স্টিয়ারিং ছুঁয়ে এক আকাশ স্বপ্ন দেখেন ওলার ‘পিঙ্ক ক্যাব’ চালিকারা

মহিলাদের একা যাতায়াতের কথা উঠলেই তাঁদের নিরাপত্তা নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন উঠে যায়। কিন্তু একা ট্যাক্সিতে এক জায়গা থেকে আর এক জায়গায় ‌যাওয়ার ক্ষেত্রে মহিলারা অনেকটাই নিশ্চিন্ত হতে পারেন, ‌যদি তার চালিকাও মহিলা হন। একথা মাথায় রেখেই দেশের অন্যতম ক্যাব পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা ওলা এক নতুন উদ্যোগ নিয়েছে। শুধু মহিলা চালক তৈরি করাই নয়, সেইসঙ্গে মহিলা উদ্যোগকেও উৎসাহ দেওয়ার লক্ষ্য স্থির করেছে তারা। মহিলা ওলা চালক তৈরি করতে ইতিমধ্যেই ওলা পিঙ্ক নামে একটি প্রশিক্ষণ শিবির শুরু করা হয়েছে।

0

ওলা চালকের ভূমিকায় মহিলাোদের উৎসাহ দিতে এম্পাওয়ার প্রগতি নামে একটি সংস্থার সঙ্গে মউ চুক্তি সাক্ষর করেছে ওলা। চালক হিসাবে মহিলাদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে কাজ করার লক্ষ্যে এই মউ চুক্তি অগ্রণী ভূমিকা নেবে বলে দাবি করেছে ওলা কর্তৃপক্ষ। পিঙ্ক ক্যাবের মাধ্যমে ট্যাক্সি চালানোকে পেশা হিসাবে বেছে নেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ দেওয়ার ক্ষেত্রে ওলা ইতিমধ্যেই সাফল্য পেতে শুরু করেছে। সমাজের অবহেলিত শ্রেণির মহিলাদেরই এক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দিচ্ছে ওলা।

ওলার পিঙ্ক ক্যাব প্রশিক্ষণে যোগ দেওয়ার ক্ষেত্রে মহিলাদের একটি ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকা জরুরি। এটাই হল প্রশিক্ষণে সামিল হওয়ার ছাড়পত্র। প্রশিক্ষণ চলাকালীন তাদের শেখানো হচ্ছে একগুচ্ছ বিষয়। ‌যারমধ্যে থাকছে গাড়ি চালানোর তত্ত্বগত দিক, অনুশীলন, সাধারণ কিছু ‌যন্ত্র সম্বন্ধে ধারণা দেওয়া এবং রাস্তা চেনা। এছাড়াও যাত্রী সুবিধার কথা মাথায় রেখে তাদের ইংরাজিতে কথা বলা ও জনসং‌যোগ দক্ষতা বৃদ্ধির তালিমও দেওয়া হচ্ছে। শেখানো হচ্ছে গাড়ির প্রযুক্তি থেকে আদপ-কায়দা সবকিছুই। সাফল্যের সঙ্গে এই প্রশিক্ষণ শেষেই মিলবে ওলা চালক হিসাবে ছাড়পত্র।

ওলার চালক হিসাবে যোগ দেওয়ার আগে কেওয়াইসি জমা দিতে হবে মহিলাদের। জমা রাখতে হবে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রও। এছাড়া পুলিশ ভেরিফিকেশনের পরই ওলা অ্যাপে কোনও চালকের নাম তুলছে ওলা কর্তৃপক্ষ। মহিলাদের ওলা চালক হিসাবে স্বাবলম্বি করে তোলার পাশাপাশি ‌যাত্রী সুরক্ষা নিশ্চিত করতে পুলিশ ভেরিফিকেশনের জন্য অথব্রিজের মত দেশের প্রথমসারির সংস্থার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে ওলা।

যেহেতু সমাজের অবহেলিত শ্রেণির মহিলাদের এই কাজে স্বাবলম্বি করার পরিকল্পনা করা হয়েছে, তাই তাদের অর্থনৈতিক কিছু সমস্যা থাকতে পারে। সেকথা মাথায় রেখে তাঁদের দৈনিক ঋণ মেটানোর শর্তে দেশের কিছু প্রথমসারির ব্যাঙ্ক ও অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণ পাইয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করে দিচ্ছে ওলা। এমনকি কেউ নিজের গাড়ি কিনে ব্যবসা করতে চাইলে তাদের জন্য ১০০ কোটি টাকার একটি ঋণ দেওয়ার ফাণ্ড তৈরি করেছে তারা। এই মুহুর্তে এমন অনেক মহিলা আছেন ‌যাঁরা নিজের গাড়ি কিনে সফলভাবে ওলার ব্যবসা চালাচ্ছেন।


ওলার যাত্রী ও চালকদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে বহুস্তরীয় সুরক্ষাকবচের ব্যবস্থা করেছে ওলা। ওলা অ্যাপে থাকছে এসওএস ফিচার। থাকছে জিপিএসের মাধ্যমে কোনও বন্ধু বা পরিবারের কারও ফোনে কোথায় গাড়ি রয়েছে সেকথা জানানোর ব্যবস্থা। এছাড়া ২৪ ঘণ্টার জন্য থাকছে ওলা কল সেন্টারের সুবিধা। যেকোনও সমস্যায় সেখানে ফোন করতে পারবেন যাত্রী বা চালকরা। এমনকি কোনও জায়গায় অসুস্থ অনুভব করলে কোনও মহিলা ওলা চালক সেইখানেই গাড়ি থামিয়ে দিতে পারবেন। ডেকে নিতে পারবেন অন্য চালককে।

আগামী তিন বছরের মধ্যে দেশ জুড়ে ৫০ হাজার মহিলা চালক তৈরির লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছে ওলা। মহিলাদের নিজের পায়ে দাঁড়াতে, স্বাবলম্বি করে তুলতে অল ইন্ডিয়া উওমেনস এডুকেশন ফান্ড অ্যাসোসিয়েশন ও নন-ট্রাডিশনাল এমপ্লয়মেন্ট ফর উওমেন নামক দুটি সংস্থার সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছে দেশের এই অন্যতম ক্যাব পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা। মহিলাদের নিজের পায়ে দাঁড় করাতে ওলার এই পিঙ্ক ক্যাব উদ্যোগ ইতিমধ্যেই দেশ জুড়ে সুখ্যাতি কুড়িয়েছে।

Related Stories