'Your Story'-র নতুন অধ্যায়ের সূচনা

(লিখছেন ইংরেজি ইওর স্টোরি প্রতিষ্ঠাত্রী এবং প্রধান সম্পাদিকা শ্রদ্ধা শর্মা)

0

আমার স্পষ্ট মনে আছে সেটা ছিল ২০০৮ এর অগাস্ট। মুম্বইয়ে আমি শিল্পোদ্যোগীদের একটি জমায়েতে বলেছিলাম, যে আমি এমন এক ধরণের মিডিয়া তৈরি করতে চাই যেটা সেই সব শিল্পোদ্যোগীদের কথাই বলবে যাঁরা এখনও সুপার স্টার নন। যাঁরা স্বপ্ন দেখছেন কিছু করার। যারা পরিশ্রমী এবং যাদের ভিতর কিছু করে দেখানোর সেই স্ফুলিঙ্গ রয়েছে। একদল শিল্পোদ্যোগী আমায় বলেছিলেন। দারুণ! এক্ষুনি করো। আবার অনেক তথাকথিত বিশেষজ্ঞ বলেছিলেন, "এও কি সম্ভব নাকি! এসব চলবে না।"

"খুব বেশি হলে মাস ছয়েক। এটা এক ধরণের সামাজিক হবি হতে পারে তার চেয়ে বেশি কিছু নয়। কী করে অপরিচিত শিল্পোদ্যোগীদের গল্প বাণিজ্যিকভাবে সফল হতে পারে।"


আমি আমার হৃদয়েরর কথাই শুনেছিলাম। শুরু হল ইওর স্টোরি ১৬ ই সেপ্টেম্বর ২০০৮। (ওয়েব সাইট প্রকাশিত হল।)

আজ ২০১৫ এর অগাস্ট। অনর্গল, আগ্রহভরে একের পর এক অসাধারণ গল্প বলতে বলতে সাত বছর পেরিয়ে এল ইওর স্টোরি। এবার তার নতুন অধ্যায়ের সূচনা হওয়ার সময় এসেছে। সমাজের প্রথিত যশা কিছু মানুষ, শ্রদ্ধেয় কিছু শিল্পপতির সহযোগিতায় শুরু হল ইওর স্টোরির নতুন যাত্রা।

আমি বিশ্বাস করি গত সাত বছরে প্রত্যেকটা দিন আমরা তাই করেছি যা আমরা করবার জন্য উদ্গ্রীব ছিলাম... দারুণ সব প্রেরণা জাগানো গল্প বলার অদম্য ইচ্ছে ছিল আমাদের ভিতর। আর ছিল প্রচুর উৎসাহ আর আত্মবিশ্বাস। শিল্পোদ্যোগীদের প্রতি আমাদের ভালোবাসা এবং আমাদের প্রতি তাঁদের গভীর আবেগ আমাদের এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করেছে। ভালোবাসা, স্ফুর্তি, তর্ক, সমালোচনা এই সব কিছুতে ভর করেই আমাদের বেড়ে ওঠা।

যারা এখনও লড়াই করছেন, সাফল্য পাচ্ছেন, স্বপ্ন দেখছেন এবং অসফলও হচ্ছেন তাঁদের সকলের উদ্দ্যেশ্যে আমার কিছু বলার আছে। যা আমি আমার চলার পথে শিখেছি, বিশ্বাস করি আপনারা আপনাদের মত করে তার একটা মানে খুঁজে পাবেন।

  • সময় লেগেছে। অনেকটা সময়। দীর্ঘ পথ, একা নিসঃঙ্গতার দীর্ঘ পথ, রোশনাই হীন দীর্ঘ সময় আমাকে পেরতে হয়েছে। এমন কাউকে বিশ্বাস করবেন না যারা আপনার মন ভেঙে দেওয়ার কথা বলছেন। সেই সব কঠিন সময়ে আমি বহুবার নিজেকে প্রশ্ন করেছি যে আমি যা করছি ঠিক করছি কিনা। শুধুমাত্র আমার ভিতরের আগুনই আমাকে এগিয়ে যাওয়ার অনুপ্রেরণা জুগিয়ে গেছে। আমাকে করতেই হত থেমে যাওয়ার কোনও প্রশ্নই সেখানে অবান্তর।
  • ফিরে দেখলাম, অমূল্য সম্পদ যা আমি জড়ো করতে পেরেছি তা শুধুমাত্র আমার অভিজ্ঞতা। জীবনের পথে ভালো মন্দ সবই আমি উপভোগ করেছি। সেগুলোই আমাকে তৈরি করেছে। সেই সব মানুষকে ভরসা করবেন না, যারা ভান করেন যে তাঁরা সব জানেন আর আপনাকে পথ বাতলে দেওয়ার ধৃষ্টতা করেন। নিজের ওপর বিশ্বাস রাখুন। আপনি দেওয়ালে আঘাত করবেন, ব্যথা পাবেন, কাঁদবেন, চিৎকার করবেন এবং মনে হবে আপনি হেরে গেছেন, আর পারছেন না। ঠিক আছে উঠে দাঁড়ান। সকলেরই এরকম হয়। এটা খুব স্বাভাবিক। তাই এই পরিস্থিতি থেকে আপনি শিখে নিন, আপনার অভিজ্ঞতাই খুব দামি। আমাকে যাঁরা খুব কাছ থেকে চেনেন তারা জানেন এই ক'বছরে কত কঠিন সময়ের ভিতর দিয়ে আমাকে যেতে হয়েছে। যদি আমি সেই কঠিন সময়গুলোর ভিতর দিয়ে না যেতাম তাহলে হয়তো এই দারুণ সময়গুলো উপভোগ করতে পারতাম না। তাই প্রত্যেকটা পরাজয়ের পরেই আমি আরও বেশি শক্তি বেশি উদ্দীপণা নিয়ে নতুন সাফল্যের সন্ধানে বেরিয়ে পরি।
  • আমি ভালো কাজে বিশ্বাস করি।  আমি দেখেছি আপনার ভালো ব্যবহার শতগুণে ফিরে আসে। অনেক শিল্পোদ্যোগীকে বদলে যেতে দেখেছি এবং আমি নিজেকে না বদলে ফেলতে চেষ্টা করেছি। সেটা করতে আমার দলের ছেলে মেয়েরা অনেক সাহায্য করেছে। ওরাই আমাকে বারবার পৃথিবীতে ফিরিয়ে আনে। কিন্তু তবুও আমি জানি, আমার চার পাশের সব কিছুই বদলাতে থাকবে নিজের নিয়মেই। কিন্তু যতক্ষণ আমি আমার উদ্দেশ্যে গভীরভাবে স্থির থাকব আমি জানি আমি ঠিক থাকব।
  • গত সাত বছর ধরে আমি কোনও সাহায্য ছাড়াই লড়াই করে গেছি। এবং সেটা দারুণ ব্যাপার। আমি আশা করব আরও আরও লোকে এটা বলুন এবং এটাকে সমর্থন করুন। অর্থ সংগ্রহের এত খবর এত ভাবে প্রচারিত তা স্বত্ত্বেও সাহায্য ছাড়া লড়াই এখনও তেমন মর্যাদা পায় না। কিন্তু আমি গর্বের সঙ্গে বলছি গত সাত বছর ধরে এটা ছিল একার লড়াই। এমন নয় আমার প্রচুর ছিল, বা লোকজন আমার জন্যে টাকা সাজিয়ে বসেছিল, তবু আমি যা পেরেছি করেছি। যখন তুমি জানো নিজের ব্যবস্থা নিজেকেই করতে হবে তখন সেটা তোমাকে অন্যরকম শক্তি অন্যরকম উৎসাহ দেয়।
  • এভাবে চলতে চলতেই আমি উপলব্ধি করলাম আমাকে যদি আমার লক্ষ্যে পৌঁছতে হয় তা হলে আরও কঠিন ঝড়ঝাপ্টা সইবার মত শক্তি দরকার।  তাই আরও অর্থ দরকার। এবং তখনই সিদ্ধান্ত নিলাম বাইরে থেকে টাকা নেব। এবং আমি স্থির করেছিলাম সেই সব মানুষের কাছেই আমার আবেদন নিয়ে যাবো যারা আমার স্বপ্নকে সমর্থন করেন। আমার গল্পের সঙ্গে নিজেদের জুড়তে চান।

"আমি খুবই ভাগ্যবান এবং আপ্লুত যে আমি তাঁদের খুঁজে পেয়েছি। আপনাদের জানাতে পেরে আমার অসীম আনন্দ হচ্ছে যে রতন টাটা, কলারি ক্যাপিটালের কর্ণধার বাণী কোলা, কোয়ালকম ভেঞ্চারের কর্ণধার কার্থী মাদাসামি এবং টি ভি মোহনদাস পাই ইওর স্টোরিতে বিনিয়োগ করছেন।"

প্রত্যেকটা সাফল্যের কাহিনিকে অবিশ্বাস্য ভাবে সত্যি কোরে তোলার যে স্বপ্ন আমি দেখি এবং তাকে আন্তরিক ভাবে সমর্থন করার মত মানুষ আমাদের প্রয়োজন। যাঁরা আমাকে, আমার ইওর স্টোরিকে প্রভাবিত করেছেন তাঁদের সুদীর্ঘ তালিকা রয়েছে কিন্তু আমি সেই সব মানুষকে আজ ধন্যবাদ জানাতে চাই যাঁরা আমাদের বিভিন্ন সময় সাহায্য করেছেন, সমর্থন করেছেন, পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। বিশেষ করে ধন্যবাদ জানাই অসাধ্য সাধন করা আমার এই দারুণ দলটাকে। এবং প্রত্যেকটি শিল্পোদ্যোগীকে যাঁরা আমাদেরকে তাঁদের যাত্রার সঙ্গী করেছেন। আমি আপনাদের ধন্যবাদ জানাই এবং আরও সামর্থ হোক এই আশা রাখি।

এখানে আরও একটা উত্তেজক ঘোষণা রয়েছে: ইওর স্টোরির মোদ্দা বিষয়টি হল, প্রত্যেকটি কাহিনিই আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। এবং তাই আমরা খুব শিগগিরই আনতে চলেছি ভারতে এমন একটি টেক-প্রোডাক্ট যা প্রত্যেককেই নিজের কাহিনি লিখবার, বলবার এবং গোটা বিশ্বকে দেখিয়ে দেওয়ার সামর্থ্য দেবে, তাঁদের নিজেদের মাতৃভাষায়, নিজেদের ফোনের মাধ্যমে। আমি আপনাদের অনুরোধ করব আমাদের সঙ্গে যুক্ত হোন। তৈরি করুন লক্ষ লক্ষ সত্যিকারের কাহিনি। সেই সব কাহিনি যা ঘরে ঘরে আশা, আবেগ আর ভিতরের আগুন হয়ে জ্বলবে।

"ইওর স্টোরিকে বাঁচবার, আপনাদের পাশে থাকার , আপনাদের একজন হয়ে ওঠার সুযোগ দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ। এটা জীবন পেয়েছে এবং মাথা চারা দিয়ে উঠেছে শুধু আপনদের নিঃশর্ত ভালোবাসার জন্যই।"