আন্তর্জাতিক বাংলার বাণিজ্য উৎসবে গোটা বিশ্ব সমিল

2

এবছরের বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিটের নয়টি পার্টনার দেশের একটি ইটালি। এই সামিটে অংশগ্রহণ করতে ইটালি থেকে এসেছে ৩০ টি সংস্থা। প্রধানত পরিবহণ এবং পরিকাঠামো, ধাতু এবং চামড়ার ব্যবসায় ইটালির আগ্রহী উদ্যোগপতিরাই এসেছেন কলকাতায়। দুদেশের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পেয়েছে। কূটনৈতিক সম্পর্কও গত ৭০ বছরে আরও শক্তিশালী হয়েছে। গতবছর বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিটে ইটালির প্রতিনিধিরা যখন এসেছিলেন তখন পশ্চিমবঙ্গে দুটি জয়েন্ট ভেঞ্চারের ঘোষণা হয়েছিল। ইটালির দুটি সংস্থার সঙ্গে রাজ্যের দুটি সংস্থার গাঁটছড়া হয়। একবছরে ভালোই ব্যবসা এসেছে এই জয়েন্ট ভেঞ্চার থেক। পরিকাঠামোয় এবং তথ্যপ্রযুক্তিতে বিনিয়োগ করেছে ইটালির ওই দুই সংস্থা। এবছর ব্যবসার পরিমাণ বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। চামড়া শিল্পে বিনিয়োগ হবে। জানালেন ইটালির জাতীয় ট্যানারি এবং চর্মজ সামগ্রীর ক্লাস্টারের প্রতিনিধি প্রফেসর পাওলো গুরিসাট্টি। ইটালির কনসাল জেনারেল দামিয়ানো ফ্রাঙ্কোভি বাঙলার বাণিজ্যের পরিবেশ নিয়ে বেশ খুশি। এছাড়াও এই বাণিজ্য সম্মেলনে সহযোগী দেশ হিসেবে অংশগ্রহণ করছে আরব, জাপান, জার্মানি, ব্রিটেন, ফ্রান্স, পোল্যান্ড, দক্ষিণ কোরিয়া এবং চেক প্রজাতন্ত্র। এছাড়াও বাণিজ্য সম্মেলনে অংশ নিয়েছে ৩০টি দেশ। এসেছে মার্কিন প্রতিনিধি দলও।

এদিকে জাপানি প্রতিনিধিরা বাংলার পরিকাঠামো শিল্পের পাশাপাশি কৃষি ক্ষেত্র নিয়েও যথেষ্ট উৎসাহী। উত্তরবঙ্গে স্ট্রবেরি চাষ নিয়ে উৎসাহ ইতিমধ্যেই ব্যক্ত করেছে এই প্রতিনিধি দল। উত্তরবঙ্গের স্ট্রবেরি সংরক্ষণ এবং রফতানি যোগ্য করে তোলার পরিকাঠামো তৈরিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। পাশাপাশি বেঙ্গল সামিটের মঞ্চ থেকেই পোল্যান্ডের হাই কমিশনার জানিয়েছেন বাংলার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে কাজ করতে চায়। কয়লা, গবেষণা এবং প্রযুক্তি ক্ষেত্রে পোল্যান্ড আগ্রহী। রাজ্যে বিনিয়োগের উপযুক্ত সম্ভাবনা খতিয়ে দেখতে পোল্যান্ড থেকে বেশকিছু প্রতিনিধি এসেছেন।