স্যালোন থেকে ইন্সটিটিউশন, সাফল্যে সুন্দর রীতা

0

ছিল শখ। হল পেশা। শুধু পেশাই নয়, রীতিমতো রূপচর্চার জগতে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন রীতা চট্টোপাধ্যায়। ইলেনা বিউটি ক্লিনিক অ্যান্ড স্পা’র পরিচিতি শুধু কলকাতায় নয়, সারা দেশে। চুল পড়া, মাথায় খুশকি, ত্বকের সমস্যায় স্থায়ী সমাধানে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ রীতার ইলেনা বিউটি ক্লিনিক অ্যান্ড স্পা।

ছোট বেলা থেকেই সাজানোর শখ ছিল। ‘সবসময় চাইতাম সবাইকে দেখতে সুন্দর লাগুক। কিছু অভিজ্ঞতা থেকে বুঝতে পারছিলাম শুধুমাত্র অ্যারোমা থেরাপি ট্রিটমেন্টের মাধ্যমে চেহারার আমূল বদল ঘটতে পারে, সারা জীবন সুস্থ সুন্দর ত্বক আর চুলের অধিকারী হতে পারা যায়’। সুযোগটা আসে ১৯৯৯ সালে। খুলে ফেলেন ইলেনা বিউটি পার্লার। সেই তখন থেকে আজ পর্যন্ত লম্বা পথ পাড়ি দিতে হয়েছে রীতা চট্টোপাধ্যায়কে। ধীরে ধীরে ছোট্ট বিউটি পার্লারটি ইলেনা বিউটি ক্লিনিক অ্যান্ড স্পা হয়ে ওঠে। কীভাবে আরও সুন্দর হয়ে ওঠা যায়, কীভাবে ত্বকের যত্ন নিতে হবে, এই সব নিয়ে কাজ করতে করতে নিজেকে যে এই জায়গায় নিয়ে আসতে পারবেন রীতে নিজেও ভাবতে পারেননি। শখের বশে যে কাজ শুরু হয়েছিল সেটাই পেশায় দাঁড়িয়ে যায়। কাজ নিয়ে তিনি এখন প্রচন্ড আত্মবিশ্বাসী। ‘আমি বুঝতে পারছি, ত্বক বা চুলের যেকোনও সমস্যা নিয়ে কেউএলেও সফলভাবে তার সমাধান করে দিতে পারছি। এখনও পর্যন্ত আমার হাতে সুস্থ হয়েছেন প্রায় সবাই’। চুল এবং ত্বকের জন্য নিজের আয়ুর্বেদিক প্রোডাক্টও রয়েছে রীতার। খোলা হয়েছে নেল বার এবং ট্যাটু বারও। শুধু কলকাতা নয়, দুর্গাপুরেও রয়েছে ইলেনার শাখা।

শুধু বিউটি পার্লার বা ক্লিনিকেই থেমে থাকেননি রীতা। কয়েক বছরের মধ্যে কলকাতায় গড়ে ফেলেছেন ইলেনা বিউটি অ্যান্ড হেয়ার অ্যাকাডেমি। স্যালোন প্রফেশনালদের শিক্ষার ক্ষেত্রে জাতীয় স্তরে প্রথম সারির প্রতিষ্ঠান হয়ে ওঠার লক্ষ্য রয়েছে রীতার এই অ্যাকাডেমির। রীতা বলেন, ‘শুধু খোলা মন নিয়ে এই পেশা গ্রহণ করার জন্য তৈরি থাকলেই হবে। ইলেনা সাফল্যের লক্ষ্যে পৌঁছে দেবে। মূলতঃ শিক্ষার্থীর সুপ্ত শিল্প প্রতিভা এবং ক্লায়েন্টের জন্য যেসব পরিষেবা তৈরি রাখতে হবে তার পূর্ণাঙ্গ শিক্ষা আমরা দিয়ে থাকি’। বেসিক কোর্স এবং স্পেশাল কোর্স-দু ধরনের কোর্স রয়েছে। বেসিক কোর্স ৬ মাসের। স্পেশাল কোর্স প্রত্যেকটি বিষয়ের নিজস্ব কোর্স ডিউরেশনের ওপর নির্ভর করে। তাছাড়া, স্যালোন ম্যানেজমেন্ট, রিসেপশন হ্যান্ডলিং, রিটেল ম্যানেজমেন্ট, স্যালোন অ্যাডভারটাইজমেন্ট, ক্লায়েন্ট প্রমোশনের বিষয়গুলিও শেখানো হয় নানা কোর্সের মাধ্যমে।

এতদিন শুধু মহিলাদের রূপচর্চার দিকে নজর রেখেছিল ইলেনা। এবার কলকাতায় পুরুষদের জন্য স্যালোন লঞ্চ হয়েছে। ধীরে ধীরে ব্যবসা আরও ছড়িয়ে দিতে চান রীতা। একই সঙ্গে কর্মসংস্থানেরও ব্যবস্থা করেছেন অনেকের। সাফল্যের জন্য সবার আগে পরিবার এবং সহকর্মীদের সহযোগিতাকেই এগিয়ে রাখেন রীতা। ‘এরা পাশে না থাকলে আজ হয়ত এই জায়গায় এসে পৌঁছানো সম্ভব হত না’, বলেন তিনি।