অফিস পাড়ায় মোবাইল অফিস, বীমা বেচছে GIBL

2

আপনার বীমার মেয়াদ কি ফুরিয়ে যাচ্ছে? এজেন্ট সাহেবের ফোন নট রিচেবল? ভাবছেন তো কীভাবে রিনিউ করবেন বীমা? চিন্তার কারণ নেই, জিআইবিএল আনল আপনার দরজায় আস্ত বীমা অফিস। সে যেকোনও সংস্থার বীমাই হোক না কেন, ওদের কাছে সব সংস্থার সবরকমের বীমার সমাধান সূত্র আছে। পাশাপাশি আছে তুল্যমূল্য বিচার করার সুযোগ। এতদিন ওরা এই কাজটা করত শুধুমাত্র অনলাইনে আর অ্যাপের মারফত। এবার আরও ভালো পরিষেবা দিতে তৈরি ওদের মোবাইল ভ্যান। চলমান বীমা অফিস ঘুরছে কলকাতা শহরের অফিস পাড়ায়, ব্যস্ত এলাকায়। সেই মোবাইল ভ্যানেই পাবেন নানা ধরণের বীমার সলিউশন। নতুন করে বীমা করাতে চাইলে সেই সুযোগ আছে। বাজারের হাজার একটা বীমা সংস্থার নানান অফারের মধ্যে ট্যালি করে পেয়ে যাবেন সব থেকে সস্তা এবং সবথেকে কার্যকরী বীমা পলিসি। জিআইবিএল ভারতীয় বীমার অনলাইন বাজার হিসেবে ইতিমধ্যেই যথেষ্ট সুখ্যাতি অর্জন করেছে। কলকাতার এই স্টার্টআপ সংস্থার কর্ণধার সুবীর মুখার্জি বলছিলেন, জিআইবিএল-এর লক্ষ্য পূর্বভারত। কিন্তু গোটা দেশেই ছড়িয়ে রয়েছে ওদের কাস্টমার। কলকাতায় নিউটাউনে দফতর। ওয়েবসাইট এবং অ্যাপে আপনি পছন্দসই বীমা করাতে পারেন। ওদের মারফতই বীমার ক্লেইম পেতে পারেন। অবশ্য গোটাটাই অনলাইনে। স্বাস্থ্য থেকে জেনারেল ইন্সিওরেন্স সবই পাবেন জিআইবিএল-এ। অনলাইনে থাকা সত্ত্বেও কেন ওরা মোবাইল ভ্যান বের করলেন তা নিয়ে প্রশ্ন করতে সুবীর জানালেন তাদের পরিকল্পনার কথা। বলছিলেন, মার্চ মাসটা অর্থ বছরের শেষ মাস ছিল। চূড়ান্ত ব্যস্ততার মাস। ট্যাক্সের রিটার্ন ফাইল করা, ট্যাক্স বাঁচানোর জন্যে নানান স্কিমে টাকা রাখার চাপ যেমন ছিল তেমনি ছিল বীমা করানোর তাগিদও। তাছাড়া এই দৌড়ঝাঁপের মধ্যে অনেক গ্রাহকই ভুলে যান বীমার মেয়াদ কখন ফুরিয়ে আসছে কিংবা ঠিক সময়ে রিনিউ না করতে পারলে অনেক ক্ষেত্রেই হয়ত আগের বছর গুলোর বিনিয়োগ জলে যেতে পারে! এরকম দিশে হারা পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে আন্দাজ করেই সুবীর মুখার্জির সংস্থা একটি সমাধানের সূত্র বের করে।

ওদের অফিসের কর্মীদের পিকআপ ড্রপ করার পুরনো বাসটাকেই রাতারাতি মোবাইল অফিসে বদলে ফেলেন সুবীর। সেক্টর ফাইভ, কিংবা নিউটাউনের ব্যস্ত অফিসপাড়ায় সেই মোবাইল অফিসটিকে প্রথমে পাঠিয়ে দেন। দারুণ সাড়া পান। অনলাইন-অ্যাপের পাশাপাশি অফলাইন বীমা অফিসেও দারুণ সাড়া পরে যায়। তারপর থেকেই মোবাইল ভ্যানে বীমা বিক্রির এই ব্যবস্থা পাকাপাকি ভাবে শুরু করে দেয় জিআইবিএল। এতে যেমন গ্রাহকদের সুবিধে হয়েছে তেমনি জিআইবিএল-এরও ব্যবসা বেড়েছে চোখে পড়ার মতো। এখন সবে নিউটাউন এবং সেক্টর ফাইভে ঘুরপাক খাচ্ছে এই ভ্যান। সুবীরের কথা মতো সেদিন খুব দূরে নেই যখন কলকাতার বিভিন্ন অফিস পাড়ায় হাজির থাকবে ওদের মোবাইল অফিস। ওদের ইউএসপি সব থেকে কার্যকরী বীমা আপনি পাবেন সব থেকে সস্তায় ওদের কাছেই।