ই-কমার্সে বাংলার 'হাটকে' স্টার্টআপ

0

গৌরব ডাহাকে, প্রশান্ত সিং, শ্রীকান্ত সেতুমাধবন তিন বন্ধু। তিন জনই তখন আইআইটি খড়গপুরের ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র। বন্ধুর জন্মদিনে উপহার দেওয়ার জন্য আইপড খুঁজছিলেন গৌরব। তিন ঘণ্টা এই সাইট ওই সাইট করে একটা আইপড কিনলেন বটে, ডেলিভারি পেলেন বন্ধুর জন্মদিনের পর। গৌরব তখনই বুঝতে পেরেছিলেন ঠকে গিয়েছেন। অন্য জায়গা থেকে কিনলে আরও ভালো দামে পেয়ে যেতেন আইপডটি।

সেই ঘটনা বারবার খোঁচাতে থাকে গৌরবকে। বন্ধু শ্রীকান্ত ও প্রশান্তকে বললেন। ভাবলেন কীভাবে গ্রাহকদের এই যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দেওয়া যায়। আর এভাবেই খড়গপুর আইআইটির তিন প্রক্তানীর হাত ধরে জন্ম নিল BuyHatke, অনলাইন প্রোডাক্ট অ্যান্ড প্রাইস ডিসকাভারি সার্ভিস।

অনলাইনে যেকোনও পণ্য কিনতে গিয়ে গ্রাহকরা যেসব সমস্যার সম্মুখীন হন, এক কথায় তার সহজ সমাধান BuyHatke। এই ওয়েবসাইটে গ্রাহকরা অলরাউন্ড শপিং উপভোগ করেন। কীভাবে? BuyHatke গ্রাহককে কোনও পণ্যের দাম বলে দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তার তুল্যমূল্য বিচার, প্রাইস ট্রেন্ড বলে দেবে কেনার সঠিক সময়, দাম কমলে তার অ্যালার্ট এবং সবশেষে চেকআউটের সময় কুপন। মাত্র ২ লাখ টাকা পুঁজি নিয়ে তিন বন্ধু BuyHatke শুরু করেছিলেন। কয়েক মাসের মধ্যে ব্রেক ইভেনে পৌঁছে যান। তিন ভাবে রেভিনিউ আসে। গ্রাহকদের সাইটে যুক্ত করে, বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে এবং খুচরো বিক্রেতাদের জন্য তালিকা দিয়ে। ২০১৩ সালে ৫০টি ওয়েবসাইট ছিল BuyHatke এর। এই মুহূর্তে ভারতে BuyHatke এর ৩০০ টি ওয়েবসাইটে 8 কোটিরও বেশি পণ্যের কেটালগ রয়েছে।

BuyHatke এর চিফ ডিজাইন শ্রীকান্ত সেতুমাধবন জানান, ‘গ্রাহকরা যাতে সবচেয়ে ভাল শপিং রিসার্চ করতে পারেন তার ব্যবস্থা করেছি আমরা। পণ্য কিনতে গিয়ে গ্রাহক কীভাবে সিদ্ধান্ত নেবেন তার সব দিক বিবেচনায় রাখি। প্রতি মাসে অন্তত এক কোটি গ্রাহককে আমাদের ওয়েবসাইটে টেনে আনতে চাই, বছরের শেষে যাতে দেখতে পাই শপিং নিয়ে তাঁদের কোনও অনুযোগ নেই’।

বিভিন্ন এক্সটেনশন, ওয়েব এবং মোবাইলের মাধ্যমে ১ কোটি জিনিসপত্র দেখার ব্যবস্থা করে দেয় BuyHatke। গৌরব জানান, বর্তমানে তাঁদের ৬০ শতাংশ ব্যবসা আসে ওয়েবসাইট ও এক্সটেনশন থেকে। বাকি ৪০শতাংশ মোবাইল অ্যাপ থেকে। এনরয়েড, আইওএস এবং উইন্ডো ফোনের মাধ্যমেও প্রচুর ব্যবসা করে BuyHatke। কিছু কিছু ই-কমার্স পোর্টাল মোবাইল এবং ডেক্সটপ ওয়েবসাইট বন্ধ করে দিয়েছে। শুধু মোবাইল অ্যাপ চালু রেখেছে। গৌরব মনে করেন, মোটেও ঠিক করেনি সংস্থাগুলি। তাঁর‌ যুক্তি ‘গ্রাহকদের কোনও কিছু থেকে বঞ্চিত করা ঠিক নয়। ফেসবুকের ৭০ শতাংশের ওপর রেভিনিউ আসে মোবাইল অ্যাড থেকে। তারপরও কিন্তু তারা ওয়েবসাইট বন্ধ করেনি। এমনকী গুগুল এনরয়্ড অধিগ্রহণের পরও ওয়েবসাইট বন্ধ করেনি। গ্রাহকদের পণ্য বাছাইয়ে সুবিধার কথা ভেবে সংস্থাগুলির উচিত মোবাইল এবং ওয়েবের সমান উপস্থিতি ধরে রাখা।

যদি ই-কমার্স সাইট অনেক হয় তবে, দামের তুল্যমূল্য বিচার করার ইঞ্জিনও প্রচুর। MySmartPrice এর Accel, ছাড়াও কয়েকটি ইঞ্জিন যেমন, প্রাইস চেক ইন্ডিয়া, প্রাইস বাবা, ফাইন্ড ইয়োগি রয়েছে। ‘প্রথমে অনেকেই আমাদের ভেঞ্চারে বিনিয়োগ করতে চেয়েছেন। কিন্তু আমরা নিজেদের সম্বলে নির্ভর করতে চেয়েছি, ব্রেক ইভেন করেছি এবং খুব দ্রুত বাড়ছি। এবার বাজার থেকে পুঁজি জোগাড়ের সময় হয়েছে’, বলেন গৌরব। ই-কমার্সে প্রতিযোগিতায় টিকতে হলে লড়াই করতে হবে। গৌরব বিশ্বাস করেন, ভালো টিম পাওয়ায়, টিকে থাকা এবং এগিয়ে যাওয়া সহজ হয়েছে।

কৃষ গোপালকৃষ্ণণ, জাপানি ই-কমার্স এবং বিনিয়োগকারী সংস্থা BEENOS বিনিয়োগ করেছে BuyHatke এ। BEENOS এর কর্নধার টেরোহাইড সাতো বলেন, ‘ভারতের ই-কমার্স ইন্ডাস্ট্রি দারুণ গতিশীল। এবং পণ্যের দামের তুলনামূলক মাপকাঠি তৈরি করায় গ্রহকদের অনেক সাশ্রয় হয়। BuyHatke টিম যে গ্রাহকদের জন্য নতুন ধরনের এই উদ্যোগ নিয়েছে সেটা আমাদের পছন্দ হয়েছে’।

উচ্ছ্বসিত কৃষ গোপালকৃষ্ণ বলেন, ‘BuyHatke এ উদ্দীপিত তরুণদের দারুণ দল দেখে আমি মুগ্ধ। খুব ভালো প্রডাক্ট তৈরি করেছে। ভারতের গ্রাহকদের বিশ্বমানের শপিং রিসার্চ এক্সপিরিয়ান্স দেওয়ার ক্ষমতা আছে প্রডাক্টটির’।

‘দামের তুল্যমূল্য বিচার করে এমন অনেক পোর্টালের অসুবিধা হল, সীমিত সংখ্যক পণ্যের তালিকা। কিছু আবার মোবাইলে দেখা যায় না। কিছু আবার ইলেকট্রনিক্স পণ্যে সীমাবদ্ধ। আমাদের ৪৭টি বিশ্বাসযোগ্য পোর্টাল রয়েছে। এবং আমরা গ্রাহকদের শুধু দামের তুলনাই দেখাই না, একই সঙ্গে আরও যে সম্পর্কিত পণ্য রয়েছে তাও দেখাই’, বলেন গৌরব। নেটে ৪ কোটি পণ্যের তালিকা নিয়ে BuyHatke এর দাবি, মাসে পাঁচ লক্ষ গ্রাহক পেজ দেখেন। তাঁদের ক্রোম এক্সটেনশন এবং মোবাইল কম্পারিজন প্ল্যাটফর্মও রয়েছে। প্রত্যেক কেনাকাটায় গ্রাহকের প্রথম পছন্দ হওয়ার লক্ষ্য রয়েছে BuyHatke এর। এই উচ্চকাঙ্খাই BuyHatke কে প্রতিনিয়ত উন্নত করার উৎসাহ যোগাবে আইআইটি খড়গপুরের তিন প্রাক্তনীকে।