‘মায়া’র টানে রতন টাটার ব্যক্তিগত বিনিয়োগ ক্রেয়ন ডাটায়

0

এশিয়ার অগ্রগন্য বিগ ডাটা কোম্পানী ক্রেয়ন ডাটায় এবার অজানা অঙ্কের ব্যাক্তিগত বিনিয়োগ করলেন টানা সন্সের এমিরেটাস চেয়ারম্যান রতন টাটা । শ্রীকান্ত শাস্ত্রী ও সুরেশ শঙ্করের এই দুজন ২০১২ সালে তৈরী বিগ ডাটার স্টার্ট আপ ক্রেয়ন ডাটার তৈরী করেন।তাদের আর্ন্তজাতিক লক্ষ্য হল “পৃথিবীতে সুযোগের সরলীকরণ“

এই মূহূর্তে ক্রেয়ন ডাটার কর্মী সংখ্যা ৯০ জন,তাদের মধ্যে ৬০ জন চেন্নাইয়ে আর ৩০ জন সিঙ্গাপুরে কাজ করছেন।ইওর স্টোরিকে কোম্পানীর ভারতের বিজনেস হেড আরতি রামকৃষ্ন জানালেন। এছারাও দুবাই,লন্ডন আর নিউ ইয়র্কে তাদের সেলস অফিস রয়েছে,ওই অফিসগুলিতে তিন থেকে পাঁচ জন করে কর্মী রয়েছেন। আরতির কথায় “ বর্তমানে আমাদের মূল ফোকাস আমেরিকার মার্কেট।আমাদের কোম্পানীর প্রতিষ্ঠাতা শ্রীকান্ত নিজেই এখন ওখানে থাকছেন সবকিছু সামলাবার জন্য।আমাদের প্রথম ক্লায়েন্ট ছিলেন ইউ কের। দুবাইতেও আমাদের একজন বড় ক্লায়েট আছে।এছারাও এ পি এ সি র সিঙ্গাপুর ও ইন্দোনেশিয়াতেও বড় বাজার রয়েছে।“ ক্রেয়ন ডাটার মূল প্রোডাক্ট মায়া হল একটি সার্চ ইঞ্জিন।মায়া ব্যাঙ্কিং,হোটেল ডিজিটাল মিডিয়া আর অন্যান্য ক্ষেত্রে গ্রাহকের পছন্দমত পরিষেবা নির্বাচনে সাহায্য করে।মায়া ক্রেয়ন ডাটার প্রপারাইটারি প্লাটফর্ম সরল পছন্দেকে মূল ভিত্তি করে তৈরী। এটি কোনও কোম্পানীকে তার গ্রাহককে সম্পুর্ণ ব্যক্তিস্বাচ্ছন্দ্যের ভিত্তিতে পরিষেবা বা পণ্য নির্বাচনের স্বাধীনতা দেয়।এটি গ্রাহকের পছন্দের ভিত্তিতে চোদ্দ রকমের আলাদা পদ্বতি এবং টেস্ট গ্রাফ অ্যালগরিদমের সাহায্যে কোম্পানীর নিজস্ব তথ্য ও অনলাইনে প্রাপ্ত তথ্যের তুলনার মাধ্যমে এই আকাজটি করে। গ্রাহকের পছন্দের এই মাপকাঠীতে এখন একটি জটিল পদ্বতির মাধ্যমে ১৫ টি আলাদা এককে গ্রাহকের পছন্দের বিশ্লেষণ বা পরিমাপ সম্ভব। এর রেভিনিউ মডেল হিসাবে বর্তমানে তারা লাইসেন্সিং ফি হিসাবে পাওয়া টাকার উপরই ভরসা রাখছেন।

ক্রেয়ন এর আগে দুপর্যায়ে সীড ক্যাপিটাল ও সিরিজ এ ক্যাপিটাল রুপে বাজার থেকে দশ মিলিয়ন ডলার বা প্রায় পয়ষট্টি কোটি টাকা তুলেছে।বিনিয়োগকারী সংস্হা জংলী ভেঞ্চর ও স্প্রীং সিডস এর মত ক্রেয়ন টাকা ঢেলেছে।সম্প্রতি রতন টাটা জংলী ভেঞ্চারের বিশেষ পরামর্শদাতা হিসাবে যোগ দিয়েছেন।জংলী ভেঞ্চারের অনুরাগ শ্রীবাস্তব জানালেন, “ ক্রেয়নের উপর আমাদের সবসময়ই আস্থা রয়েছে। শ্রীকান্ত আর সুরেশ মার্কেটিং আর তথ্য বিশ্লেষনের ক্ষেত্রে তাদের এত বছরের অভিজ্ঞতার ফলে জানে গ্রাহক ভিত্তিক পরিষেবার কোম্পানী গুলির ব্যবসার জন্য ক্রেয়ন ঠিক কি করতে পারে।“ ইতিমধ্যেই বিগ ডাটা স্টার্ট আপেদের মধ্যে সবচাইতে সফল ও উদ্ভাবনী শক্তির ছাপ রাখার জন্য আন্তর্জাতিক মঞ্চে বহু পুরস্কার ঢুকেছে ক্রেয়নের ঝুলিতে।২০১৪ ও ২০১৫ সালে টিআইকন,সে বি ই আই টি,আই বি এম ওয়াটসন,ইনটেক ৫০ এবং অরেঞ্জ ফ্যাবের মত পুরস্কার জিতেছে ক্রেয়ন।

ভবিষ্যত পরিকল্পনা ও ইন্ড্রাস্ট্রির অবস্হা

এখন দুনিয়াজুড়েই কোম্পানীগুলি নিত্যনতুন পদ্বতির মাধ্যমে গ্রাহকদের সর্বাধিক স্বাচ্ছন্দ্যে দেওয়ার চেষ্টা করছে।প্রতি মাইক্রো সেকেন্ডে আমদের তৈরী তথ্যের ভান্ডার বেড়েই চলেছে।ব্যবসায় সিদ্ধান্ত নেবার ক্ষেত্রে অতীতের অভিজ্ঞতার চাইতে সঠিক ভবিষ্যত পরিকল্পনা গুরুত্ব পেয়েছে।ব্যাবসায় সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে কোম্পানীগুলি বিগ ডাটা বা তথ্যভান্ডার ও বিশ্লেষণী শক্তির উপর ভরসা রাখছে।

ন্যাসকম ও ব্ল ওসেন মার্কেট ইনটেলিজেন্স এর সমীক্ষা অনুযায়ী ভারতের তথ্য বিশ্লেষনের বাজার ২০১৭-১৮ সালে বর্তমানের এক বিলিয়ন ডলার থেকে বেড়ে ২.৩ বিলিয়ন বা ষোলো হাজার কোটি টাকা ছাড়াবে।

দুহাজার চার সালে ধিরাজ রাজারামের হাতে তৈরী ব্যাঙ্গালোরের এম ইউ সিগমা এই বাজারের সূচনা করে ।এখন রাজারামের কোম্পানীর দামই এক বিলিয়ন ডলার।

এখনকার বলতে গিয়ে আরতি বললেন, বর্তমানে কোম্পানীগুলিকে পরিষেবা দেওয়াই তাদের মূল লক্ষ্য।কিন্তু ভবিষ্যতে তারা একটি বি ২ সি বা বিজনেস টু কনজিউমার মডেল আনতে চলেছেন।এর সুবিধা গ্রাহকরা সরাসরি নিতে পারবেন।তিনি আরও জানান” মায়া এতদিন একটি সার্ভিস প্লাটফর্ম হিসাবে পাওয়া যায়। তবে এই (ডিসেম্বর) মাস থেকে আমরা এটির একটি ওয়েব ভার্সন লঞ্চ করছিএছারাও ২০১৬ র ফেব্রয়ারিতে আমরা একটি মোবাইল পরিষেবা লঞ্চ করছি।“

ইওর স্টোরির মতামত

দুনিয়ার বহু দেশে তাদের উপস্হিতি ও উন্নত ও উন্নয়নশীল বাজার গুলিতে ফোকাস থাকার ফলে ক্রেয়ন ডাটা বিগ সেক্টরে বিরাট ভুমিকা নিয়েছে।জংলী ভেঞ্চার ,স্পরীং সিড ও সম্প্রতি রতন টাটার মত বিরাট ব্যক্তিত্বের নিজস্ব বিনিয়োগের ফলে কোম্পানী বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে বড় সাহায্য পেয়েছে।ক্রেয়ন ডাটার প্রতিষ্ঠাতা শ্রীকান্ত শাস্ত্রী বললেন,“আমরা সন্মানিত ও উত্তেজিত। রতন টাটার সঙ্গে সাক্ষাত ও আমাদের ধ্যানধারনায় তার বিশ্বাস রাখাটাই আমাদের কাছে সন্মানের। “

ডিসক্লেমার : রতন টাটা ইয়োর স্টোরির একজন অন্যতম বিনিয়োগকারী

মূল কাহিনি হর্ষিত মালিয়া অনুবাদ সুজয় দাস