Debarun Curates কলকাতার মুকুটে নতুন পালক

কলকাতার ফ্যাশন মানচিত্র নিয়ে আমাদের গবেষণায় আজ এই শহরেরই এক তরুণ ডিজাইনারের কাহিনি শোনাব। খাদির কাপড় দিয়েই ম্যাজিক করেন। শুনব সেই ম্যাজিকের কাহিনি।

0

দেবারুণ মুখোপাধ্যায়। নামটা অনেকেরই মুখে মুখে ঘোরে। বলি টলিতে সবাই এক ডাকে চেনেন। দেশে বিদেশে বিভিন্ন ফ্যাশন শোয়ে বাংলাকে ভারতকে প্রতিনিধিত্ব করেন। বছর দশেক ধরে ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করে চলেছেন ফলে সুখ্যাতির অন্ত নেই। মূলত খাদিই তাঁকে টানে। খাদির কাপড়ের বুনোট ওর শিল্প ভাবনা দেবারুণকে উজ্জীবিত করত। তাই দেবারুণ ওর শিল্পভাবনার ক্যানভাস হিসেবে বেছে নেন খাদির কাপড়। এবং এই কাজটা করতে করতেই পরিচিতি আসতে থাকে। আর তৈরি হতে থাকে একের পর এক ম্যাজিক। যেমন ধরুন খাদির কাপড়ে বিয়ের পোশাক। কেউ কখনও কল্পনাও করেননি। কিন্তু আদতে এই আশ্চর্য পোশাক তৈরি করে দেখিয়ে দিয়েছেন দেবারুণ। ঝলমলে পার্টিতে পরার মতো ড্রেস তৈরি করেছেন খদ্দর দিয়ে। আন্তর্জাতিক স্তরে একটি ফ্যাশন প্যারেডে খাদির পোশাক পরে তার মডেলরা হেঁটে গেছে আর গোটা হল স্ট্যান্ডিং ওভেশন দিয়েছে। হাতে বোনা সুতো আর হাতে বোনা কাপড়ের ম্যাজিক আরও আছে। একবার আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন বাংলাদেশের সরকারের তরফ থেকে সেখানে কালো আর সোনালি সুতোয় বোনা একটি কালেকশন নিয়ে গিয়েছিলেন দেবারুণ। বাংলাদেশের প্রদর্শনীতে সমস্ত পোশাক বিক্রি হয়ে যায়। তারপর Resplendent Khadi নামে পুরুষ এবং মহিলাদের পোশাকের কালেকশন ডিজাইন করে ফেলেন। রয়াল ব্লু, ঘন সবুজ এবং কালো রং ব্যবহার করেন। জরদৌসি আর মলে মেশান অ্যামব্রয়েডারি। জমিতে ছাপানো টুইস্ট, হ্যান্ড ব্লক প্রিন্ট এবং জ্যামিতিক আকার দিয়ে পোশাকগুলিকে অন্যদের থেকে এক্কেবারে আলাদা করে ফেলেন। রীতিমত গবেষণা করে আধুনিক প্রজন্মের রুচি মাফিক পোশাক ডিজাইন করেন দেবারুণ। আর এই কাজ করতে গিয়ে ফুলিয়ার তাঁতিদের নতুন করে আলোয় নিয়ে আসার সুযোগ পেয়ে যান।

দেবারুণের ওয়েডিং কালেকশনে আছে শাড়ি, লেহেঙ্গা, সালোয়ার স্যুট, ফিউশন গাউন, টিউনিক—সব হ্যাহন্ডস্পান ফ্যাব্রিক। মহাত্মা গান্ধির প্রতি অটুট ভক্তি। বলছিলেন হাতে বোনা সুতোয় মহাত্মা গান্ধির সর্বোদয়ের গন্ধ পান তিনি। তাঁর ডিজাইন করা পোশাক কালেকশন Luxehues.com এই-ইকমার্স পোর্টালেও পাওয়া যায়।

স্বীকৃতি অনেক পেয়েছেন। সেলিব্রিটি কাস্টমারও কম পাননি। তাঁর পোশাকের সৌন্দর্যে মুগ্ধ রসিকজনও অগুনতি। দেশ বিদেশের স্টোরে দেবারুণের ডিজাইন করা পোশাক পাওয়া যায়। কিন্তু কোনও ফ্ল্যাগসিপ স্টোর এতদিন ছিল না। এবার সেটা হল নিজের শহর কলকাতায়। দক্ষিণ কলকাতার লেক ভিউ রোডে শুরু হল ৪০০ স্কোয়ার ফিটের স্টোর। নামা রখলেন ‘দেবারুণ কিউরেটস’।

Related Stories