ক্যাশলেস জরিমানা নিচ্ছে বেঙ্গালুরু ট্রাফিক পুলিশ

টাকা নেই! কার্ড তো আছে! রাস্তার আইন ভাঙলে NOT ছাড়াছাড়ি। রীতিমত কার্ড সোয়াইপ করিয়ে জরিমানা নিচ্ছে বেঙ্গালুরুর ট্র্যাফিক পুলিশ। 

0

৫০০ ও ১০০০ টাকার পুরনো নোট বাতিলের সিদ্ধা্ন্তের জেরে সারা দেশ জুড়েই নানান সঙ্কট দেখা দিয়েছে। প্রতিদিনের স্বাভাবিক কাজকর্মে বাধা পড়ছে। এই পরিস্থিতির মোকাবিলায় এক অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে বেঙ্গালুরু শহরের পুলিশ বিভাগ। ট্র্যাফিক আইন ভঙ্গকারীরা এবার থেকে তাঁদের ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড সোয়াইপ করে জরিমানা দিতে পারবেন। বেঙ্গালুরু সিটি পুলিশের ডেপুটি কমিশনার (ট্র্যাফিক) অভিষেক গোয়েল ইয়োর স্টোরিকে এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন।

ডেপুটি কমিশনার অভিষেক গোয়েল জানিয়েছেন, এ ব্যবস্থা কার্যকর করতে কর্তব্যরত ট্র্যাফিক পুলিশ কর্মীদের হাতে থাকবে পয়েন্ট অব সেল বা পিওএস মেশিন। সেইসঙ্গে প্রিন্টার এবং অ্যানরয়েড ডিভাইস। জরিমানা আদায়ের পরে আইনভঙ্গকারীদের হাতে পুলিশের পক্ষ থেকে দেওয়া হবে চালান।

পুলিশ সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, শহরে ট্র্যাফিক আইন ভঙ্গকারীদের ভিতর অনে্কেই বলছেন, তাঁদের কাছে জরিমানার ৩০০ বা ৫০০ টাকা নেই। ফলে পুলিশের পক্ষ জরিমানা আদায় করতে ব্যাপক অসুবিধা হচ্ছে। ওই অসুবিধা দূর করতেই এই নতুন ব্যবস্থা চালু হচ্ছে্ আগামী সপ্তাহে ঈদের ছুটির পরেপরেই। উল্লেখ্য, চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে টোল প্লাজাতেও এই মেশিনের মাধ্যমে টাকা আদায় করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে মহারাষ্ট্রের নাসিকে পিওএস মেশিনের মাধ্যমে জরিমানা আদায়ের ব্যবস্থা চালু হয়েছে। বেঙ্গালুরু সিটি পুলিশের তরফে আরও জানানো হয়েছে, নতুন ব্যবস্থা কার্যকর করতে ১০০টি পিওএস মেশিন কর্তব্যরত ট্ৰ্যাফিক ইন্সপেক্টরদের ও অফিসারদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে। তবে এই ব্যবস্থাটি অন্তর্বর্তীকালীন।

বেঙ্গালুরুতে ট্ৰ্যাফিক আইনভঙ্গকারীদের কাছ থেকে নগদে জরিমানা আদায় করা নিয়ে কিছুদিন ধরেই নাকানিচোবানি খাচ্ছিল ট্ৰ্যাফিক বিভাগ। বহুক্ষেত্রে বচসাও হচ্ছিল। প্রসঙ্গত, নো পার্কিংয়ের এলাকার তাঁর টু হুইলারটি রাখার দায়ে কয়েকদিন আগেই জরিমানা হয় উমাশ্রী বিশ্বনাথ নামে এক আরোহীর। কিন্তু তাঁর কাছে একটি মাত্র ২০০০ টাকার নোট ছিল।

এদিকে পুলিশ কর্মীদের কাছেও ভাঙানি নেই। ফলে দুপক্ষই অসুবিধায় পড়েন। ৫০০, ১০০০ টাকার নোট বাতিলের পরে খুচরো ফেরত দেওয়া দিয়ে নৈমিত্তিক এরকম ঘটনার মুখোমুখি হতে হচ্ছে রাস্তায় কর্তব্যরত ট্ৰ্যাফিক পুলিশের কর্মীদে্র। তার জেরেই অন্তর্বর্তীকালীন ব্যবস্থা হিসাবে পিওএস মেশিনের মাধ্যমে এবার থেকে টাকা আদায় করা হবে।

বেঙ্গালুরু সিটি ট্র্যাফিক পুলিশের ডিসি অভিষেক গোয়েল বলেছেন, ট্ৰ্যাফিক আইন ভঙ্গকারীদের জরিমানা প্রদানে উদ্বেগ কমাতেই এই নতুন ব্যবস্থা চালু করা হচ্ছে।