সমকামী ইমাম ডাই আবদুল্লা যা বলছেন

0

ইতিহাস স্বয়ং সাক্ষী, সমকামিতার সঙ্গে ধর্ম লড়ে যাচ্ছে সব দেশে, সব ধর্মীয় মতে। যেখানে একদিকে LGBT কমিউনিটি দিনে দিনে ক্ষমতাশালী হচ্ছে, সেখানে অন্যদিকে তাঁদের বিরুদ্ধে নৃশংসতাও বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। সাম্প্রতিক Orlando shooting পূর্ব নির্ধারিত সেই বর্বর ভয়ঙ্কর আতঙ্কবাদী হানার উদাহরণ। ডাই আবদুল্লা ইসলাম এবং সমকামিতা বিষয়ে এক সাক্ষাৎকারে জানান, খুব অল্প সংখ্যক মানুষই একথা জানেন যে কিছু মুসলিম ইমাম সমকামী।

অ্যাফ্রো আমেরিকান বাষোট্টি বছর বয়স্ক ডাই আবদুল্লা পৃথিবীর পরিচিত সমকামী ইমামদের একজন। ডেট্রয়েট শহরে দক্ষিণী বাপ্টিস্ট পিতা মাতার ঘরে জন্ম। ত্রিশ বছর বয়সে তিনি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। ডাই আইনে স্নাতক। ওয়াশিংটন ডিসির একটি LGBT কমিউনিটির প্রতি বন্ধুভাবাপন্ন মসজিদের ইমাম তিনি। Orlando shooting খুবই মর্মাহত করেছে তাঁকে। মাটিনকে পুরুষে পুরুষে চুম্বন বিব্রত করেছে। ডাইর মতে ঘৃণার জন্ম এভাবেই হয়। মুসলিম স্টেটে পুরুষে পুরুষে চুম্বন একটি প্রথা আর পারস্পরিক আস্থার সংকেত। মুসলিমরা নিজেদের খুব সংকীর্ণতার বেড়াজালে বেঁধে ফেলছে। ফলে ভেঙ্গে পড়ছে বহু ইসলামি যুক্তিবাদ। কোরাণ শরিফে কোথাও বিভ্রান্তিকর কথা নেই। ডাই বললেন, সমস্যা হল মানুষ কিভাবে ইসলামকে ব্যাখ্যা করছেন।

ডাই জানিয়েছেন ইসলাম সমকামিতাকে সম্মতি দিয়েছে। তাঁর মতে কোরাণে এর বিরুদ্ধে কিছুই বলা নেই। বরং এই ধর্মগ্রন্থে এমন পুরুষের উল্লেখ আছে যাঁরা মহিলাদের প্রতি আসক্ত নন। ২৪ নম্বর সুরার ৩১ আর ৩২ নম্বর আয়াতে, বিশেষত ৩২ নম্বর আয়াতে, একথা বলা হয়েছে যে, অবিবাহিতকে বিবাহ করো, এমনকি সে যদি মহিলা অথবা পুরুষ ভৃত্য শ্রেণীর হয়, তথাপি আপত্তি নাই। কোরাণে বিবাহের জন্য কোনও লিঙ্গ নির্ধারিত নেই। ডাই বলেন, সৌদি আরবে তাঁর গবেষণায় তিনি কোরাণে সমকামিতা নিয়ে বেশ ইতিবাচক মন্তব্য খুঁজে পেয়েছেন। কিন্তু এই সমকামী ইমাম এও জানালেন যে, Wahhabist এবং Salafist স্কুলের সাহিত্যে সমকামিতা বিষয়ে ভুল বক্তব্য রয়েছে, যা কিনা বিভ্রান্তিকর।

পশ্চিমে এমন অনেক উদারপন্থী মুসলিম বিদ্যান পন্ডিত আছেন যাঁরা একথা মানেন এবং বিশ্বাস করেন যে, ইসলামের আত্মাকে গভীরে অনুভবের আর তার ভিতর দিয়ে আনন্দে থাকার সবচেয়ে ভালো পন্থা হল ধর্মনিরপেক্ষ সমাজ সৃষ্টি করা। ডাই তাঁদের সঙ্গে সম্পূর্ণ একমত। কয়েকজন ইমাম ১৮০০ শতাব্দির মধ্যভাগে প্যারিসে গেছিলেন। তাঁরা সেখানে ইসলাম ধর্মাবলম্বী দেখেছেন, তবে কোনও মুসলমান দেখেননি। আবার যখন ডাই নিজে কোনও মুসলিম স্টেটে গেছেন, তিনি সেখানে ইসলাম মেনে চলেন এমন কাউকে দেখেননি।

ডাইর মতে, যদি প্রশ্ন ওঠে তাঁদের কি আদৌও কোনও অস্তিত্ব আছে, তার উত্তর,অবশ্যই আছে। গোটা দুনিয়ায় বারো জন গে ইমাম আছেন, যাঁদের আটজন ঘোষিত সমকামী। একজন ইমামের পক্ষে নিজেকে জনসমক্ষে সমকামী ঘোষণা করাটা কঠিন হয়না, যদি সাংস্কৃতিক সমর্থন থাকে। পশ্চিমে সমকামী ইমাম কিংবা গে মুসলমানের প্রতি সমর্থন অনেক বেশি। কিন্তু মুসলিম স্টেটে বিষয়টা সত্যিই সমস্যার। এটি ঠিক সরকারি সমস্যা নয়, সামাজিক আর সাংস্কৃতিক স্তরে এই সমস্যার বীজ প্রোথিত।