শিল্পের যাবতীয় আছে নমন আর আকাশের অনলাইন শপে

3
সাধারণ মানুষের দৈনন্দিন চাহিদা মেটানোর জন্যে হাজার একটা ই-কমার্স মার্কেট প্লেস রয়েছে। কিন্তু শিল্পের টুকিটাকি সামগ্রীর চাহিদা মেটানোর জন্যে ই-কমার্স মার্কেট প্লেস ভারতে খুব বেশি নেই। Now Purchase এমনই একটি মার্কেট প্লেস যেখানে ছোট বড় মাঝারি শিল্পের মূলত ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্পের চাহিদা মত যন্ত্রাংশ, টুল এবং প্রয়োজনীয় খুঁটিনাটি সামগ্রী পাওয়া যায়।
আকাশ শাহ, নমন শাহ। Now Purchase এর দুই কর্ণধার। 
আকাশ শাহ, নমন শাহ। Now Purchase এর দুই কর্ণধার। 

সংস্থার দুই কর্ণধার। কাকা ভাইপো। আকাশ এবং নমন শাহ। দুজনেই কলকাতার ছেলে। বয়সে দুজনেই একে অপরের কাঁধে কাঁধে। নমন বলছিলেন, চোদ্দ হাজারেরও বেশি সামগ্রী পাওয়া যায় ওদের সাইটে। এই মার্কেট প্লেসটি অনেক ক্ষেত্রেই অভিনব। প্রতিযোগী আছে। গোল করার জন্যে একদম ফাঁকা মাঠ যদিও নয়। তবু ওদের দাবি নাও পারচেজ অভিনব। চিনে এধরণের বিটুবি মার্কেট প্লেসের রমরমাই বেশি। ভারতে সংখ্যাটা খুবই কম। সব থেকে বড় প্রতিযোগী IndustryBuying সেকথা অকপটেই স্বীকার করে নিলেন নমন এবং আকাশ। ২০১৩ সালে শুরু হওয়া ইন্ডাস্ট্রি বায়িঙ্গের থেকে নাও পারচেজ অনেকটাই আলাদা। কোথায় আলাদা সেকথা বলছিলেন আকাশ। তার মতে ছোট ও মাঝারি শিল্পই প্রাথমিক টার্গেট। শুধু অর্ডার ডেলিভারি করাই নয় রীতিমত পেশাদারিত্বের সঙ্গে দুর্দান্ত পরিষেবা দেওয়াই ওদের লক্ষ্য। আউট সোর্সসড পার্চেজ ম্যানেজার হিসেবে শিল্পের প্রয়োজনীয় সামগ্রী সংগ্রহ করার কাজটাও করে পার্চেজ নাও। নমন শাহ সংস্থার কো ফাউন্ডার বলছিলেন, ই-কমার্স সাইটের বর্তমান পরিস্থিতিতেও ওরা তাই অভিনব। বলছিলেন, ওদের এই one stop solution মানে, এই সাইটে এলে শিল্পের প্রয়োজনের প্রায় সমস্ত সামগ্রী পাওয়া যাবে। এবং একজন পার্চেজ ম্যানেজারের দায়িত্বও আপনার হয়ে পালন করে দেবে এই সংস্থা। ফলে বাজারে অনলাইন মার্কেট প্লেস অনেক থাকলেও শিল্পের জন্যে প্রয়োজনীয় টুকিটাকি সামগ্রী এবং যন্ত্রাংশের অনলাইন বাজার হিসেবে ওদের স্টার্টআপটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আকাশ বলছিলেন, এখনকার কর্পোরেট দুনিয়া স্বচ্ছতা চায়। যেকোনও কেনা কাটায় সব থেকে কার্যকরী সমাধান খোঁজে। দায়িত্বের সঙ্গে সেই সমাধান দেওয়ার কাজটাই করতে চায় নাও পারচেজ। খুব বেশি দিন হয়নি এই সংস্থা শুরু হয়েছে। পয়লা বৈশাখ আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হলেও ক্রেতাদের কাছ থেকে দারুণ সাড়া পেয়েছে এই স্টার্টআপ। ব্যবসার বাজারে লিডার হওয়ার স্বপ্ন দেখেন নমন শাহ। 

নমন বলছিলেন, ছোটবেলায় স্কুলে লিডার হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন তিনি। স্কুল বলতে সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজিয়েট স্কুল, পার্কস্ট্রিট। প্রাইমারি থেকে বারো ক্লাস। মেধাবী ছাত্র বলেই পরিচিত ছিলেন। স্ট্যান্ড করতেন। ব্যবসায়ী পরিবারের ছেলে। বাবা ম্যানুফ্যাকচারিং ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে যুক্ত। ইঞ্জিনিয়ারিং টুলস তৈরি করেন। আকাশ জানালেন কৃষি ক্ষেত্রে ব্যবহার্য বিভিন্ন যন্ত্র তৈরি করছেন। ট্রাক্টরের সঙ্গে যুক্ত করে জমি কর্ষণ করার যন্ত্র। ফলে পারিবারিক সূত্রেই যন্ত্রের সঙ্গে ওদের অনেক দিনের বাস।

কিন্তু নমন ছাত্রাবস্থায় সিরিয়াসলি কখনও ব্যবসা করার কথা ভাবেননি। ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব সিঙ্গাপুরে অর্থনীতি নিয়ে পড়তে যান। সেখান থেকে স্কলারশিপ নিয়ে যান মার্কিন মুলুকে। পড়াশুনোটা ভালোবাসতেন নমন। কিন্তু প্রথমত সিঙ্গাপুরের স্টার্টআপ ইকোসিস্টেমের সঙ্গে পরিচয় হওয়ার পর থেকে মনটা ঘুরতে থাকে। আমেরিকায় বিজনেস স্কুলে পড়ার সময় এবং বিজনেস স্কুল থেকে বেরিয়ে জড়িয়ে পড়েন বেশ কিছু স্টার্টআপের সঙ্গে। ২০১৩ সালে বিজইক্যুইটি নামে মার্কিন একটি স্টার্টআপে যোগ দেন। সামান্য ইন্টার্ন হিসেবে। টানা তিন বছরে স্টার্টআপ চালানোর হাতে কলমে শিক্ষাটা সম্পূর্ণ হয়ে যায়। দীর্ঘদিন পর ফিরে আসেন নিজের শহর কলকাতায়। ২০১৬ সালে মাথায় ঘুরতে থাকে নিজের একটি স্টার্টআপের আইডিয়া। সঙ্গ দেন আকাশ। 

আকাশ আই এস বি হায়দরাবাদের ছাত্র। সেখান থেকে কাজের সূত্রে যান শিকাগো। ২০০৮ এ ফিরে এসে পারিবারিক ব্যবসা সামলাতে থাকেন। শিল্পের চাহিদা মতো সামগ্রী যোগানের অভাবটা টের পান আকাশ। এবং এই শূন্যস্থানে যে বিপুল ব্যবসার সম্ভাবনা রয়েছে সেটাও টের পান। ফলে নমনের সঙ্গে স্টার্টআপ খোলার সময় এই সম্ভাবনাটাই সফল করতে চেয়েছিলেন আকাশ। ফলে আত্মপ্রকাশ করল Now Purchase, শিল্পের সমস্ত সামগ্রীর অনলাইন মার্কেট প্লেস। 

নমনের মতে কলকাতা এই ব্যবসার জন্যে ঠিক ঠিকানা। কারণ এক, এখানে স্টার্টআপ খোলার খরচ কম। দুই, কলকাতার আশপাশে অসংখ্য ছোট মাঝারি শিল্পের গুচ্ছ রয়েছে। যেখান থেকে ওদের ব্যবসার ক্রেতারা আসছেন। যাদের সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদি এবং নিয়মিত সম্পর্কও তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তিন, কলকাতা ওদের ভালোবাসার শহর। অনলাইন হওয়ায় স্থান বিচারের কোনও ছুৎমার্গ নেই। ফলে কলকাতা থেকে ভারতের যেকোনও প্রান্তে ব্যবসা করাটা খুবই সম্ভব। চতুর্থত, কলকাতায় নমন পেয়েছেন যোগ্য টিম। দায়িত্বশীল যোগ্য দক্ষ কর্মীদের নিয়ে দারুণ খুশি নমন এবং আকাশ। অপেক্ষা শুধু সাফল্যের রাস্তায় স্টার্টআপটিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া।