গুগলের Allo কি WhatsApp কে গিলে খাবে?

5

গুগল এবার বাজারে আনল তাদের সেরা প্রোডাক্ট, যা দিয়ে ওরা গিলে খেতে পারবে WhatsApp-এর একচেটিয়া বাজার। পাঙ্গা নিতে পারবে আই ফোনের সিরি কিংবা মাইক্রোসফটের করটোনার সঙ্গে। এমন একটি ম্যাসেজিং অ্যাপ এই অ্যালো যেটা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স নিয়ে কাজ করবে। এবছর মে মাসে প্রথম ডুয়ো এবং অ্যালো এই দুটি অ্যাপের কথা ঘোষণা করে গুগল।

অ্যালোর উপস্থিতি যে অ্যাপগুলিকে সরাসরি প্রতিযোগিতার মুখে ফেলে দেবে সেগুলি হল ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার, হোয়াটসঅ্যাপ, টেলেগ্রাম, হ্যাঙ্গ আউট, হাইক এবং ভাইবার সেভাবে দেখতে গেলে কিছুটা স্কাইপের বাজারেও থাবা বসাবে অ্যালো এবং ডুয়ো।

কিন্তু প্রশ্ন হল ব্যবহারকারী কেন অ্যালো ব্যবহার করতে যাবেন, যখন তাঁদের প্রয়োজন ওই অ্যাপগুলোয় ভালোই মিটে যাচ্ছে।

এখানেই গুগলের বাজি আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স। তাদের নতুন অ্যাপ অত্যন্ত স্মার্ট সে মনে রাখবে আপনার দেওয়া তথ্য গুলো। সেই অনুযায়ী আপনাকে গাইডও করবে। আপনি মোবাইল নম্বর দিয়ে লগইন করবেন ঠিকই কিন্তু আপনার গুগল অ্যাকাউন্ট সিঙ্ক করলেই পাবেন একটি অ্যাপেই সব ইমেল নোটিফিকেশন। জরুরি মিটিংয়ের নোটিফিকেশন। আপনার ফোনবুকে অন্য যারা অ্যালো ব্যবহার করছেন তাদের সঙ্গে যেমন যোগাযোগ করতে পারবেন তেমনি এই অ্যাপ থেকে বাকিদের সঙ্গেও যোগাযোগ করা যাবে। সব মেসেজ দুইপ্রান্তেই নিরাপত্তার সঙ্গে এনক্রিপ্টেড থাকবে।

গুগল বিশ্বাস করে simplicity is the beauty যারা গুগল ব্যবহার করেন তাদের কাছে এই ইন্টারফেসটা খুবই সোজা আর পরিচিত। ফলে ব্যবহারকারীর কখনওই দিকভ্রান্ত হওয়ার সুযোগ নেই। এতটাই স্মার্ট অ্যাপ যে মেশিন ল্যাঙ্গুয়েজ পড়ে ফেলে আপনার অভিজ্ঞতা এবং গুগলে নথিভুক্ত আপনার বিভিন্ন আচরণ অনুযায়ী আপনার সমস্যার সমাধান করবে অ্যালো।

চাইলে আপনি ইনকগনিটো মোডেও চ্যাট করতে পারবেন। যেখানে আপনার পাঠানো টেক্সট মেসেজ কখনওই লগড হবে না এবং গোটা চ্যাটটাই এনক্রিপ্টেড থাকবে। আর এটা করতে গিয়ে হয়ত প্রাথমিক ভাবে কিছু দুর্দান্ত স্মার্ট ফিচার এখুনি আপনি পাবেন না, কিন্তু খুব শিগগিরই সেই সমস্যারও সমাধান হয়ে যাবে। খুব বেশিদিন পুরনো মেসেজের লগ যাতে না থাকে সেই ব্যবস্থাও আছে অ্যালোতে। ইনকগনিটো মোডে আপনি চাইলে প্রোগ্রাম করতে পারেন মেসেজগুলি কখন ডিলিট হবে সেটাও।

আর সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা এই অ্যালোর দৌলতে আই ফোন ব্যবহারকারীদের নিজস্ব সঙ্গী সিরির মত পরিষেবা পাবেন। খুব বেশি সময় লাগবে না গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টের সঙ্গে বন্ধুত্ব করতে। অ্যালো অ্যাপে "@google" লিখেই যেকোনও সময় গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টের সঙ্গে কথা বলতে পারবেন। ধরুন আপনি নিউটাউনে দাঁড়িয়ে বন্ধুকে ফুলের তোড়া উপহার দিতে চান, অ্যালোর চ্যাট উইন্ডোতেই আপনি আপনার ইচ্ছেটা টাইপ করতে পারেন। অমনি অতলান্ত ঘেঁটে গুগল আপনাকে উত্তর দিয়ে দেবে। সার্চ ইঞ্জিনটা অ্যাপেই ইনবিল্ট। অ্যালো এমন একটি অ্যাসিস্ট্যান্ট দেবে যে আপনার সঙ্গে রীতিমত আলাপ করবে। আপনার যে কোনও প্রয়োজনে বন্ধুর মত পাশে থাকবে।

এসবের পরেও যদি ভাবছেন কেন এই অ্যাপটা ডাউনলোড করবেন, তাহলে বলতে পারি এই অভিজ্ঞতাটা আপনি পাওয়া উচিত কারণ আপনার চারপাশের সবাই দ্রুত স্মার্ট অ্যাসিস্ট্যান্টের সুবিধে গুলো নিয়ে ফেলবে আর হয়ত আপনি তাদের থেকে পিছিয়ে যাবেন...।