রান্নার গ্যাসে GST কমিয়ে কৌশলী কেন্দ্র

1

সামনে বাজেট। ২০১৯ এ ভোট। গুজরাটের ধাক্কা। সামনে বিভিন্ন রাজ্যে ভোটের দামামা বেজে গিয়েছে। রাজনৈতিক চাপ তো আছেই পাশাপাশি জিএসটি নিয়ে মানুষের মনেও নানান ক্ষোভ বিক্ষোভ রয়ে গিয়েছে। নভেম্বরে একপ্রস্ত জিএসটির রেট কমিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এবার আরও একপ্রস্ত রেট কমাতে বাধ্য হলেন অরুণ জেটলি। তামাকের পাইপ ছাড়া প্রায় সব ক্ষেত্রেই জিএসটির বোঝা কমাল জিএসটি কাউন্সিল। ১৮ জানুয়ারি কাউন্সিলের ২৫ তম বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে ২৯টি প্রোডাক্ট এবং তেপ্পান্ন ধরণের পরিষেবার ওপর জিএসটি রেট রদবদল করা হবে। ২৫ জানুয়ারি থেকে তা কার্যকর হবে। জানিয়ে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। রদবদলের তালিকায় একবার চোখ বুলিয়ে নিন। 

ঘরোয়া রান্নার গ্যাসের দাম কমার ইঙ্গিত রয়েছে এদিনের জিএসটি রদবদলে। কেননা এতদিন ১৮ শতাংশ জিএসটি গুণতে হত এবার বেসরকারি ডিস্ট্রিবিউটারের দেওয়া রান্নার এলপিজি গ্যাসের দামের ওপর জিএসটি কমে দাঁড়াল ৫ শতাংশ। মহিলাদের মুখের হাসি আরও একটু চওড়া করলেন জেটলি সাহেব। মেহেন্দির কোণ এর দাম কমালেন। জিএসটি ১৮ শতাংশ থেকে কমে দাঁড়াল ৫ শতাংশ। চিনি থেকে তৈরি কনফেকশনারির ওয়েফার ধরণের খাবারের ওপর থেকেও কমল জিএসটির বোঝা পাশাপাশি বায়ো ডিজেল, প্যাকেজ পানীয় জলের কুড়ি লিটারের বোতল, এবং সেচের জল স্প্রে করার যন্ত্রের দামেও জিএসটি একই হারে কমল। আগে ছিল ১৮ শতাংশ এবার হল ১২ শতাংশ। রাইস ব্র্যানে জিএসটি শূন্য শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৫ শতাংশ ধার্য করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি ব্যবহৃত গাড়ির দামের ওপর থেকেও কমল জিএসটির বোঝা। আগে ২৮ শতাংশ জিএসটি ধার্য ছিল এসইউভি গাড়ির দামে। এবার তা কমে দাঁড়াল ১৮ শতাংশ। তাছাড়া ছোট সেকেন্ড হ্যান্ড গাড়ির দাম ১৮ শতাংশ থেকে কমে দাঁড়াল ১২ শতাংশ। সেচের জল স্প্রে করার যন্ত্রের পাশাপাশি সারের দামও কমছে। ফসফারিক অ্যাসিড জাতীয় সারের দামের ওপর থেকে জি এসটি ১৮ শতাংশ থেকে কমে হচ্ছে ১২ শতাংশ। পাশাপাশি হীরের মত দামী গয়নার পাথরের ওপর থেকেও কমানো হচ্ছে জিএসটি। আগে তিন শতাংশ ছিল। এখন ০.২৫ শতাংশ করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

পরবর্তী বৈঠকে জ্বালানির ওপর থেকে জিএসটি কমানো নিয়ে আলোচনা হতে পারে বলে জানা গেলেও ঠিক কবে হবে সেই বৈঠক তা নিয়ে আলোচনা হয়নি।