বিশ্বজুড়ে টালমাটালেও আর্থিক বৃদ্ধি ধরে রেখেছে ভারত

0

বিশ্ব অর্থনীতিতে জ্বলজ্বল করছে ভারতের তারা। ২০১৬-১৭ আর্থিক বছরে বৃদ্ধির লক্ষ্য ৭.৮ শতাংশ, বিশ্বব্যাঙ্কের হিসেবে যেটা চিনের থেকেও বেশি। প্রতি ৬ মাসে যে গ্লোবাল ইকনোমিক প্রসপেক্ট রিপোর্ট পেশ হয় তাতে দেখা গিয়েছে, বিশ্বব্যাঙ্ক ভারতের বৃদ্ধি ২০১৫য় ০.২ শতাংশ এবং ২০১৬-১৭য় ০.১ শতাংশ কমিয়েছে।

বিশ্ব অর্থনীতিতে ভারত বরাবরই উজ্জ্বল নক্ষত্র, যেখানে চিনের বৃদ্ধি খানিকটা ধীর। এশিয়ার অর্থনীতির মূল ভরসা ভারতের আর্থিক বৃদ্ধির লক্ষ্য এই বছর রাখা হয়েছে ৭.৮ শতাংশ এবং আগামী ২ বছর সেই লক্ষ্য রাখা হয়েছে ৭.৯ শতাংশ। বিশ্বব্যাঙ্কের হিসেবে ২০১৫য় চিনের বৃদ্ধি ছিল ৬.৯ শতাংশ। রিপোর্ট অনুযায়ী ২০১৬য় চিনের আর্থিক বৃদ্ধির লক্ষ্য ৬.৭ শতাংশ এবং ২০১৭ ও ২০১৮ য় এই বৃদ্ধির লক্ষ্য ৬.৫ শতাংশ। ২০১৬য় রাশিয়া এবং ব্রাজিলে আর্থিক মন্দা থাকবে। ‘অন্যান্য বড় উন্নয়নশীল দেশগুলির তুলনায় ভারত বৃদ্ধি ধরে রেখেছে লগ্নিকারীদের ভরসা এবং তেলের দাম কমায় সার্বিক আয়ের ওপর ইতিবাচক প্রভাব পড়ার ফলে’, বলছে বিশ্বব্যাঙ্ক।

রিপোর্টে বলা হয়েছে, গত কয়েক বছরে বিশ্ববাজারে ওঠাপড়ায় সত্বেও ভারতের মুদ্রা এবং শেয়ার বাজার স্থিতিশীল অবস্থা ধরে রেখেছে। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক সঞ্চয় পুনর্গঠন করেছে। রাজস্ব একত্রীকরণের ফলে ঘাটতি কমে জিডিপির ৪ শতাংশে চলে এসেছে। ২০০৯ সালে যাটাছিল ৭.৬ শতাংশ। রিপোর্টে বলা হয়েছে, ২০১৬য় ৭.৩ শতাংশ হারে এবং বছরের শেষের দিকে ৭ শতাংশ হারে আর্থিক বৃদ্ধির হিসেব থেকে উন্নয়নশীল অর্থনীতির ক্ষেত্রে দক্ষিণ এশিয়াকে উজ্জ্বল সম্ভাবনা হিসেবে দেখা হচ্ছে। অন্যান্য রিজিওনের তুলনায় চিনের সঙ্গে এখানকার ব্যবসায়ীক সম্পর্ক খুব একটা বেশি নয়।

অনুবাদ-তিয়াসা বিশ্বাস