গণধর্ষণ, খুন! স্তম্ভিত Ola! লজ্জিত কলকাতাও

0

ঠিক যেই মুহূর্তে এটা ভাবতে এবং ধীরে ধীরে বিশ্বাস করতে শুরু করি যে আমাদের চারপাশের জগতটা নিরাপদ, বাসযোগ্য আর ছায়াঘন শান্তির নীড় হয়ে উঠছে, তখনই একটা বিভৎস নৃশংস ঘটনা আমাদের কাঁপিয়ে দিয়ে যায়। কলকাতা মাঝরাতের অন্ধকারের সুযোগ নিয়ে আরও একবার যে জঘন্যতম অপরাধের উদাহরণ দিল তা ভাবলেও শিউরে উঠছি। দুজন Ola চালক শঙ্কর শা আর গুড্ডু সিং একটি ১২ বছরের কিশোরীকে গণধর্ষণ করে তারপর শ্বাসরোধ করে খুন করে শহরের খালের ধারে নিথর দেহটি ব্রিজের ওপর থেকে ছুঁড়ে ফেলে দেয়। রিপোর্ট বলছে মেয়েটির মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ ওই দুজন অপরাধী Ola চালককে আটক করেছে। জেরার মুখে চালক দুজন জঘন্য এই অপরাধের কথা নিজে মুখে স্বীকারও করেছে। তারা জানিয়েছে যে তারা মত্ত অবস্থায় ছিল। ফুটপাত থেকে মেয়েটিকে গাড়িতে তুলেছিল। পুলিশকে জানায় তারা একটু ফুর্তি করার মতলবে ছিল। মেয়েটিকে ধর্ষণ আর খুন করার পর পার্ক সার্কাস ব্রিজের খালের জলে ফেলে দেয় ওর মৃতদেহ। 

ঘটনায় প্রতিক্রিয়া জানিয়ে Ola কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বিষয়টিতে তারা হতবাক। প্রাথমিক শনাক্ত করণের পর ওই চালকদের অ্যাকাউন্ট রেজিষ্ট্রেশান তৎক্ষণাৎ নাকচ করা হয়েছে। তবে ওদের অনুসন্ধান অনুযায়ী অপরাধটি Ola প্ল্যাটফর্মের আওতায় ঘটেনি। Ola কর্তৃপক্ষ ভবিষ্যৎ তদন্তে সবরকমের তথ্য দিয়ে পুলিশকে সাহায্য করবে বলে কথা দিয়েছে।

এমন ঘটনা মেট্রোর বুকে নতুন নয়। Ola আর Uber চালকদের বিরুদ্ধে এর আগেও এমন অভিযোগ উঠেছে। গতবছর ডিসেম্বরে রাজধানী শহরে একজন মহিলাকে ধর্ষণ করে এক Ola চালক। মুখ খুললে তাঁকে প্রাণে মারার হুমকিও দেওয়া হয়। এমতাবস্থায় বিরাট প্রশ্ন চিহ্ন উঠে আসছে অ্যাপবেসড যানবাহনগুলোর নিরাপত্তা নিয়ে। প্রশ্ন উঠছে শহর কলকাতার নিরাপত্তা নিয়েও।