ঘরে বসে বাংলা বই, 22 শতাংশ ছাড় রুবানশপ-এ

0

সুখবর। বইমেলা এবার আর শেষ হচ্ছে না। কলকাতা বইমেলা তো নয়ই, বাংলাদেশের একুশে বইমেলাও নয়। তামাম বিশ্বের বাঙালি পাঠকের কাছে বছরভর বইমেলা নিয়ে এল রুবানশপ ডট কম। ঘরে বসেই এখন মিলবে পছন্দের বাংলা বইটি। অবিশ্বাস্য ছাড়ে! বইমেলা তো বটেই, বইপাড়া কলেজস্ট্রিটেও চট করে তেমন ছাড় পাওয়া ভার! আর, পাঁচশো টাকার বেশি অর্ডার হলেই ডেলিভারি ফ্রি।

rubanshop.com। এই সাইটটিকে হাতিয়ার করেই ফ্লিপকার্ট বা আমাজনের সঙ্গে পাল্লা দিতে চাইছেন কলকাতার অভীক ভট্টাচার্য। হাতে বাংলা বই, চোখে বিশ্বজয়ের স্বপ্ন। ইতিমধ্যেই সারা দেশে ওয়েবজাল বিছিয়েছেন। খুবই শিগগিরি দেশের বাইরে ছড়িয়ে থাকা বাঙালি পাঠকের হাতেও পৌঁছে দিতে চলেছেন বঙ্কিমচন্দ্র থেকে বাণী বসু, জীবনানন্দ থেকে জয় গোস্বামী। শুধু বড়ো পাবলিশার্সের ভারী বই-ই নয়, তেমন পাঠকের জন্য রুবানশপের অফার-তালিকায় থাকছে ছোটো-খাটো প্রকাশনীর অজস্ৰ ভালো বইও। সঙ্গে যোগ হতে চলেছে লিটল ম্যাগাজিন। আইটেমগুলি দুর্মূল্য, কিন্তু দামে পড়ছে সস্তা!

অনলাইনে বাংলা বই-এর বাজার ধরতে এমন উদ্যোগ যে আগে হয়নি, তা নয়। কিন্তু শেষমেশ সেসব বড়ো-একটা কাজে দেয়নি। রুবানশপ সেই বাধাটা টপকাতে চাইছে বই-এর বিপুল সম্ভার আর বৈচিত্র্য দিয়ে। প্রোজেক্টটি দেখভাল করছেন প্রসেনজিৎ চক্রবর্তী। মোটে ক-মাসেই পাঠকের জন্য বানিয়ে ফেলেছেন কম-সে-কম ১০ হাজার বই-এর সুবিশাল সংগ্রহ। সাইটে সেসব সাজানোও আছে সুচারুভাবে। প্রবন্ধ কি উপন্যাস, ছোটোগল্প কি কবিতা – পাঠক ইচ্ছেমতো বেছে নিতে পারবেন। পছন্দের বিষয় আরও নির্দিষ্টভাবে বাছতে, রয়েছে প্রায় সাড়ে তিনশো ক্যাটাগরি – 'অভিধান', 'অভিনয়', 'অভিযান' থেকে 'হিন্দি', 'হিন্দু', 'হিমালয়'...। তালিকা দীর্ঘ, বিচিত্র তো বটেই।

সাজানোর এই কাজটি করছেন ক্রিয়েটিভ হেড রাজা বিশ্বাস। শুধু বিশেষ বইটি অফার করাই নয়, তার জন্য বিশেষ দিনে বিশেষ ছাড়ের বন্দোবস্তও করছেন। আপাতত সব বইতেই ফ্ল্যাট ২০% ছাড় দিচ্ছে রুবানশপ। কিন্তু বিভিন্ন উপলক্ষে থাকছে বাড়তি ছাড়ের আকর্ষণীয় ব্যবস্থাও। কখনো তা শঙ্খ ঘোষের জন্মদিন, কখনো সত্যজিৎ রায়ের। আবার বিয়ের সিজ্‌নে উপহার দেওয়ার মতো বই মিলছে আরও কম দামে। বাঙালি পাঠক আরও-আরও বাংলা বই পড়ুক, ঘরে বসেই সে পেয়ে যাক তার প্রিয়তম বইটি, চাইছে রুবানশপ।

এক বছরও হয়নি, রুপালি পাবলিকেশনস-এর অন্যতম উদ্যোগ হিসেবে জন্ম রুবানশপের। সপ্তাহ দুয়েক হল লঞ্চ হয়েছে অ্যাপও। কিন্তু, আগামী ছ-মাসের লক্ষ্য? আপাতত আমাজন-ফ্লিপকার্টের মতো কারো সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে নয়, বিশ্বগ্রামের চড়াই-উতরাই নিজের পায়েই পেরোতে চান, বলছেন সংস্থার অন্যতম কর্ণধার অভীক। যথাসম্ভব বাড়াতে চান বই-এর সম্ভার। আর চান, বাংলাদেশের বাঙালি পাঠকও যেন বিন্দুমাত্র শিপিং চার্জ ছাড়াই কলকাতার রেটে পেতে পারেন এপার বাংলার অপার সংগ্রহ। আপাতত এটুকুই লক্ষ্য রুবানশপের। তাহলে এবার ভরে উঠুক আপনার সাধের কার্টটি, আর আমহার্স্ট স্ট্রিটের বাঁধাইখানার আঠা গন্ধ ছড়াক আমস্টারডামে। মেক্সিকোর বুক-শেলফে আলো জ্বালাক মেদিনীপুরের লিটলম্যাগ।