কি পোহাতে হচ্ছে।

ফান্ডেরার সিইও জারেড হেক্ট এ ব্যাপারে যে রিপোর্টটি পেশ করেছেন, তাতে দেখা যাচ্ছে, সারা পৃথিবীতে মেয়েরা কিন্তু নিজেদের উদ্যোগগুলি ভালোভাবেই পরিচালনা করতে সক্ষম। মহিলা উদ্যোগী পরিচালিত সংস্থাগুলিতে কাজ করছেন অন্ততপক্ষে ৭.৯ মিলিয়ন কর্মী। মোট ব্যবসার পরিমাণ ১.৪ ট্রিলিয়ন ডলার।

ওই রিপোর্ট অনুসার, মোটে ৭ শতাংশ মহিলা উদ্যোগী ভেঞ্চার ক্যাপিটালিস্টদের কাছ থেকে বিনিয়োগ আদায় করতে পারছেন। পাশাপাশি, ১৫ থেকে ২০ শতাংশের কম ক্ষেত্রে মেয়েরা ঋণ নিয়ে ব্যবসা-বাণিজ্য করতে পারছেন। প্রসঙ্গত, ভেঞ্চার ক্যাপিটালিস্ট হিলাবেও সংখ্যাধিক্য পুরুষদেরই।

কানাডাস্থিত ব্যাবসন কলেজের অধ্যাপিকা ক্যানডিডা ব্রাশ এ বিষয়ে আলোকপাত করতে গিয়ে জানিয়েছেন, সফল উদ্যোগী বলতে এখনও পুরুষদেরই নাম করা হয়। যেমন, ধরুন এক্ষেত্রে প্রায় সকলেই একবাক্যে উচ্চারণ করবেন স্টিভ জোবস, মার্ক জুকেরবার্গ কিংবা ধীরুভাই আম্বানির নাম। অথচ, মেয়েরাও তাল মিলিয়ে দারুণভাবে ব্যবসা করছেন।

যেমন ধরুন. হাফিংটন পোস্টের সহ-প্রতিষ্ঠাতা অ্যারিয়ানা হাফিংটন, হুলুর সহ-প্রতিষ্ঠাতা বেথ কমস্টকের নামটিও কিন্তু দুনিয়ার সফল পুরুষ উদ্যোগীদের সঙ্গে একসঙ্গে উচ্চারিত হওয়ার দাবি রাখে। এব্যাপারে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে মিডিয়ার এগিয়ে আসা উচিত বলে মনে করেন ক্যানডিডা।

মেয়েরা ব্যবসা করতে চাইলে তাঁদের আর্থিক সুযোগ বা ঋণ পাইয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক স্তরে জড়তা এখনও কাটেনি। ৮৫ শতাংশের বেশি ভেঞ্চার ক্যাপিটালিস্টই হলেন পুরুষ। এঁদের ভিতর মোটে ১১ শতাংশ ভেঞ্চার ক্যাপিটালিস্ট মেয়েদের ব্যবসায় বিনিয়োগ করতে আগ্রহী। সুদের হারও তাঁদের ক্ষেত্রে তুলনায় বেশি।

অন্যদিকে, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মেয়েরা উদ্যোগী হিসাবে আত্মপ্রকাশ করতে চাইলে তাঁদের লড়াইটা আরও কঠিনই। পরিসংখ্যান অনুসারে, আমেরিকার বাসিন্দা কালো মেয়েদের মোট ব্যবসার পরিমাণ হল ৪৪ মিলিয়ন ডলার। এদিকে ব্যবসার জন্যে মাত্র ০.২ শতাংশ ক্ষেত্রে ভেঞ্চার ক্যাপিটালিস্টদের কাছ থেকে তাঁরা বিনিয়োগ লাভ করতে সক্ষম হয়েছেন।