স্টার্টআপদের 'পাখির চোখ' তেলেঙ্গানার হায়দরাবাদ

0

অ্যাঁন্ত্রেপ্রেনিয়রশিপ বড় ছোঁয়াচে রোগ। সেই রোগ রেহাই দেয়নি দেশের নবীনতম রাজ্য তেলেঙ্গানাকেও। শোনা যাচ্ছে খুব শিগগিরই শুরুয়াতি উদ্যোগপতিদের সবথেকে প্রিয় ঠিকানা হতে চলেছে হায়দরাবাদ। অন্ততঃ এমনটাই দাবী করছেন তেলেঙ্গানার পঞ্চায়েত রাজ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী কে টি রামা রাও। 

ব্যাঙ্গালোরের পর দেশের বৃহত্তম IT Hub হতে চলেছে ২৯তম রাজ্যের রাজধানী শহরে। তরুণ উদ্যোগীরা এই অঞ্চলে তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পের যে বিপূল সম্ভাবনা রয়েছে তা টের পেয়েছেন। এবার তাঁরা সেই সম্ভাবনাকে পুঁজিতে বদলে ফেলতে চাইছেন।

তেলেঙ্গানা সরকার হায়দরাবাদের গাচিবওলিতে International Institute of Information Technology র ক্যাম্পাসে দেশের বৃহত্তম T-Hub তৈরি করতে চলেছে। রামা রাও জানিয়েছেন, আর বছর তিনেকের মধ্যেই কাজ শেষ হবে। বিনিয়োগ করা হয়েছে দেড়শো কোটি টাকা। এই ইনকিউবেশন সেন্টারে স্থানীয় স্টার্টআপরা শিখছেন,জানছেন,নিজেদের মধ্যে আইডিয়া শেয়ার করছেন ও চলছে ব্যবসার নানা খুঁটিনাটি আর বাণিজ্যনীতি নিয়ে জল্পনা। ভেঞ্চার ক্যাপিটালিস্টরা বিনিয়োগের জন্যে ঢুঁ মারতে শুরু করে দিয়েছে এখানে। শুরুয়াতিরা এখানে আসছেন প্ল্যান নিয়ে আর ফিরছেন প্রোডাক্ট হাতে করে। আইনি ও ব্যবসায়িক সহায়তার জন্য রাওরা হাত মিলিয়েছেন NALSAR University of law, ISB (Indian School of Business) এর মতো আরও অনেক বড় বড় সংস্থার সঙ্গে। তাছাড়াও তাঁরা TASK (Telangana Academy for Skill and Knowledge) এই নামের একটি অলাভদায়ক সংস্থাও বানিয়ে ফেলেছেন। এঁদের উদ্দেশ্য ইন্ডাস্ট্রিকে কিছু শিক্ষিত ও যোগ্য প্রতিভা উপহার দেওয়া।

ই-কমার্স মানচিত্রে তেলেঙ্গানা 'লাভলি ডেস্টিনেশন'

গত এক বছরে হায়দরাবাদ ই-কমার্স দুনিয়ার অনেক রাঘব বোয়ালদের আকর্ষণ করতে সফল হয়েছে। কোথুরে অ্যামাজন তাঁদের ২ লক্ষ ৮০ হাজার বর্গ ফুটের fulfillment center খুলেছে। শুধু তাই নয়। রামা রাওয়ের দাবি, ২৫ লক্ষ বর্গ ফুটের একটি ক্যাম্পাস খুলবে অ্যামাজন। যেটি আমেরিকার পর তাঁদের সবচেয়ে বড় ক্যাম্পাস হবে।

ই-কমার্সের দৈত্য ফ্লিপকার্টও হাজির তেলেঙ্গানায়। রাঙ্গা রেড্ডি জেলা লাগোয়া মেডচল মন্ডলের গুনডলাপোচামপল্লীতে তাদের সবচেয়ে বড় automated fulfillment center টি রয়েছে। ২ লক্ষ ২০ হাজার বর্গফুট জায়গা জুরে এই বিশাল সেন্টারে স্টোরেজ ক্ষমতা ৫ লক্ষ ৮৯ হাজার কিউবিক ফুট।

ফ্লিপকার্টের দৌলতেই প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সতেরো হাজার কর্মসংস্থান হয়েছে।

রাও বলেন, তাঁরা গেম ও অ্যানিমেশনের দিকেও নজর দিচ্ছেন। অ্যামাজন ওয়েব সার্ভিস,মাইক্রোসফট ও আরও অনেকে হায়দরাবাদে তাঁদের cloud based data center বানিয়েছে। গত এক বছরে এই শহর উবের,গুগুল,অ্যামাজনের মতো তথ্যপ্রযুক্তির বড়কর্তাদের নিজেদের দিকে টানতে শুরু করে দিয়েছে।

Data, Data analytics, IB security, ESDM ( Electronic System Design and Manufacturing) ইত্যাদির প্রতি তেলেঙ্গানা সরকারের বাড়তি নজরে খুশি হয়ে মাইক্রোম্যাক্সের মতো আরও বহু মোবাইল কোম্পানি এই রাজ্যে ব্যবসা করতে উৎসাহি। হায়দরাবাদের থেকে সামান্য দূরে মাহেশ্বরম মন্ডলে Hardware নির্মাতারা ৬০০-৭০০ একর এলাকা জুরে তাঁদের দুটি Electronic Hardware Manufacturing cluster তৈরি করতে চায়।

তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পে দেশ এগোচ্ছে। আর সেই অগ্রগতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগোতে তেলেঙ্গানাও তৈরি। সরকারি উদ্যোগে ডিজিটাল শিক্ষা বিস্তারের মিশন শুরু হয়েছে এই রাজ্যে। সরকারের আশা, এর ফলে এই রাজ্যের প্রত্যেক বাড়িতে অন্তত একজন তথ্যপ্রযুক্তিতে শিক্ষিত ব্যক্তি থাকবেন।

প্রথমত, ডিজিটাল শিক্ষার উন্নতি তেলেঙ্গানাকে দেশের সর্ববৃহৎ IT Hub হতে যেমন সাহায্য করছে। তেমনি তেলেঙ্গানার ইনফ্রাস্ট্রাকচারও দারুনভাবে অনুকূল। পানীয় জল প্রকল্পের আওতায় ১,১৫,০০০ কিমি এলাকায় পাইপ লাইন পাতার কাজই বলুন আর ৮০ লক্ষ বাড়িতে fibre optic দিয়ে digital broadband connection পৌঁছে দেওয়ার নজিরই বলুন।  দেশের সর্ব কণিষ্ঠ রাজ্য তেলেঙ্গানা উন্নয়নের রাজপথে রেকর্ড দৌড় দৌড়েচ্ছে। ইতিমধ্যেই তথ্য প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বলতে শুরু করেছেন তেলেঙ্গানাই নাকি most well connected রাজ্য। শিল্পের সম্ভাবনাও তাই তুঙ্গে। ব্যাঙ্গালোর পুনের সঙ্গে সমস্বরে উচ্চারিত হচ্ছে তেলেঙ্গানার নাম। তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবসায়ীদের সবচেয়ে প্রিয় কেন্দ্র হয়ে উঠছে দ্রুতই। রাও