Gauri&Nainika দিল্লির দুই কন্যে মজেছেন হাই হিলে

1

২০০২ থেকে ২০১৭ এই পনের বছরে Gauri & Nainika ফ্যাশন দুনিয়ায় যথেষ্ট নাম করেছে। এই ব্র্যান্ডে দুই নারীর নাম আছে। পাশাপাশি। দুই বোন। দুজনেরই লেখাপড়া অর্থনীতি নিয়ে। কিন্তু প্যাশন ছিল ফ্যাশনই। সেই থেকে দুই বোন অর্থনীতির পাঠ চুকিয়ে ঢুকে পরেন ফ্যাশনের পড়াশুনোয়। NIFT থেকে বেরিয়েই শুরু করে দেন Magnetic Rag তাদের প্রথম ব্র্যান্ড। ২০০২ সালে শুরু করেন গৌরি অ্যান্ড নয়নিকার যাত্রা। পনের বছর পর এবার জুতো ডিজাইনে হাত লাগালেন দুই বোন।

গৌরী করণ এবং নয়নিকা করণ। দিল্লির মেয়ে। ছোটবেলা থেকেই মনরো, হেপবার্নরাই স্টাইল আইকন ছিল। ঘরের দেওয়ালে গোটা হলিউডের স্টারডম। হাওয়ায় উড়ছে মনরোর ফ্রক। লাস্যে ভরিয়ে দিচ্ছেন ম্যাডোনা। ঘরের কোণায় উঁকি দিচ্ছেন সালমা হায়েক। ওদের পোশাকের স্টাইলই দুই বোনকে মুগ্ধ করে রেখেছিল। অর্থনীতি নিয়ে পড়াশোনা শেষ করেই ঢুকে পড়লেন ন্যাশনাল ইনস্টিউট অব ফ্যাশন টেকনোলজিতে। সেই পাঠ চুকিয়ে আর দেরি করেননি। ২০০১ সালের ডিসেম্বেরেই শুরু Magnetic Rag। যে কাপড় আকৃষ্ট করে। সেই টান থেকে দুই বোনের ফ্যাশ ফিলোজফি তৈরি হয়ে গিয়েছিল। সৌন্দর্য এবং নারীত্ব‍কে আষ্টেপৃষ্ঠে বেঁধে ফেলার ফ্যাশন। রোমান্স আর গ্ল্যামারের ক্লাসিক স্টাইল, কখনও পুরনো হয় না বলছিলেন দুই বোন।

গৌরী এবং নয়নিকা তাদের জন্য ডিজাইন করতে ভালোবাসেন যারা উপলক্ষ বুঝে পোশাক বাছেন এবং নিজেকে স্পেশাল দেখাচ্ছে ভাবতে ভালোবাসেন। পোশাকই একজন মহিলার পরিচয় ঠিক করে দিতে পারে, যে পোশাক পরে নিজে সুন্দরী এবং আত্মবিশ্বাসী হয়ে ওঠেন। তাদের মতে স্টাইল কোনও বয়েসের ধার ধারে না। পোশাকই ব্যাক্তিত্বের অন্যতম প্রধান উচ্চারণ।

২০০২ সালে নিজেদের লেবেল Gauri & Nainika লঞ্চ করেন। দেশের নানা বুটিক এবং মধ্যপ্রাচ্যেও তাঁদের কালেকশন পৌঁছে যায়। ডিজাইনের সময় ফ্যাব্রিক, কাট এবং কালারে বেশি জোর দেয় Gauri & Nainika। ওরা যখন শুরু করেন তখন ষাটের দশকের হলিউড গ্ল্যামার কুইনদের স্টাইল ফলো করার কথা ভাবেন। বিশেষ করে হেপবার্ন, মনরোররা যেসব জামা কাপড়ে হলিউড কাঁপিয়েছেন সেই স্টাইল নিজেদের ডিজাইনে নিয়ে আসেন। তাছাড়া দেশ বিদেশ ঘুরে নানা বই পড়ে যখন যা দেখেছেন তার মতো ডিজাইন করেন। গৌরী—নয়নিকার কাস্টামারের তালিকা বেশ ইর্ষণীয়। মাধুরী দীক্ষিত থেকে প্রিয়ঙ্কা চোপড়া বলিউডের হার্টথ্রবরা যেমন রয়েছেন তেমনি হলিউডেরও দরজায় কড়া নাড়ছে Gauri and Nainika। ইতিমধ্যে দুই আমেরিকান সঙ্গীতশিল্পী ক্যারি আন্ডারউড এবং টরি ক্যালি গ্র্যামির রেড কার্পেটে হেঁটেছেন গৌরী অ্যান্ড নয়নিকার ডিজাইন করা পোশাকে। koovs.com এর সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে বৃহত্তর বাজার ধরেছেন। অনলাইনে পাওয়া যাবে। দামও আড়াই থেকে সাড়ে ছ হাজারের মধ্যে রাখা হয়েছে। যাতে কাস্টামারের তালিকায় কমবয়সীদের নিয়ে আসা যায়। ডিজাইনার পোশাক সাধ্যের মধ্যে নিয়ে আসাই ছিল Koovs.com এর সঙ্গে কোলাবোরেশনের মূল উদ্দেশ্য।

শুধু ফ্যাশন নয় হোম ডেকরেও সমান সাবলীল ওদের ব্র্যান্ড। প্রায় এক দশকের বেশি ফ্যাশন জগতে কেটে যাওয়ার পর দুই বোন ঠিক করেন এবার ব্যবসা বাড়ানো দরকার। শুধু ফ্যাশনে আটকে থাকবেন না। ২০১৫ সালে লাক্সারি হোম ডেকর নিয়ে কাজ শুরু করেন। ফ্যাশনের মতোই ফার্নিচারও পাশ্চাত্য ঘেঁষা। বিশ্বের নানান আসবাব থেকে ডিজাইন সংগ্রহ করেছেন। তবে বিশেষ করে ইউরোপ ট্যুরে গিয়ে যা যা দেখতেন সেই মতো আসবাব ডিজাইন করার চেষ্টা করেছেন। ফ্যাশন ও স্থাপত্যের ইতিহাস ভালোবাসেন। তাই পুরনো ডিজাইন যেমন পোর্টার চেয়ার, লেদার এবং ভেলভেটের টপ দেওয়া ট্রেসটেল টেবিল মতো জিনিসপত্র ডিজাইন করছেন ওরা।

জুতো দুই বোনের রীতিমতো দুর্বলতার জায়গা, বিশেষ করে হাই হিল। ফলে জুতো ডিজাইনের সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন চটজলদি। গোলাপি পাম্প সু, সোনালি ব্লক হিল, টাই আপ স্যান্ডেল, চুমকি এবং ফারের হাইহিল অসাধারন সব ডিজাইন নিয়ে জুতোর সম্ভার খুলে বসেছে Gauri & Nainika ব্র্যান্ড। ‘প্রথমবার ওরা জুতো ডিজাইন করছেন। এই অভিজ্ঞতা বেশ মজার। এই নিয়ে দ্বিতীয় বার KOOVS এর সঙ্গে কোলাবোরেশনে গেলেন।

পোশাক,জুতো, ফার্নিচার—ডিজাইনের জগতে প্রায় ১৬ বছর কাটিয়ে দিয়েছেন গৌরী এবং নয়নিকা। যখনই কিছু ভেবেছেন সাফল্যোর সঙ্গে সেই লক্ষ্যে পৌঁছেছেন দিল্লির দুই কন্যা। ব্যবসায়িক বুদ্ধি যেমন ইউএসপি তেমনি সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়াটাও জরুরি। বলছেন উদ্যোক্তা বোনেরা। তরুণ উদ্যোক্তাদের উদ্দেশ্যে গৌরী—নয়নিকার পরামর্শ, লেগে থাকলে সাফল্য আসবেই। দরকার শুধু ধৈর্য আর পরিশ্রম।