একশ কুড়ি কোটির পেট পুজো

0

জানেন কি ভারতীয়রা ১০০ টাকা আয় করলে ৩১ টাকা শুধু খেতে খরচ করে। চিনের ক্ষেত্রে সেটা ২৫ টাকা। ব্রাজিলে ১৭ টাকা। আর মার্কিন মুলুকে মাত্র ৯ টাকা। ভরতীয় মুদ্রায় ১ বিলিয়ন ডলার মানে ১০০ কোটি টাকা। ভাবছেন তো হঠাৎ কেন মিলিয়ন, বিলিয়নের হিসাব নিয়ে বসলাম? 

আসলে সাম্প্রতিক এক সমীক্ষার রিপোর্ট বলছে ২০১৩ সালে ভারতে খুচরো বিক্রেতারা ৪৯০ বিলিয়ন মানে ৪৯,০০০ হাজার কোটি টাকা খাদ্য বেচেছেন। ২০২৩ সালের মধ্যে এটা বেড়ে দাঁড়াবে ৮৬৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে। খুচরো বিক্রেতারাদের লাভের ভাগ ৮% থেকে বেড়ে ২৪% হয়ে যাবে। 

আগামী ২০১৮ সালের মধ্যেই ভারতের ফুড ইন্ডাস্ট্রির বার্ষিক বৃদ্ধির হার ১১ শতাংশে গিয়ে ঠেকবে। মানে আনুমানিক ৬৫.৪ বিলিয়ন ডলার (৪ লাখ কোটি টাকা)। IIM-Calcutta এবং Academic Foundation এর যৌথ রিপোর্ট বলছে এখন দেশের খাদ্য শিল্পের সামগ্রিক মূল্য ৩৯.৭১ মার্কিন ডলার।

আর এখানেই লুকিয়ে আছে সম্ভাবনা। বিদেশী কোম্পানীগুলো দূর থেকে মৌচাকের সন্ধান পেয়েছে। এখানে কারখানা তৈরি করতে এবং বিনিয়োগ করতে আগ্রহী। ফলে কর্মসংস্থান তো বাড়বে। ইতিমধ্যেই কিছু বড় বড় বিদেশী ফার্ম এখানকার কৃষক আর খাদ্য প্রস্তুতকারকদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে। 

বিদেশি কোম্পানীর যোগদানের ফলে অত্যাধুনিক পদ্ধতিতে উৎপন্ন হচ্ছে অভিনব প্রোডাক্ট। পরিবেশ বন্ধু সুলভ প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে যথাযথ বর্জ্য পরিচালন হচ্ছে। সবশেষে ভারত বিদেশে খাদ্যপণ্য রপ্তানী করে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা রোজগার করছে। এবং সমীক্ষার ইঙ্গিত সেই প্রাচুর্যের পরিমাণটা আগামী কয়েক বছরে লাফ দিয়ে দিয়ে বাড়বে। 

এই যে স্টার্টআপ উদ্যোগপতি, আপনাকে বলছি। এরকম পরিস্থিতিতে ভাবুন তো আমরা কী করছি! আমরা কী না করতে পারি! বাজার যখন তৈরি তখন ঝাঁপাতে দেরি কেন!