#msparks এর দশটি তারা, দশটি স্টার্টআপ

0

টেক স্পার্কসের পর মোবাইল স্পার্কস। ইওরস্টোরির বার্ষিক ইভেন্ট। প্রথমটিতে ৩০টি টেক স্টার্টআপকে তুলে ধরা হয়েছিল। এবার মোবাইল স্পার্কে তুলে ধরা হল মোবাইল নির্ভর ১০টি স্টার্টআপকে।

এর আগে মোবাইল স্পার্কস থেকে উঠে আসা যে সব অ্যাপ্লিকেশন পরবর্তীকালে দুর্দান্ত সাফল্য পেয়েছে সেগুলির মধ্যে Haptik, CultureAlley, DriveU, MyChildApp, Squadrun, MadStreetDen উল্লেখের দাবি রাখে।

এবছরের মোবাইল স্পার্কসের উজ্জ্বল নক্ষত্রগুলি হল

5BARz: কার ফোনে বলুন তো সিগনাল স্ট্রেন্থ নিয়ে সমস্যা হয় না! 5BARz হল এমন একটি সংস্থা যা এই সমস্যার সমাধান করছে। এদের তৈরি করা গিয়ার যদি আপনি আপনার বাড়িতে কিংবা অফিসে লাগিয়ে নেন তাহলে আর ফোনের সিগনাল স্ট্রেন্থের সমস্যা আর থাকবে না।

Adoro: আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সকে ব্যবহার করে আপনার সম্ভাব্য পছন্দের পোশাক বাছাই করার সহযোগী এই নামের পার্সোনালAdoro অ্যাসিস্ট্যান্ট।

Appaie: সফ্টঅয়্যার তৈরিতে কাজে লাগবে এই অ্যাপ। আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ব্যবহার করে স্বয়ংক্রিয় এই অ্যাপ ডেভেলপার একটি বটের মাধ্যমে কোডিংয়ের সুযোগ দেয়। এবং ডেভেলপারদের অ্যাপস তৈরি করতে এবং সফ্টঅয়্যারের বাগ ফিক্স করতে সাহায্য করে। ফলে এই অ্যাপটিকে অ্যাপ ডেভেলপারদের শিক্ষক, সহকর্মী কিংবা গাইড বলতে পারেন।

Datamail: ইমেল ঠিকানা কেন ইংরেজিতেই হবে? এবার আপনার নিজের ভাষায় তৈরি করুন আপনার নিজের ইমেল ঠিকানা। ব্যবস্থা করে দিচ্ছে Datamail ফলে ইন্টারনেটের সুবিধে এবার দেহাতের প্রত্যন্ত গ্রামেও পৌঁছবে নিজের মাতৃভাষায় মোবাইলের মাধ্যমে Datamail এর সৌজন্যে।

Finomena: যারা ঋণ চান অনেক সময়ই তাদের আবেদন মকুব হয় না। অথচ কোনও স্পষ্ট কারণও জানানো হয় না। এই পরিস্থিতিতে একটি স্পষ্ট বন্দোবস্ত করে দেয় Finomena, বিগ ডেটার মাধ্যমে অনলাইন এবং অফলাইন ফিনান্স প্লাটফর্মের বন্দোবস্ত করে এই সংস্থা।

GreyKernel: বিভিন্ন সংস্থার প্রোডাক্টের প্রোমোশনে ভার্চুয়াল রিয়্যালিটির প্রয়োগ করে GreyKernel ৩৬০ ডিগ্রি ভিডিও, ফোটো স্ফেয়ার ইত্যাদির মাধ্যমে বাণিজ্যিক ব্র্যান্ডগুলির বিভিন্ন প্রয়োজন মেটায় এই সংস্থা।

Markt.ooo: এটি এমন একটি মার্কেট প্লেস যা আক্ষরিক অর্থেই জিরো কমিশনে কাজ করে। এবং ইকমার্স সাইটগুলিরও ইন স্টোর ইনভেন্টোরি এবং গ্রাহকদের পছন্দ অপছন্দের একটি রেকর্ডও থাকবে।

MoneyTap: এটি একটি অ্যাপ নির্ভর ক্রেডিট লাইন। চাকরিজীবীদের চাহিদা মত ধার দেয় মানিট্যাপ। শুধু মাত্র তাদেরই যাদের মাসিক রোজগার ২৫ হাজার টাকার বেশি। এবং এই নির্ঝঞ্ঝাট টাকা দেওয়ার সময় কোনও রকম লুকোনো শর্ত থাকে না। থাকে শুধু সুদ চোকানোর নিয়ম।

Pictor: এই স্টার্টআপ ইকমার্স ফোটোগ্রাফকে বদলে দিয়েছে। এই অ্যাপ বলছে হাতের মুঠোফোন দিয়ে কিভাবে ভালো ছবি তোলা যায় এবং সেগুলো তাদের টিমের লোকেরা কারেকশন করে দিলেই ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে দারুণ ভাবে ব্যবহার করা যায়। ইকমার্স সাইটগুলির জন্যে এই অ্যাপ দুর্দান্ত কার্যকর।

StintMint: স্টিন্টমিন্ট দিচ্ছে অন-ডিমান্ড টিম। কাজ এবং কাজের জন্যে দক্ষ টিমের মধ্যে অদৃশ্য সেতু গড়ে দিচ্ছে স্টিন্টমিন্ট। এবং এভাবেই ভবিষ্যতের কাজের দুনিয়া তৈরি করছে স্টিন্টমিন্ট।